টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে টেকনাফে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফ্রিং টেকনাফের ফাহাদ অস্ট্রেলিয়ায় গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী সম্পন্ন করেছে নিখোঁজের ৮ দিন পর বাসায় ফিরলেন ত্ব-হা মিয়ানমারে পিডিএফ-সেনাবাহিনী ব্যাপক সংঘর্ষ ২শ’ বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস বিল গেটসের মেয়ের জামাই কে এই মুসলিম তরুণ নাসের রোহিঙ্গাদের এনআইডি কেলেঙ্কারি : নির্বাচন কমিশনের পরিচালকের বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে দুদক কর্মকর্তা বদলি সড়কের কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং! আপনি বুদ্ধিমান কি না জেনে নিন ৫ লক্ষণে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি ভোটার: নিবন্ধিত রোহিঙ্গাও ভোটার! ইসি পরিচালকসহ ১১ জন আসামি হ’ত্যার পর মায়ের মাংস খায় ছেলে

টেকনাফে ইয়াবা পাচার ও নাশকতার আশংকায় ৮ মোটরসাইকেল আটক: চোরাই মোটরসাইকেল ব্যবসা জমজমাট

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৩০ আগস্ট, ২০১৩
  • ১৬৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

68685_53নুর হাকিম আনোয়ার,টেকনাফ :::: টেকনাফ সীমান্তের মেরিন ড্রাইভ সড়ক দিয়ে ইয়াবা পাচার ও নাশকতার আশংকায় নম্বরবিহীন ও  চোরাই মোটরসাইকেল আটক করেছে বর্ডার গার্ড ব্যটালিয়ন বিজিবি।  গতকাল বৃহস্পতিবার ও আজ শুক্রবার মেরিন ড্রাইভ সড়কের হাবিবছড়া চেকপোষ্টে এ অভিযান চালায়। বিজিবি  সূত্রে জানা যায় – কাগজপত্রবিহীন ৮টি চোরাই মোটর সাইকেল আটক করা হয়েছে। টেকনাফস্থ ৪২ বিজিবির ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর শফিকুর রহমান বলেন, টহল দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে  অভিযান চালিয়ে চোরাই মোটর সাইকেল আটক করে। তিনি বলেন, গাড়ির নাম্বার প্লেটে ঢাকা মেট্রো-ল-……………. লেখা থাকলেও সংশ্লিষ্ট মালিক বৈধ কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। এদিকে টেকনাফ সীমান্তে ইয়াবা ব্যবসায়ীরা চোরাই মোটরসাইকেলের ব্যবসা করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। কতিপয় অসাধু কাষ্টম কর্মকর্তা ও থানার দারোগা ও  ট্রাফিক সার্জেন্ট বিরুদ্ধে চোরাই মোটরসাইকেল ক্রয়-বিক্রয়ের অভিযোগ উঠেছে। বিভিন্ন সময় অভিযান চালিয়ে চোরাইপণ্যসহ কাগজপত্রবিহীন মোটরসাইকেল আটক করে টেকনাফ থানার বেশ কয়েকজন দারোগা। এরা সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত টেকনাফ শহরের বিভিন্ন প্রবেশদ্বারে অভিযান চালিয়ে প্রায়ই  ইয়াবা ও চোরাচালানের পণ্যসহ মোটরসাইকেল উদ্ধার করে। উদ্ধারের পর এসব পণ্যের অর্ধেকই হাওয়া হয়ে যায়। বাকি পণ্য থানায় জমা হলেও উদ্ধারকৃত মোটরসাইকেল থেকে যায় মামলা মোকদ্দমার বাইরে। তারপর সময় সুযোগ বুঝে সে সব মোটরসাইকেল চোরাই পথে বিক্রি করে দেয়া হয়। এভাবে টেকনাফ থানার বেশ কয়েকজন দারোগার বিরুদ্ধে ইয়াবা চোরাচালান সিন্ডিকেট  টেকনাফ সীমান্ত থেকে মিয়ানমারে পাচার সহায়তার অভিযোগ উঠেছে। এ যাবত বিজিবি ১০-১২ টি মোটরসাইকেল আটকও করছিল। তা অসাধু কাস্টম কর্মকর্তা ও ভূয়া তদন্তের ফলে মোটর সাইকেল আনা সম্ভব হয়।  সম্প্রতি চোরাই মোটরসাইকেলসহ ট্রাফিক পুলিশের হাতে আটক দু’জন আসামির স্বীকারোক্তিতে এ ঘটনা ফাঁস হয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়। ধারা ৩৭৯/৪১১/১০৯। মামলা রুজু হওয়ার দিনই আসামিদ্বয়কে আদালতে হাজির করা হলে স্বজনদের কাছে তারা জানায়,  অসাধু কাস্টম কর্মকর্তার কাছ থেকে সম্প্রতি লাল পালসার মোটরসাইকেলটি তারা কেনেন। কাগজপত্রবিহীন  চোরাই এই মোটরসাইকেলটির দরদাম ঠিক করা হয় ৯০ হাজার টাকা। যার বর্তমান বৈধ একটি মোটরসাইকেলের দাম ১ লাখ ৯০ থেকে ৯৫ হাজার টাকা। দরদাম ঠিক হওয়ার পর  থেকে ৫০ হাজার টাকা নগদ দিয়ে মোটরসাইকেলটি তারা নিয়ে যায়। বাকি ৪০ হাজার টাকা পরে দেয়ার করে। এদিকে তারা জানান, সাজের্ন্ট ও দারোগা সহ তার বেশ কয়েকজন সহকর্মী চোরাই মোটরসাইকেল আটক করে থানায় জমা না দিয়ে চোর সিন্ডিকেটের কাছে বিক্রি করে। এর আগেও টেকনাফ থানার দারোগার বিরুদ্ধে এ ধরনের একাধিক অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে টেকনাফ  থানার সার্জেন্ট ও কাস্টম কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, এসব অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। তিনি দাবি করেন, তিনি কখনও এ ধরনের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত নয়। তিনি কখনও কারোর কাছে কোন মোটরসাইকেল বিক্রয় করেননি। যদি কেউ এই ধরনের কোন তথ্য প্রচার করে তবে তিনি তা মিথ্যা বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, এটা তার বিরুদ্ধে একটি গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ।

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT