টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

জামায়াতের চার সহস্রাধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ১৭ মামলা

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ৭ নভেম্বর, ২০১২
  • ২০৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক…রাজধানীসহ সারাদেশে জামায়াত শিবিরের হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও পুলিশের অস্ত্র ছিনিয়ে নিয়ে মারধর করার ঘটনায় ১৭টি মামলা হয়েছে। আসামি করা হয়েছে জামায়াত শিবিরের ৪ সহস্রাধিক নেতাকর্মীকে। গ্রেফতার করা হয়েছে জামায়াত শিবিরের ৩শ জনকে। জামায়াত শিবিরের হঠাত্ হামলা ও চোরাগুপ্তা ঘটনা প্রতিরোধে পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রশাসনের শীর্ষ পর্যায় থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। পুলিশের উপর হামলার অর্থই রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে হামলা। এ ধরনের হামলাকারীদের কোন অবস্থায় ছাড় দেয়া হবে না বলে পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তারা জানান। গোয়েন্দা সংস্থাগুলো জামায়াত শিবিরের হঠাত্ সংঘবদ্ধভাবে হামলা সম্পর্কে চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে আসছে। কোন কোন গোয়েন্দা কর্মকর্তার আচরণ ও তত্পরতা রহস্যজনক। এসব বিষয় নজর রাখা হচ্ছে বলে শীর্ষ কর্মকর্তা জানান।

গত মঙ্গলবার রাত থেকে ১২ ঘণ্টার মধ্যে উক্ত মামলাগুলো দায়ের করা হয়েছে। এরমধ্যে রাজধানীর রমনা থানায় দুইটি মামলা দায়ের করা হয়। এসআই আলতাফ হোসেন দ্রুত বিচার আইনে ৩৫ জন জামায়াত শিবির নেতাকর্মীকে আসামি করে মামলা করেছেন। অপর মামলাটি একই থানার এসআই শফিউল আজম করেন। মামলার আসামিরা একই হামলার সময় ৬১ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া রামপুরা থানায় এসআই আব্দুল হক দেড় শতাধিক জামায়াত শিবির নেতাকর্মীকে আসামি করে মামলা করেছেন। গ্রেফতার করা হয়েছে নয় জনকে। রমনা ও রামপুরা থানায় গ্রেফতারকৃতদের মধ্য থেকে ৪৪ জনকে গতকাল জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন দিনের রিমান্ডে আনা হয়।

মহানগর পুলিশ কমিশনার বেনজীর আহমেদ বলেন, নাগরিকদের জানমাল রক্ষা ও নিরাপত্তায় যে কোন ধরনের নাশকতা কঠোর হস্তে দমন করা হবে। পুলিশের ওপর হামলাকারী যেই হোক কোন অবস্থায় ছাড় দেয়া হবে না। তাদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

এছাড়া রংপুরে চারটি মামলা ও গ্রেফতার করা হয়েছে ৩৬ জনকে, রাজশাহীতে দুইটি মামলা ও গ্রেফতার করা হয়েছে ১৬ জনকে, বরিশালে একটি মামলা ও গ্রেফতার করা হয়েছে ১৫ জনকে, নোয়াখালীতে দুইটি মামলা ও গ্রেফতার করা হয়েছে ৪৫ জনকে, ফেনীতে একটি মামলা ও গ্রেফতার করা হয়েছে ৪৩ জনকে, সিলেটে তিনটি মামলা ও গ্রেফতার করা হয়েছে ৫২ জনকে, ঝিনাইদহে জামায়াতের ৪৫০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে একটি মামলা ও চট্টগ্রামে গ্রেফতার করা হয়েছে ১৫ জনকে।

না’গঞ্জে জামায়াত নেতা গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে নারায়ণগঞ্জ মহানগরের ১৩নং ওয়ার্ড জামায়াতে ইসলামীর সহ-সভাপতি নজরুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে মাসদাইর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) আব্দুল মতিন জানান, ৮/১০ দিন আগে পুলিশের উপর হামলা, ভাঙচুরের ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় দায়ের করা মামলায় জামায়াত নেতা নজরুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নজরুলকে আদালতে পাঠানো হলে আদালত তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে।

রংপুরে আরো ৩৬ জন গ্রেফতার

রংপুর প্রতিনিধি জানান, কোতয়ালী থানার ওসি আলতাফ হোসেনসহ পুলিশ সদস্যদের উপর হামলা, গুরুতর জখম, সরকারি যানবাহন ভাঙচুর, ক্ষতিসাধন, সরকারি কাজে বাধাদানসহ বিভিন্ন অভিযোগে পুলিশ জামায়াত-শিবিরের ১২ থেকে ১৫ জনের নাম উল্লেখসহ অরো অজ্ঞাতনামা ২ থেকে ৫’শ জনের নামে কোতয়ালী থানায় পৃথক ৪টি মামলা করেছে। কোতয়ালী থানার এসআই রফিকুল ইসলাম বাদি হয়ে দ্রুত বিচার আইনে ১টি, এএসআই রেজাউল ইসলাম ও এসআই আমিনুল ইসলাম পুলিশের উপর হামলা, গুরুতর জখম, ভাঙচুর ও ক্ষতিসাধনের অভিযোগে পৃথক ২টি এবং এএসআই মনোয়ার হোসেন বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে ১টি মামলা দায়ের করেন। এদিকে গত মঙ্গলবার সারারাত ধরে পুলিশী অভিযান চালিয়ে আরো ৩৬ জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর আগে মঙ্গলবারের ঘটনায় ঘটনাস্থল থেকে ১২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট পাঠানো পর্যন্ত গোটা জেলায় জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের ধরপাকড় অভিযান অব্যাহত ছিল। এ সময় আরও কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এদিকে জামায়াত-শিবিরের নৈরাজ্য ও ভাংচুরের প্রতিবাদে গতকাল বিকালে রংপুর জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। পরে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ধনজিত্ ঘোষ তাপসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, সাধারণ সম্পাদক ফকরুল হাসান লিউ, সজিবুর রহমান প্রামানিক, মাহমুদুল হাসান বিপ্লব। অপরদিকে বিএনপি’র জেলা কমিটির আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর হোসেনের নেতৃত্বে জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ গতকাল সকালে শাপলা চত্বর এলাকায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত জেলা জামায়াত অফিস পরিদর্শন করেন।

দুই মামলায় আসামি চারশ

রাজশাহী অফিস জানায়, রাজশাহীতে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় ৪শ’ জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে পুলিশ পৃথক দুইটি মামলা করেছে। উভয় মামলায় বুধবার সকাল পর্যন্ত জামায়াত-শিবিরের ১৬ নেতাকর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন বলেন, মঙ্গলবার বিকালে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের হামলায় পুলিশের সদস্যদের জখম হওয়া এবং গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় উপ-পরিদর্শক (এস.আই) নজরুল ইসলাম এবং এস.আই শহিদুল ইসলাম মামলা দুইটি করেন। উভয় মামলায় ২৫ জনের নামোল্লেখ ও অজ্ঞাত ৪শ’ জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে। মঙ্গলবার সংঘর্ষের সময় ১৪ জন এবং রাতে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার ২ জনসহ ১৬ জনকে উভয় মামলায় জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার রাজশাহীতে পুলিশের উপর একযোগে হামলা, ককটেলের বিস্ফোরণ, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও রাইফেল কেড়ে মারপিটে জড়িতদের অধিকাংশই ছিল নতুন মুখ। জেলা ও মহানগর জামায়াত-শিবিরের উপস্থিতি ছিল নগণ্য। তাদের পরিকল্পিত ও সংঘটিত হামলায় পুলিশ ছিল অসহায়। হামলাকারীরা ব্যাগে করে ইট, লোহার রড-পাইপ, আগ্নেয়াস্ত্র বহন করে। জামায়াত-শিবির কর্মীরা পুলিশ কনস্টেবল মোশাররফ ও সাইফুলের আগ্নেয়াস্ত্র কেড়ে নিয়ে তা দিয়েই উভয়ের উপর হামলা চালায়। এসময় সাহেব বাজার বড় মসজিদের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা শতাধিক পুলিশ তাদের উদ্ধার করতে গেলে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।

সিলেটে তিন মামলায় আসামি ৮শ

সিলেট অফিস জানান, সিলেটে পুলিশের উপর জামায়াতের হামলার ঘটনায় সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের (এসএমপির) ৩ থানায় জামায়াত-শিবিরের ৮শ’ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে তিনটি মামলা হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে ৫২ জনকে।

এদিকে পুলিশের উপর হামলা ও নগরীতে ভাংচুরের ঘটনায় চিহ্নিত জামাত-শিবির সন্ত্রাসীদের ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ। গতকাল বুধবার সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিত্সাধীন আহত এসএমপির এসি নওরেশ চাকমা, কতোয়ালি থানার ওসি আতাউর রহমান, এসআই আশরাফসহ পুলিশ সদস্যদের দেখতে গিয়ে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ এ দাবি জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুজ জহির চৌধুরী সুফিয়ান, সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী এমপি, যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান প্রমুখ।

চট্টগ্রামে শিবির কর্মী

সন্দেহে আটক ১৫

চট্টগ্রাম অফিস জানায়, চট্টগ্রামে জামায়াত-শিবিরের বিরুদ্ধে চিরুনি অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে পুলিশ শিবিরের কর্মী সন্দেহে ১৫ জনকে আটক করেছে। মঙ্গলবার রাতভর কোতয়ালী থানা পুলিশ নগরীর জামায়াত-শিবির নিয়ন্ত্রিত এলাকা হিসেবে পরিচিত দেওয়ানবাজার, চন্দনপুরা ও চট্টগ্রাম কলেজের আশপাশের এলাকায় অভিযান চালায়। ভোরে চট্টগ্রাম কলেজের সামনে থেকে ৯ জনকে আটক করে পুলিশ।

কোতয়ালী থানার ওসি একেএম মহিউদ্দিন সেলিম বলেন, আটককৃতদের আমরা জিজ্ঞাসাবাদ করছি। আটক কয়েকজন এবং তাদের অভিভাবকরা থানায় এসে জানিয়েছে, তারা ভর্তি পরীক্ষা দিতে এসেছে। আমরা তাদের দেয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করে দেখছি। এদিকে নগরীর পাঁচলাইশ থানা পুলিশ রাতভর নগরীর চকবাজার, বাদুরতলা, কাতালগঞ্জ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের আশপাশের এলাকায় অভিযান চালায়। রাতে চকবাজার এলাকা থেকে পাঁচ শিবির কর্মীকে আটক করা হয়েছে। ডবলমুরিং থানা পুলিশ রাতে চিরুনি অভিযানের সময় শিবিরের এক সাথীকে আটক করেছে। পুলিশ জানায়, সোমবার থেকে গত দু’দিন ধরে চট্টগ্রাম নগরী, বোয়ালখালী এবং সাতকানিয়ায় জামায়াত-শিবির যে তান্ডব চালিয়েছে তাতে দেখা গেছে, মাদ্রাসা কিংবা স্কুল-কলেজের অল্প বয়সী ছাত্রদের ব্যবহার করেছে তারা।

বরিশালে শিবিরের দেড়শ’ কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

বরিশাল অফিস জানায়, পুলিশের সাথে ছাত্র শিবিরের সংঘর্ষের ঘটনায় দেড় শতাধিক নেতা-কর্মীকে আসামি করে থানায় মামলা করা হয়েছে। কোতয়ালি মডেল থানার এস.আই ফয়সাল আহম্মেদ গতকাল বুধবার এ মামলা করেন। মঙ্গলবার নগরীতে ছাত্র শিবিরের নেতা-কর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করে নগরীর গীর্জা মহল্লায় পৌঁছালে পুলিশের সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সে সময় পুলিশ ও র্যাব ঘটনাস্থল থেকে পাঁচজনকে আটক করে। পরে এ ঘটনার জের ধরে গতকাল বুধবার নগরীতে সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে শিবিরের আরো ১০ কর্মীকে আটক করা হয়। গ্রেফতারকৃত ১৫ জনকেই পুলিশের মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে জামায়াত শিবিরের নৈরাজ্যের প্রতিবাদে গতকাল বুধবার বিকালে ছাত্রলীগ নগরীতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

শেরপুরে তিন জামায়াত নেতা জেলহাজতে

শেরপুর প্রতিনিধি জানান, গত তিন দিনে পুলিশ শেরপুরে জেলা জামায়াতে ইসলামীর ৪ নেতাকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে জেলা জামায়াতের আমীর ডা. মো. শাহাদাত হোসাইন, নকলা পৌর জামায়াতের সেক্রেটারি মাহমুদল হাসান, নালিতাবাড়ি উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি আফছার উদ্দিন ও নালিতাবাড়ি পৌর জামায়াতের সেক্রেটারি মো. খায়রুল ইসলাম। এদের মধ্যে তিনজনকে একদিনের রিমান্ড শেষে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

অপরদিকে বুধবার নকলা পৌর জামায়াতের সেক্রেটারি মাহমুদল হাসানকে পুলিশ শেরপুরের মুখ্য বিচারিক হাকিম মো. সেলিম মিয়ার আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করলে বিজ্ঞ বিচারক ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

নোয়াখালীতে দুই মামলায়

আসামি ৫৯৬

নোয়াখালী প্রতিনিধি জানান, জেলা শহর মাইজদীতে মঙ্গলবার পুলিশের উপর হামলা ও ৬ পুলিশ সদস্যকে মারধর এবং যানবাহন ভাংচুরের ঘটনায় জেলা জামায়াতের আমিরসহ ৫৯৬ জনের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করে পুলিশ। ঘটনার দিন রাতে সুধারাম থানার দারোগা হাবিবুর রহমান যানবাহন ভাংচুরের ঘটনায় দ্রুত বিচার আইনে ও পুলিশের উপর হামলা এবং মারধরের ঘটনায় দুটি মামলা করেন। মামলায় দুটিতে জেলা জামায়াতের আমির মাওলানা আবদুল মোনায়েম ও শহর নায়েবে আমির মাওলানা রুহুল আমিনকে প্রধান আসামি করে ৪৬ জনকে এজহারভুক্ত ও অজ্ঞাত আরো ৫৫০ জন জামায়াত ও ছাত্রশিবির নেতা-কর্মীকে আসামি করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশের উপর হামলার ঘটনার পর ১৬ জনকে এবং রাতে আরো ১০ জনকে গ্রেফতার করে। তাদেরকে উল্লেখিত দুটি মামলার আসামি করা হয়। এর অগের দিন সোমবার পুলিশকে মারধরের ঘটনায় একই দলের আরো ১৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের গত দুই দিনে আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালত জামিন না-মঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠিয়ে দেয়।

পীরগাছায় ৩ জামায়াত কর্মী আটক

পীরাগাছা (রংপুর) সংবাদদাতা জানান, পীরগাছায় গত মঙ্গলবার রাতে রংপুরের কোতয়ালী থানা ও পীরগাছা থানা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে ৩ জামায়াত কর্মীকে আটক করেছে।

গত মঙ্গলবার রংপুরে পুলিশ ও জামায়াত কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার মামলায় গতকাল বুধবার তাদের গ্রেফতার দেখিয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

ফরিদগঞ্জে জামায়াতের সাত জন আটক

ফরিদগঞ্জ (চাঁদপুর) সংবাদদাতা জানান, গতকাল বুধবার উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে জামায়াতে ইসলামীর সাত নেতা-কর্মীকে আটক করেছে থানা পুলিশ। আটককৃতরা হলো- উপজেলার মানিকরাজ এলাকার জামায়াত নেতা ছৈয়দ আহাম্মদ, কড়ৈতলী এলাকার নূরুল ইসলাম, বাটেরহ্রদ এলাকার নূর হোসেন মোল্লা, গজারিয়া এলাকার জসিমউদ্দিন, চর মঘুয়া এলাকার ছাদেক আহাম্মদ দক্ষিণ বিশ কাটালি এলাকার মেহেদী হাসান শুক্কর, লড়াইর চর এলাকার মো. আনোয়ার হোসেন। আটককৃতদের চাঁদপুর কোর্টে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। পুলিশ সূত্র জানায় , নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডের আশংকায় এদের আটক করেছে।

দিনাজপুরে জামায়াত ছয় জন আটক

দিনাজপুর রিপোর্টার জানান, দিনাজপুরে জামায়াত পুলিশ সংঘর্ষের ঘটনায় দ্রুত বিচার আইনে দায়ের করা মামলায় এজাহারভুক্ত ৬ জামায়াত-শিবির কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত মঙ্গলবার রাতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

দিনাজপুর কোতয়ালী থানার এসআই মামুন জানান, এহাজারভুক্ত আসামিদের ধরার জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে।

ফেনীতে মামলায় ৭০০ জামায়াত কর্মী আসামি

পরশুরাম সংবাদদাতা জানান, ফেনীর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে আত্মসমর্পণকারী জামায়াত শিবিরের ১৩ নেতাকে জামিন না-মঞ্জুর করে বুধবার জেল হাজতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট খায়রুল আমিনের কোর্টে তাদের জামিন আবেদন করা হয়েছিল। এরা হচ্ছেন জামায়াতের সদর উপজেলা আমীর মাওলানা আবদুল ওহাব ভূঞা, শহর জামায়াতে নায়েবে আমীর মাওলানা কেফায়েত উল্লাহ, ছাত্র শিবির জেলা সভাপতি তারেক মাহমুদ ও জেলা সেক্রেটারি মাঈনুল ইসলাম আজাদ, শিবিরের শহর সভাপতি মো. জামাল উদ্দিন, শিবিরের সাবেক জেলা সেক্রেটারি মোশাররফ হোসেন ও আমির হোসেনসহ মোট ১৩ জন। গত সোমবার শহরে জামায়াতের মিছিলকে কেন্দ  করে পুলিশের দায়ের করা মামলায় উক্ত আত্মসমর্পণকারী নেতৃবৃন্দকে আসামি করা হয়েছিল। উক্ত মামলায় জামায়াত শিবিরের ৭০০ জনকে আসামি করে ৪৬ জনের নাম উল্লেখ করা হয়।

ছাগলনাইয়ায় তিনজন গ্রেফতার

ছাগলনাইয়া (ফেনী) সংবাদদাতা জানান, ছাগলনাইয়া থানার পুলিশ গত মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে জামায়াতকর্মী মাস্টার মো. ফারুকসহ ৩ জনকে আটক করেছে।

ঝিনাইদহে জামায়াতের

সাড়ে চারশ কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি জানান, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে মঙ্গলবার পুলিশের উপর জামায়াত-শিবিরের হামলা, সরকারি কাজে বাধা ও জনগণের মাঝে ত্রাস সৃষ্টির অভিযোগে ৩৩ জনের নাম উল্লেখসহ ৪৫০ জন জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। কালীগঞ্জ থানার এএসআই হুমায়ন কবির দ্রুত বিচার আইনে মামলাটি করেন।

কালীগঞ্জ থানার ওসি সৈয়দ কামরুজ্জামান জানান, বুধবার দুপুরে কোটচাদপুর উপজেলা থেকে ৫ এজাহারভুক্ত জামায়াত ও শিবিরকর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো:তরিকুল ইসলাম, রেজাউল ইসলাম, নূরুল হুদা, মিজানুর রহমান, আব্দুল মজিদ। তাদের সকলের বাড়ি কোটচাদপুরে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT