টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফে বিজিবি কর্তৃক দোকানে দোকানে চাল আটকের ঘটনায় ব্যবসায়ীরা আতঙ্কে

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ৭ জুলাই, ২০১২
  • ১৫২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ছৈয়দ আলম, টেকনাফ #টেকনাফের বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে মিয়ানমারে চাল পাচার প্রতিরোধের অংশ হিসেবে তিন দিন ধরে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, সড়ক ও মেঠোপথ থেকে বিজিবি’র চাল আটকের ঘটনায় ব্যবসায়ীরা আতঙ্কে মালামাল আনানেওয়া বন্ধ করে রেখেছে। বুধবার রাতে হ্নীলার ব্যবসায়ীরা এক সমাবেশে মিলিত হয়ে ‘বিজিবি কর্তৃক ব্যবসায়ীদের হয়রানীর বিরুদ্ধে’ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে। জানা যায়, ৪ জুলাই বুধবার রাত সাড়ে ১০টায় হ্নীলা ষ্টেশনের ৩৭১ ব্যবসায়ী স্থানীয় আল-ফালাহ একাডেমী মিলনায়নে এক সমাবেশে মিলিত হয়। বাজার কমিটির নবনির্বাচিত সচিব অধ্যাপক জহির আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই সমাবেশে বক্তৃতাকালে ব্যবসায়ীরা জানান, গত তিন দিন ধরে কোন ধরণের পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বিজিবি সীমান্ত পয়েন্ট থেকে ২-৩ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত মোচনী এলাকার ব্যবসায়ী সোলতান আহমদ ও লেদা টাওয়ার এলাকার ব্যবসায়ী মোঃ হোছাইনের মুদির দোকান থেকে ১০ লাখ ১৪ হাজার টাকা মূল্যমানের ৭শ’ ৮০ বস্তা চাল জব্দ করে ওই দু’ব্যবসায়ীকে আটক করে নিয়ে যায়। এছাড়া ওই ঘটনায় ব্যবসায়ী মোস্তাক সওদাগরকেও আসামী করা হয়। ব্যবসায়ীরা আরো জানায়, বিজিবি সীমান্ত পয়েন্টে নজরদারী বৃদ্ধির মাধ্যমে চাল পাচার প্রতিরোধ না করে বিভিন্ন বাজারে সাধারণ ব্যবসায়ীদের হয়রাণী করছে। বিজিবি চাল পাচার প্রতিরোধের নামে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বিজিবি’র হয়রাণী বন্ধের অনুরোধ জানিয়ে বলেন, অন্যথায় ব্যবসায়ীদের আন্দোলনে নামা ছাড়া গন্ত্যর থাকবে না। সূত্রে জানা যায়, ব্যবসায়ীরা ওই সমাবেশের পূর্বে ‘বিজিবি কর্তৃক ব্যবসায়ী হয়রাণীর’ প্রতিকার চেয়ে বুধবার দুপুরে স্থানীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি’র সাথে সাক্ষাৎ করে তাঁকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে স্মারকলিপি প্রদান করে। এছাড়া ব্যবসায়ীরা ইউএনও আ.ন.ম. নাজিম উদ্দিন ও উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান এইচএম ইউনুচ বাঙ্গালীর সাথেও সাক্ষাৎ করে স্মারকলিপি প্রদান করে।

হ্নীলা বাজার কমিটি সূত্র জানায়, বিজিবি কর্তৃক ব্যবসায়ীদের হয়রানীর প্রতিকার চেয়ে উর্ধ্বতন মহলে স্মারকলিপিসহ বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণের পর বৃহস্পতিবার সকালে বিজিবির একটি দল হ্নীলা বাজার কমিটির সচিব অধ্যাপক জহির আহমদের সাথে সাক্ষাত করে বিজিবি’র অবস্থান ব্যাখ্যা করেন এবং ব্যবসায়ীদের কোন ধরণের হয়রাণী করা হবে না বলে আশ্বস্থ করা হয়। জবাবে বাজার কমিটির সচিব এ বিষয়ে ব্যবসায়ীদের সাথে বিজিবির উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে বৈঠকের প্রস্তাব দেন বলে জানা যায়।

এদিকে শুক্রবার হ্নীলা ষ্টেশনের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে খোঁজখবর নিয়ে জানা যায়, বিজিবি কর্তৃক বিভিন্ন দোকানে দোকানে চাল আটকের ঘটনায় ব্যবসায়ীরা আতঙ্কে রয়েছে। তারা সাধারণভাবে বেচাবিক্রি করলেও চট্টগ্রাম-কক্সবাজার থেকে মালামাল আনা-নেয়া বন্ধ করে রেখেছে।

ক্রেতা সাধারণের সাথে আলাপচারিতায় জানা যায়, বিজিবির আটক অভিযান আর আতঙ্কিত ব্যবসায়ীদের মালামাল আমদানী বন্ধ করে দেয়ায় এর প্রভাব বাজারে পড়তে শুরু করেছে। এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে আসন্ন রমজানে বাজার পরিস্থিতি অস্বাভাবিক হয়ে উঠবে।

এ প্রসঙ্গে টেকনাফ ৪২ ব্যাটালিয়ান বিজিবি’র কমান্ডিং অফিসার লে. কর্ণেল জাহিদ হাসান জানান, বিজিবি দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সীমান্তের অতন্দ্র প্রহরায় সর্বদা নিয়োজিত। সীমান্ত এলাকার জানমালের হেফাজতে ব্যবসায়ীসহ সর্বসাধারণের পাশে যেমন বিজিবি থাকে তেমনি বিবেকবর্জিত দেশের স্বার্থবিরোধী যে কোন কর্মকান্ডে বিজিবি প্রতিরোধ গড়ে তোলে। তিনি আরো জানান, বিজিবি সীমান্ত ব্যবসায়ীদের কখনো ঢালাওভাবে চোরাকারবারী মনে করে না। বরং সৎ ব্যবসায়ীদের পাশে বিজিবি সব সময় থাকে। তবে যে সমস্ত ব্যবসায়ীদের ব্যাপারে চোরাচালানের সুনির্দিষ্ট তথ্য-প্রমাণাদি রয়েছে; স্থানীয় প্রশাসন, জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে গঠিত সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে যাচাই-বাছাইয়ের পর চাল আমদানীর লাইসেন্স পরীক্ষা-নীরিক্ষা করে কেবল তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এতে ব্যবসায়ীদের অসম্মানিত, অপমানিত বা আতঙ্কিত হওয়ার কোন কারণ নেই।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT