টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফে অস্বাভাবিক জোয়ারের পানিতে ভাসছে ৪০ গ্রাম

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৮ জুলাই, ২০১৩
  • ১০৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

Teknaf Pic (a) 28-05-2013 হেলাল উদ্দিন, টেকনাফ ॥ টেকনাফের উপকূলীয় বেড়িবাঁধের ভাঙ্গা অংশ দিয়ে পূর্ণিমা তিথি’র প্রভাবে সৃষ্ট অস্বাভাবিক জোয়ারের পানি প্রবেশ করে প্লাবিত হচ্ছে উপকূলীয় ৪০ গ্রাম ও চাষাবাদের জমি। চলতি বর্ষা মৌসুমে প্রবল বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে বন্ধি হাজার হাজার মানুষের দূর্ভোগ চরমে উঠেছে। গত কয়েক বছর ধরে উপকূলীয় বেড়িবাঁধের বিভিন্ন অংশ ক্রমে ভেঙ্গে লন্ডভন্ড হয়ে পড়ে। সংশিষ্ট কর্তৃপরে অপরিমাণদর্শী পরিকল্পনা ও চরম গাফিলতির কারণে টেকসই বাঁধ নির্মাণ না হওয়ায় এ নাজুক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় বলে স্থানীয় বাসিন্দারা দাবী করেন। উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখা যায়, বঙ্গোপসাগর ও নাফনদীর উপকূলবর্তী ৩২ কিলোমিটার উপকূলীয় বেড়িবাঁধের ভাঙ্গা অংশ দিয়ে প্রতিনিয়ত জোয়ারের পানি প্রবেশ করে বিভিন্ন জনবসতি এলাকা ও বিপুল চাষাবাদের জমি প্লাবিত হয়। গত কয়েকদিন ধরে টানা বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় পানিবন্ধি হয়ে পড়ে অনেক গ্রাম। বিশেষ করে ভয়াবহ বাঁধ ভাঙ্গার কারণে দেশের ভূ-খন্ড থেকে বিছিন্ন হয়ে পড়া শাহপরীরদ্বীপের ৪০ হাজার বাসিন্দা পানিবন্ধি হয়ে পড়ায় চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ মোজাহিদ উদ্দিন বলেন, খোলা বাঁধ দিয়ে অস্বাভাবিক জোয়ারের লবণাক্ত পানিতে ৩৫ গ্রাম প্লাবিত হওয়ার খবর পেয়ে সরেজমিনে এলাকাগুলো পরিদর্শন করে তিগ্রস্থদের ত্রাণসামগ্রী বরাদ্দ দেয়ার জন্য সংশিষ্ট মন্ত্রণালয়ে জরুরী  চিঠি পাঠানো হয়েছে। এদিকে বর্ষার শুরুতে চাষীদের তৈরী করা বীজতলা জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় মারাত্মক য়-তি হয়। প্রতিনিয়ত জোয়ারের পানি প্রবেশের কারণে বিভিন্ন এলাকার চাষীরা এখনো বীজতলা তৈরী করতে পারেনি। নদী ও সাগরের অস্বাভাবিক জোয়ারের পানিতে তলিয়ে যায় নিন্মাঞ্চলের বিপুল চাষাবাদের জমি। বর্তমানে ভাঙ্গা অংশ দিয়ে জোয়ারের পানি প্রবেশ মারাত্মক আকার ধারণ করায় উপজেলার প্রায় ১২ হাজার একর জমিতে আমন চাষ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও সচেতন মহলের লোকজন চাষাবাদ অনিশ্চিত হওয়ার বিষয়টি বাঁধের ভয়াবহ ভাঙ্গনকে দায়ী করে। সূত্র জানায়, পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৪াট ফোল্ডারের ৩২ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে বাঁধে ভয়াবহ ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়। বাঁধ মেরামত ও নির্মাণ না হওয়ায় চলতি পূর্ণিমা তিথি’র প্রভাবে সাগর-নদীর অস্বাভাবিক জোয়ারে টেকনাফে ৪০ গ্রাম পাবিত হয়েছে। বিধ্বস্ত বেড়িবাঁধ দিয়ে অবাধে জোয়ারের পানি প্রবেশ করায় গ্রামের বাসিন্দারা লবণাক্ত লোনা পানিবন্দী অবস্থায় গত তিনদিন ধরে দুর্ভোগের জীবন-যাপন করছে। উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীরদ্বীপের পশ্চিমপাড়া অংশের তিন কিলোমিটারের বেশির ভাগ এলাকায় বেড়িবাঁধ না থাকায় খোলা অংশ দিয়ে জোয়ারের লবণাক্ত পানি সহজেই ইউনিয়নের অভ্যন্তরে ঢুকে পড়ে স্থানীয় হারিয়াখালী, কচুবনিয়া, কাটাবনিয়া, লাফারঘোনা, ঘোলাপাড়া, ক্যা¤পপাড়া, মাঝরডেইল, জালিয়াপাড়া, মগপুরা, উত্তরপাড়া, ডাংগরপাড়া, পশ্চিমপাড়া, মাঝরপাড়া, দণিপাড়া এলাকা প্লাবিত হয়ে পড়েছে। অন্যদিকে সদর ইউনিয়ন ও পৌর এলাকার নাজির পাড়া, মৌলভীর পাড়া, দণি জালিয়া পাড়া, উত্তর জালিয়া পাড়া এবং হ্নীলা ও হোয়াইক্যং ইউনিয়নের দমদমিয়া, জাদিমোরা, মোচনী, লেদা, আলীখালী, চৌধুরী পাড়া, নাটমোরা পাড়া, ফুলের ডেইল, হোয়াব্রাং, খারাংখালী, ঝিমংখালী, নয়াপাড়া, কুতুবদিয়া পাড়া, লম্বাবিল, তুলাতলী, উলুবনিয়া ও কেরুনতলীসহ বিভিন্ন গ্রাম-মহলা ফসলি জমিসহ বেশির ভাগ এলাকা পাবিত হয়েছে। এতে ওই গ্রাম সমূহের স্কুল-মসজিদ,  দোকান-পাট, চিংড়ীঘেরসহ তিনশতাধিক বসতবাড়ি সাগরে বিলিন হওয়ার আশঙ্কা বিরাজ করছে। সাবরাং ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হামিদুর রহমান বলেন, অস্বাভাবিক জোয়ারে তাঁর ইউনিয়নের অধিকাংশ গ্রাম তিনদিন ধরে পাবিত হয়ে রয়েছে। বেশি উচ্চতায় জোয়ার আসায় রোজার মাসে মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।  জানতে চাইলে এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজের) কক্সবাজার কার্যালয় টেকনাফের উপ-সহকারি প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ জানান, বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে জোয়ারের পানি লোকালয়ে প্রবেশ করায় টেকনাফ-শাহপরীর দ্বীপ সড়ক বিচ্ছিন্ন হওয়ার পাশাপাশি একাধিক স্থানে সড়ক ভেঙ্গে গেছে। তাই পানি নেমে না যাওয়া পর্যন্ত মেরামত করা সম্ভব হচ্ছে না। পাউবো টেকনাফ অঞ্চলের উপ-সহকারি প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন জানান, বেড়িবাঁধের বিভিন্ন স্থানে নতুন নতুন ভাঙন সৃষ্টি হওয়ায় বঙ্গোপসাগর সংলগ্ন এলাকাগুলো পাবিত হচ্ছে। জরুরী ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডে একটি প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে। ############# হেলাল উদ্দিন, টেকনাফ ॥ মোবাইল নং-০১৮২৪-৩২১৬৩৫

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT