টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফে ঈদুল আযহায় প্রত্যন্ত এলাকা প্রাণের স্পঁন্দনে মেতে উঠেছে

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর, ২০১৩
  • ১৪১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

হুমায়ূন রশিদ,টেকনাফ। টেকনাফের বাহিরে অবস্থানকারী লোকজন পবিত্র ঈদুল আযহা উপল্েয নাড়ীর টানে গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসায় প্রত্যন্ত এলাকা যেন নতুন করে প্রাণের স্পঁন্দনে মেতেছে। তবে ইয়াবার আগ্রাসনরোধ করে টেকনাফের হারানো গৌরব ফিরে আনার আকুতি সবার মাঝে।
সরেজমিন বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন ও খোঁজ নিয়ে জানাযায়-গত ২/৩দিন আগ হতে দেশের বিভিন্ন স্থানে অবস্থানকারী টেকনাফ উপজেলার সেন্টমার্টিন, সাবরাং, টেকনাফ পৌরসভা, সদর ইউনিয়ন, বাহারছড়া, হ্নীলা ও হোয়াইক্যং ইউনিয়নের হাজার হাজার নারী,পুরুষ ও শিশু-কিশোর পবিত্র ঈদুল আযহা উপল্েয নাড়ীর টান ও ঈদের আনন্দ ভাগ করে নিতে গ্রামের বাড়িতে আসতে শুরু করেন। ১৫অক্টোবর বিকালে সর্বশেষে লোকজন এসে পৌছার পর চাকুরীজীবি, অধ্যয়নরত শিার্থী, পেশাজীবি ও ব্যবসায়ীরা প্রত্যন্ত এলাকার গ্রামের বাড়িতে পৌঁছার পর আতœীয়-স্বজন,পরিচিতজন এবং বিভিন্ন সম্প্রদায়ের বন্ধুদের নিয়ে আড্ডায় নেমেছে বাড়ি, চা দোকান, খেলার মাঠ, খোলায় জায়গায়। জামা-কাপড় কিনতে অম অসহায়-গরীবদের যতটুকু পারে সহায়তা করছে। পরিচিতজনদের অমুক বদ্দা, সমুক ভাই কেমন আছ বলে কোলাকূলি করছে, আর বলছে বস একটু চা-পান খাই। সঙ্গে চলছে কর্মেেত্র ঘটে আসা নানা অভিজ্ঞতার আলোচনা। শেষে যে কথাটি সবাইকে কষ্ট বাড়িয়ে দেয় তা হচ্ছে আনন্দ ভাগ করে ফিরে যাওয়ার পথে বিভিন্ন চেকপোস্টে টেকনাফের বাসিন্দা হলে ইয়াবা তল্লাশীর নামে অমানবিক হয়রানি। কতিপয় ব্যক্তি ইয়াবা ব্যবসা করে বহনকারী হিসেবে হাজার হাজার গরীব মানুষের ছেলেদের হাজত বাস করতে হচ্ছে। আবার অনেকে আসক্ত হয়ে নেশাগ্রস্থ হওয়ার পর বিভিন্ন স্থানে মাতলামি করে বেড়ায় আর দেশের কোথাও আমাদের বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তি, জনপ্রতিনিধি, পেশাজীবি আর এনজিও কর্মীরা টেকনাফের পরিচয় বহন করলে নাজেহাল হতে হচ্ছে। সুতরাং আমরা সর্বনাশা ইয়াবার জন্য দেশবাসীর কাছে ঠাট্টা ও উপহাসের পাত্র হতে চাইনা। টেকনাফের হারানো গৌরব ফিরে আনার স্বার্থে ইয়াবা ব্যবসা, পাচার ও বহনকে না বলি। যাই হবে হোক পবিত্র ঈদুল আযহা উপল্েয বিভিন্ন স্থান হতে গ্রামে ফিরে আসা মানুষদের মধ্যে দীর্ঘদিন পর প্রাণের স্পঁন্দন ফিরে এসেছে। যার ফলে ঈদের আনন্দকে আরো আকর্ষণীয় করে তুলেছে বলে সচেতনমহল মনে করেছেন। ###################

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT