টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গারা কন্যাশিশুদের বোঝা মনে করে অধিকতর বন্যার ঝূঁকিপূর্ণ জেলা হচ্ছে কক্সবাজার টেকনাফে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে ৩০ পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার জমি ও ঘর হস্তান্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বারদের দায়িত্ব নিয়ে ডিসিদের চিঠি আগামীকাল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন (তালিকা) বাংলাদেশ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান টেকনাফ উপজেলা কমিটি গঠিত: সভাপতি, সালাম: সা: সম্পাদক: ইসমাইল আজ বিশ্ব শরণার্থী দিবস মিয়ানমারে ফেরা নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রোহিঙ্গারা ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান বন্ধের সিদ্ধান্ত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতদিন আছে, ততদিন ক্ষমতায় আছি: হানিফ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ

জানুয়ারির মাঝামাঝি নির্বাচন নিয়ে চিন্তাভাবনা

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৩
  • ১৮০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

election commision bd mmজানুয়ারি সরকারের মেয়াদ শেষের এক সপ্তাহ থেকে দশদিন আগে নির্বাচন করার চিন্তাভাবনা করছে আওয়ামী লীগ। দলের কার্যনির্বাহী কমিটির সভার পরদিন কেন্দ্রীয় নেতা এবং আইন প্রতিমন্ত্রী মন্ত্রী কামরুল ইসলাম এ কথা বলেছেন। আজ সোমবার বিবিসি বাংলাকে তিনি এ কথা বলেন।

কামরুল ইসলাম বলেন, “মেয়াদ শেষের সাত-দশদিন আগে নির্বাচন হতে পারে। সেই টার্গেট নিয়েই আমাদের মধ্যে চিন্তা ভাবনা চলছে।”

নির্বাচনের মাস দেড়েক আগে তফসিল ঘোষণার ইঙ্গিত দিয়েছেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, তফসিল ঘোষণার পর নির্বাচন করতে ৪৫ থেকে ৫০ দিনের বেশি লাগে না।

সংবিধান মতে, সরকারের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগের তিনমাসের মধ্যে যেকোনো সময় নির্বাচন হতে হবে। সে অনুযায়ী, ২৪ অক্টোবর থেকে ২৪ জানুয়ারির মধ্যে সরকারকে নির্বাচন করতে হবে যদিও প্রধান বিরোধী দল বিএনপি আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে নির্বাচন বয়কটের ঘোষণা দিয়েছে।

এই অবস্থায় নির্বাচন কবে হবে, ২৪ শে অক্টোবরের পর দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি কী হবে তা নিয়ে জনমনে উদ্বেগ বাড়ছে। কামরুল ইসলাম বলেন, “সংবিধানে কোনো পরিবর্তন, সংশোধন হবে না। এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগ চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে।”

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী সংবিধান অনুযায়ী আওয়ামী লীগ এখন নির্বাচনের পথে। আমরা মানুষের কাছে ভোট চাইছি।”

আওয়ামী লীগের এই দুই নেতাই ইঙ্গিত দিয়েছেন, বিরোধী দলের নির্বাচন বয়কট বা নির্বাচন প্রতিরোধের হুমকি নিয়ে তারা ভাবছেন না। এদিকে নির্বাচন নিয়ে সরকারের পরিকল্পনা নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই নেতা যে ইঙ্গিত দিয়েছেন, সে ব্যাপারে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর বিবিসিকে বলেন, “জনগণ ওই নির্বাচন প্রতিহত করবে।”

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার ঘোষণা-মতো ভোট কেন্দ্রগুলোতে নির্বাচন প্রতিরোধে সংগ্রাম কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করেছে বিএনপি। তবে আওয়ামী লীগ নেতা কামরুল ইসলাম বলেন, বিরোধী দল কোনো সহিংসতার পথে গেলে সরকার কঠোর হবে।

– See more at: http://www.ajkerbangladesh24.com/news/the-news/79513.aspx#sthash.UBSR6q09.dpuf

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT