টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

টেকনাফের লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মালয়েশিয়ার দালালরা বসিয়েছে বিচারের নাম অবিচারের মহা ফাঁদ!

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১১০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

জসিম উদ্দিন টিপু, টেকনাফ:::::টেকনাফের লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মালয়েশিয়ার দালালের বিরুদ্ধে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশের পর এবার তারা আরো বেশী বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। এতে করে বিভিন্ন দেশের কারাগারে থাকা মানুষের পরিবারের নিরব আহাজারীর ¯্রােত কেবল বাড়ছে। স্বজন সন্ধানহীন এসব পরিবারেরা চোখের জলের ¯্রােতে ভেসে গেলেও কাউকে কিছু বলার সাহস তো পাচ্ছে না। এখানে কেউ কারো কথা রাখে না। যে যার মত করে নেয় ধান্দা। মালায়েশিয়ার দালাল সিন্ডিকেট এখানে বসিয়েছে বিচারের নামে প্রহসনের আস্তানা। তারা নিজেদের ইচ্ছামত লোকজনের উপর বিচার চাপিয়ে দিচ্ছে। হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা। জ্ঞানী-গুনীর চির সত্য সেই “অলস মস্তিষ্ক শয়তানের কারখানা” এই কথার বাস্তবতার সাথে তাল মিলিয়ে এখনাকার ধূর্ত মানুষেরা ক্যাম্প নানান অপকর্মে লিপ্ত থেকে জীবন-জীবিকা আহরণ করছে। সত্যকে পদদলিত করে হরদম এখানকার লিডার তথা দালালরা যা ইচ্ছা তাই করে বেড়াচ্ছে। দেশের প্রচলিত আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে নিজেরা দিনকে রাত আর রাতকে দিনে রুপান্তর করে বেড়াচ্ছে। রোহিঙ্গা জঙ্গি নেতা মলই নামধারী হাফেজ আইয়ুব এখন মনের জাগতিক সব স্বপ্নকে হাতের মুঠোয় করে অপকর্মই তার আসল কর্ম। তার বিরুদ্ধে কেউ কোন ধরণের মুখ খুলতে পারে না। কারণ সে প্রতিনিয়ত সাধারণ মানুষকে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার ভয় দেখায়। এ জঙ্গি নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগের অন্ত নেই। তারপরও যাবতীয় কু-কর্মের অনুঘটক হিসেবে এখানে তার জুড়ি নেই। পত্রিকায় ধারাবাহিক সংবাদ প্রকাশের পর থেকে এখানকার মানুষ বহিরাগতদের সাথে কথা বলা নিষিদ্ধ রয়েছে। এখানকার কেউ আইন প্রয়োগকারী ও গোয়েন্দা সংস্থার সাথে কথা বলতে পারেনা। যারা মিডিয়া কর্মীদের সাথে কথা বলবে তাদেরকে বেধে শায়েস্তা করা হবে। পাশাপাশি যে সব সত্যানুসন্ধানী মিডিয়া কর্মী তাদের মুখোশ উন্মোচন করছে তাদেরকে তথ্য সন্ত্রাসের ফাঁদে ফেলতে আইয়ুব গং মরিয়া হয়েছে বলে বিশ্বস্থ সুত্র নিশ্চিত করেছে। জঙ্গি নেতা আইয়ুবের নেতৃত্বে সিন্ডিকেটটি সত্য পদদলিত করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে গোয়েন্দা সংস্থার এক সদস্য বলেন, জঙ্গি নেতা আইয়ুব দেশ বিরোধী অনেক কর্মকান্ডে লিপ্ত রয়েছে। সে টেকনাফের রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের মূল পরিকল্পনাকারী। তার নেতৃত্বে বিশাল সিন্ডিকেট রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশের ভূ-খন্ডে প্রবেশ করতে কাজ করে যাচ্ছে। মানব পাচার, ইয়াবা, জঙ্গি কানেকশন সহ নানান অভিযোগের পরও কেন সে গ্রেপ্তার হচ্ছে না তা রীতিমত ভাবিয়ে তুলছে। টেকনাফের সচেতন মহল জরুরী ভিত্তিতে সাড়াশি অভিযানের মাধ্যমে রোহিঙ্গা টালের চেয়ারম্যান খ্যাত মলই আইয়ুব তথা দালাল সিন্ডিকেটকে গ্রেপ্তার করে হ্নীলার অপকর্মের দ্বার বন্ধ করতে । হ্নীলার ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মীর কাশেমের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্প কেন্দ্রীক দালাল চক্রের মূল হোতা জঙ্গি নেতা হাফেজ আইয়ুবের নেতৃত্বে মালয়েশিয়া মানবপাচার সিন্ডিকেট সদস্যদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। পাশাপাশি তিনি মানব পাচার রোধে এলাকার সর্বস্তরের সকলকে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে সর্বাত্মক সহযোগীতায় এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন।এ ব্যাপারে টেকনাফ থানার ওসি ফরহাদের কাছে জানাতে চাইলে তিনি জানান, ক্যাম্প কেন্দ্রীক মালয়েশিয়ার মানব পাচার ও নানান অপকর্মের কথা শুনেছি, একাজে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশী তৎপরতার কথা এ প্রতিবেদককে জানান। (চলবে) ##############

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT