টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

জোয়ারে টেকনাফের ১৪ গ্রাম প্ল­াবিত

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২৬ জুলাই, ২০১৩
  • ৩৫৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

TEKNAF-PIC-24-07-13-টেকনাফ প্রতিনিধি ::::পূর্ণিমার অস্বাভাবিক জোয়ারে টেকনাফে সাবরাং ইউনিয়নের ১৪ গ্রাম প্ল­াবিত হয়েছে। খোলা বেড়ি বাঁধ দিয়ে জোয়ারের পানি প্রবেশ করে গ্রামের বাসিন্দারা লবণাক্ত লোনা পানিবন্দী অবস্থায় গত তিনদিন ধরে দুর্ভোগের জীবন-যাপন করছে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, সোমবার ভোর থেকে বঙ্গোপসাগরে অস্বাভাবিক জোয়ার শুরু হয়। যার উচ্চতা স্বাভাবিকের চেয়ে তিন-চার ফুট বেশি। উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপের পশ্চিমপাড়া অংশের তিন কিলোমিটারের বেশির ভাগ এলাকায় বেড়িবাঁধ না থাকায় খোলা অংশ দিয়ে জোয়ারের লবণাক্ত পানি সহজেই ইউনিয়নের অভ্যন্তরে ঢুকে পড়ে। এতে ইউনিয়নের ফসলি জমিসহ বেশির ভাগ এলাকা প্ল­াবিত হয়েছে। যার মধ্যে ১৪গ্রামের অবস্থা খুবই মারাত্মক অবস্থা ধারণ করছে। গ্রামগুলো হলো হারিয়াখালী, কচুবনিয়া, কাটাবনিয়া, লাফাঘোনা, ঘোলাপাড়া, ক্যাম্পপাড়া, মাঝরডেইল, জালিয়াপাড়া, মগপুরা, উত্তরপাড়া, ডাংগরপাড়া, পশ্চিমপাড়া, মাঝরপাড়া, দক্ষিণপাড়া এলাকা প্ল­াবিত হচ্ছে। এতে করে গ্রামের মসজিদ-মাদ্রাসা,দোকান-পাট,মাছের আড়ৎ,গাছ-পালাসহ তিনশতাধিক বসতবাড়ি সাগরে বিলিন হওয়ার অপেক্ষার প্রহর শুনছে। এসব গ্রামের বেশির ভাগ গ্রামীণ সড়ক ও বাড়িঘর এখন জোয়ারের লবণাক্ত পানিতে নিমজ্জিত।
স্থানীয় এলাকাবাসিরা জানান, ‘বেড়িবাঁধ না থাকায় লবণাক্ত জোয়ারের পানি একটু বাড়লেই ঘরবাড়িতে পানি ওঠে। বর্তমানে অধিকাংশ বাড়িতে রান্না করে খাওয়ার অবস্থাও নেই। এতে করে আমাদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। এলাকায় কোন আশ্রয় কেন্দ্র না থাকায় এখন আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছি।’
তাঁরা আরও জানান, ‘সাগরের ঢেউ এসে এখন বাড়িতে আঘাত করায় আতঙ্কে জীবন-যাপন করছি। চলতি মাসে চোখের সামনে শতাধিক পবিবার ঘরবাড়ি হারিয়ে অন্যত্রে চলে গেছে। খোলা বাধ মেরামত না হওয়াই এখন কি আমাদেরও চলে যেতে হবে ?’
আব্দুল হামিদ ও নুরুল আলম বলেন, গত তিনদিন ধরে জোয়ারের পানিতে রাস্তা ডুবে যেতে দেখি। তখন থেকে আমাদের মাছ ধরার তিনটি নৌকা নিয়ে আসি। আজ হঠাৎ করে জোয়ারের পানি আগের চেয়ে ২-৩ফুট বেড়ে গিয়ে রাস্তা ভেঙ্গে যায়। তখন শ্রমিক দিয়ে জনপ্রতি ১০টাকা করে নিয়ে লোকজন পারাপার করে সেবা দিয়ে যাচ্ছি।
শাহপরীর দ্বীপ উত্তরপাড়া গ্রামের গৃহবধূ সখিনা বেগম হতাশ হয়ে বলেন, “স্বামী বিদেশ থাকার কারণে রমজানের বাজার করার জন্য  সকালে টেকনাফ বাজারে গিয়েছিলাম। বাজার করে ফেরার সময় দেখি রাস্তা ডুবে শাহপরীর দ্বীপ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। লোকজন নৌকায় পারাপার করছে। আমার জীবনে এই প্রথম নৌকায় উঠতে গিয়ে ভয় পেয়েছি। কিন্তু জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাড়িতে ছেলে-মেয়ে রেখে আসার কারণে বাধ্য হয়ে বাড়িতে ফিরছি।
মিস্ত্রিপাড়ার বাসিন্দা নুরুল ইসলাম বলেন, সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় অসুস্থ মাকে হাসপাতাল নিতে পারছি না। জোয়ারের পানি কমে গেলে হাসপাতালে নিয়ে যাব বলে অপেক্ষা করছি।
সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান মো ইসমাঈল বলেন, স্থানীয় এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউএনও সহ সরকারি কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে গেলেও এখনও বাধ মেরামত না হওয়ায় এলাকাবাসীকে জোয়ারের পানির কারণে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
জানতে চাইলে এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজের) কক্সবাজার কার্যালয় টেকনাফের উপ সহকারি প্রকৌশলী মো আব্দুর রশিদ বলেন, বেড়িবাধ ভেঙ্গে জোয়ারের পানি লোকালয়ে প্রবেশ করায় টেকনাফ-শাহপরীর দ্বীপ সড়ক বিচ্ছিন্ন হওয়ার পাশাপাশি একাধিক স্থানে সড়ক ভেঙ্গে গেছে তাই পানি নেমে না যাওয়া পর্যন্ত মেরামত করা সম্ভব হচ্ছে না।
পাউবো টেকনাফ অঞ্চলের উপ-সহকারি প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন বলেন, বেড়িবাঁধের বিভিন্ন স্থানে নতুন নতুন ভাঙন সৃষ্টি হওয়ায় বঙ্গোপসাগর সংলগ্ন এলাকাগুলো প্ল­াবিত হচ্ছে। জরুরী ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডে একটি প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে।
সাবরাং ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হামিদুর রহমান বলেন, অস্বাভাবিক জোয়ারে তাঁর ইউনিয়নের অধিকাংশ গ্রাম তিনদিন ধরে প্ল­াবিত হয়ে রয়েছে। বেশি উচ্চতায় জোয়ার আসায় রোজার মাসে মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তার ইউনিয়নের ১৪গ্রামের অধিকাংশ বাড়িতে চুলায় আগুন দেওয়াও সম্ভব হচ্ছে না। এতে করে প্রায় ৪০ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে আছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ মোজাহিদ উদ্দিন বলেন, খোলা বাঁধ দিয়ে অস্বাভাবিক জোয়ারের লবণাক্ত পানিতে ১৪গ্রাম প্ল­াবিত হওয়ার খবর পেয়ে সরেজমিনে এলাকাগুলো পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থদের ত্রাণসামগ্রী বরাদ্দ দেওয়ার জন্য সংশ্লি­ষ্ট মন্ত্রণালয়ে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। – See more at: http://www.dainikcoxsbazar.net/?p=3041#sthash.pT5qHfWe.dpuf

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT