হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

টেকনাফপরিবেশ

টেকনাফের উপকূলে নির্বিচারে কেওড়া গাছ উজাড় ..সৃজিত চারাবন মহিষের চরণ ভুমি

রমজান উদ্দিন পটল…indexটেকনাফের উপকুলীয় এলাকায়  নির্বিচারে উজাড় হচ্ছে কেওড়া গাছ। রাতের আধারে বনের কেওড়া গাছ কর্তন করে ভুমি জবর দখলে মেতে উঠে প্রভাবশালীরা। বনের গাছ নিধন অব্যাহত থাকায় বিস্তীর্ন নাফ নদীর চরের বিশাল বনভুমি প্রায় গাছ শুন্য হয়ে পড়ছে। বেদখল হচ্ছে বিশাল বনভুমি। উপকুলে বন নিধনের চিত্র এতযে ভয়াবহ, যা সচেতন মহলকে অবাক করে দেবে। ভুমি জবর দখলকারী অসাধু ব্ক্তিরা বনের বড় বড় কেওড়া নিধনের পাশাপাশি চরের শত শত চারাগাছ কর্তন করে চর জবর দখলে নেয় বলে অভিযোগ উঠেছে। শুধু তা নয়- উপকুলীয় সরকারী ভুমি দখলে নিয়ে নির্মিত চিংড়িঘেরে নেয়া বাড়ীর পালিত মহিষ পরিকল্পিতভাবে চরণে দিয়ে ধ্বংস করছে চরের সৃজিত বনায়ন। বন কর্তনের দায়ে বিগত বিভিন্ন সময় ভুমিগ্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের করে বনবিভাগ। এসব মামলা হতে প্রকৃত বন উজারকারী অনেকে কৌশলে রক্ষা পায় বলেও অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় সুত্রে জানাযায়- উপজেলার হোয়াইক্যংয়ের ঝিমংখালী এলাকায় অবস্থিত বিশাল ম্যানগ্রুভ বনের শতশত কেওড়া কর্তন করে অসাধু ভুমিগ্রাসীরা। এছাড়া পার্শবর্তী চরে সৃজিত বন নিধন করে কানজর পাড়া বহুমুখী মৎসজীবি সমিতি নাম দিয়ে চিংড়িঘের নির্মান করে ভুমিগ্রাসীরা। বনভুমি লীজের অযুহাত দেখিয়ে বিশাল প্যারাবন ধ্বংস করে সমিতি প্যারা নাম দিয়ে ভুমি জবর দখলের অভিযোগ উঠে। এছাড়া মিনাবাজার এলাকার জনৈক উসমান তার ঘের পাশবর্তী বিশাল বনের কেওড়া বন সাবাড় করে বাঁধ নির্মানের পায়তারা চালায় । অবৈধভাবে বনের গাছ কর্তনের দায়ে বনবিভাগ ইতিপুর্বে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। এর পরও থেমে নেয় তার অশুভ কর্মকান্ড। চরে সৃজিত বনে ঝাকে ঝাকে মহিষ নামিয়ে দিয়ে পরিকল্পিতভাবে বন ধ্বংস করে বলে সুত্র জানায়। উপরোক্ত বিষয়ে জানতে চাইলে টেকনাফের নীলা উপকূলীয় বিট কমকর্তা আব্দুল আওয়াল জানান- যখনই গাছ কাটা হয় তখনই মামলা রুজু করা হয়েছে। মধ্যম নীলা উপকুলে গাছ কাটার দায়ে প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে ১৩টি মামলা দায়ে করা হয়েছে। এছাড়া বনে মহিষদ্বারা চারাগাছ ধ্বংস করার বিষয়ে তিনি বলেন-বনে মহিষ পেলে আটক করা হবে এবং মালিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবে বনবিভাগ। ##########