টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফে মাদকাসক্ত পিতার কারণে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমালেন ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী রোকসানা

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৩
  • ১৪৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

teknaf pic 19-8-13 („)হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ ####টেকনাফে থেকে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমিয়েছে ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী রোকসানা।  টেকনাফ পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের আওতাভূক্ত গ্রামটিতে ১৯ আগষ্ট বিকালে সরেজমিন পরিদর্শনে গেলে সংবাদকর্মী পরিচয় পেয়ে স্বামী হোসন মিস্ত্রী কত্তৃক অশালীন ও অসহ্য নির্যাতনের বর্ণনা তুলে ধরে মা হাসিনা আক্তার মেয়ে শোকে অঝোর কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। কান্না বিগলিত কন্ঠে মা হাসিনা আক্তার বলেন- একমাত্র মেয়ে রুখশানা আক্তার (১৬) বর্তমানে টেকনাফ এজাহার গালর্স হাই স্কুলের ১০ম শ্রেনীতে অধ্যানরত। প্রত্যেক শ্রেনীতে সে বরাবরই প্রথম স্থান অধিকার করত। ১১ বছর বয়সী ছেলে সাইফুল ইসলাম মাইমুনা প্রাইমারী স্কুলে ৫ম শ্রেনীতে পড়ে। অত্যন্ত মেধাবী মেয়েকে নিয়ে তাদের উচ্চ আশা ছিল। কিন্তু মাদকাসক্ত পিতার কারনে তা পূরণ হয়নি। স্বামী মোঃ হোসেন মিস্ত্রী বাড়িতে গাঁজাসহ নিয়মিত মাদক সেবন করত। বাধা দিলে স্ত্রী ও মেয়েকে অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ ও মারধর করত। সহপাঠি ও সাথীরা এনিয়ে রুখশানাকে  ঠাট্টা করত। ১০ম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্রী রুখশানা আক্তার নিখোঁজ রহস্যের জট খুলতে শুরু করেছে। মাদকসেবী পিতা মোঃ হোসন মিস্ত্রীর অপমানের জ্বালা সইতে না পেরে কিশোরী রুখশানা আক্তার অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি দিয়েছে বলে জানা গেছে। এদিকে মেয়ের ছবি বুকে নিয়ে মা হাসিনা আক্তার কেঁদে-কেটে এখন পাগলপ্রায়। সেই সাথে মেয়ের অজানা আশংকায় চরম ভাবে শংকিত। ১৯ আগষ্ট সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন, সংশ্লিষ্টদের সাথে আলাপ ও এলাকাবাসীসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সাথে কথা বলে জানা গেছে। এসব তথ্য। সেই সাথে বেরিয়ে আসছে পিতার অপকর্মের চাঞ্চল্যকর কাহিনী। তা ছাড়া কারণে-অকারণে প্রায় সময় স্ত্রী হাসিনা আক্তারকে মারধর করত। গত ঈদের পর নির্যাতনের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। মিথ্যা অজুহাত তুলে বেদম মারধর এবং নির্যাতনের মুখে মিথ্যা স্বীকারোক্তি আদায় ও তা মোবাইল ফোনে রেকর্ড করে। এমনকি মারধর ও অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ এবং বাসার জিনিসপত্র বাহিরে পেলে দিয়েও ান্ত না হয়ে মুষলধারে বৃষ্টির সময় মা-মেয়েকে রাতভর বাইরে রাখে। মা আরও বলেন- মাদকাসক্ত পিতার এহেন অশালীন আচরন স্কুল পড়–য়া মেধাবী ছাত্রী রোকসানা আক্তার সইতে না পেরে অপমানে গত ১৭ আগষ্ট নিরুদ্দেশ হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাগণও মোঃ হোসন মিস্ত্রীর নির্যাতনের ঘটনা সত্য বলে দাবী করেছেন। মা হাসিনা আক্তার অঝোর কান্নায় আরও বলেন- বহু কস্টের মাধ্যমে ছেলে-মেয়ে দু’টিকে লেখাপড়া চালিয়ে যাচ্ছি। স্বামীর শত অত্যচার, নির্যাতন শুধু তাদের মুখের দিকে তাকিয়ে সহ্য করতাম। স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর আলহাজ্ব আবু হারেছ বলেন- মিথ্যা অজুহাতে বৃদ্ধ কালামিয়া বৈদ্যকে ও সে মারধর করেছে। স্ত্রী নির্যাতনের ঘটনায় থানায় শালিস বৈঠকে সে দোষী সাব্যস্ত হয়ে মুছলেকা দিয়েছে। চরিত্র সংশোধনের জন্য তাকে তবলীগের ছিল্লায় যেতে বলা হয়েছিল। মোঃ হোছন মিস্ত্রি মাদকসক্ত ও স্ত্রী নির্যাতনকারী বলেও তিনি মন্তব্য করেন। টেকনাফ এজাহার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিকিা শিউলী চৌধুরী বলেন- এবারের এসএসসি পরীার্থী রোকসানা আক্তার ঈদের পরে স্কুল খোলার পর থেকে এ পর্যন্ত স্কুলে আসেনি। রোকসানা আক্তার অত্যন্ত মেধাবী ছাত্রী ছিল বলে ও তিনি দাবী করেন। এদিকে শুধু মা ওআতœীয় স্বজন নয়, অত্যন্ত মেধাবী ছাত্রী রোকসানা আক্তারের  নিরুদ্দেশ ঘটনায় পুরো এলাকায় যেন শোকের ছায়া নেমে এসেছে এবং সবার মূখে মূখে আলোচিত হচ্ছে এই ঘটনা। অথচ দিব্যি প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে অপকর্মের হোতা সেই মোঃ হোছন মিস্ত্রি । এলাকাবাসী  তার দৃষ্টান্ত শাস্তিু দাবী করেছেন।

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT