হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজারটেকনাফপরিবেশ

টেকনাফে অধিকাংশ জমিতে লবণ চাষ অনিশ্চিত..কৃষিকাজে ব্যাঘাত

আবদুল্লাহ মনির, টেকনাফ :টেকনাফ উপকূলের নাফ নদী ও বঙ্গোপসাগরের তীরে বেড়িবাঁধ’র ভাঙ্গন মেরামত না হওয়ায় জোয়ার-ভাটায় প্লাবিত হয়ে প্রায় ৭ বছর ধরে ২ হাজার একর জমিতে লবণ উৎপাদন হচ্ছে না। চলতি মৌসুমে আরো অধিকাংশ জমিতে লবণ চাষ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। উপজেলার উপক’লীয় এলাকার অধিকাংশ বেড়িবাধ মেরামত না হওয়ায় গত ৭ বছরের ন্যায় আসন্ন লবণ মৌসুমেও চাষাবাদ নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন চাষিরা।
সূত্রে জানা যায়, টেকনাফ উপজেলায় প্রায় সাড়ে ৫ হাজার একর লবণ চাষের জমি রয়েছে। প্রতি বছর এসব লবণের মাঠ থেকে কোটি কোটি টাকার লবণ উৎপাদন করতো চাষিরা। কিন্তু নাফনদীর বেড়িবাধ ভেঙ্গে নিলা, টেকনাফ পৌরসভা, সদর ইউনিয়ন ও সাবরাং শাহপরীরদ্বীপে লবণের মাঠগুলো জোয়ারের পানিতে ডুবে থাকায় প্রায় ৭ বছর ধরে অধিকাংশ লবণের মাঠে লবণ উৎপাদন সম্ভব হয়ে উঠেনি।
এছাড়া বেড়িবাঁধ ভাঙনের ফলে টেকনাফ পৌর এলাকা, সদর, হ্নীলা ও সাবরাং ইউনিয়নে লবণের পাশাপাশি ধান, তরমুজ, মরিচ, পানবরজ বিভিন্ন কৃষিকাজে ব্যাঘাত ঘটছে।
লবণ চাষী ছৈয়দ আলম জানান, প্রতিবছর প্রায় ২৭ একর জমিতে লবণের চাষ করা হতো। গত কয়েক বছর বেড়িবাঁধটি বেশি আকারে ভেঙ্গে যাওয়াতে বঙ্গোপসাগরের জোয়ারের পানি ঢুকে লবণের মাঠে জোয়ার-ভাটা চলেছে। যতদিন পর্যন্ত বেড়িবাধ নির্মাণ হবেনা ততদিন পর্যন্ত লবণ চাষ করা সম্ভব নয় বলে উল্লেখ করেন তিনি।
টেকনাফ পৌরএলাকার হাঙ্গারডেইল এলাকার আবদুল গফুর শরীফ জানান, দীর্ঘ ৭ বছর ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে জোয়ারের পানি ঢুকে পড়ায় চিংড়ি চাষ অনিশ্চয়তার পাশাপাশি চলতি লবণ মৌসুমেও চাষাবাদ করতে না পারায় আমারা কোটি টাকার ক্ষতির সম্মুখিন হবো।
টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুল ইসলাম জানান, বেড়িবাধ ভাঙ্গনের ফলে প্রতিনিয়ত জোয়ারের পানি ঢোকায় দেশের অন্যতম লবণ উৎপাদনকারী উপজেলা টেকনাফের লবণ চাষ উপযোগী জমিগুলো অধিকাংশ পানিতে ডুবে আছে। এ কারণে চলতি মৌসুমে ২ হাজার একর জমিতে লবণ চাষ অনিশ্চয়তার পাশাপাশি চাষীরা কোটি কোটি টাকার ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছে। তাই জরুরি ভিত্তিতে ভাঙা বাঁধ মেরামতের জন্য জেলা উন্নয়ন কমিটির সভায় বিষয়টি তুলে ধরা হবে তিনি জানান।

১ Comment

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.