টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

জনগুরুত্বপুর্ণ ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনও এসড়কে/ টেকনাফ – সী বীচ সড়ক ভেঙ্গে খান খান

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১২
  • ১৫৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম,টেকনাফ………..kashem teknaf pic 31-10-2012টেকনাফে নবনির্মিত ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন,টেকনাফ-সী বীচ সড়ক ও মেরিন ড্রাইভ সড়কে বড় বড় খানাখন্দক হয়ে যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। নিম্নমানের স্থানীয় পাহাড়ী পাথর দিয়ে তৈরী করার ফলে এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলে দাবী করেছেন স্থানীয় বাসিন্দাগণ। ফলে টেকনাফ নর্বনিমিত ফায়ার সার্ভিস এবং সী-বীচ সড়ক  ছাড়াও  উপকূলীয় ইউনিয়ন বাহারছড়ার হাজার হাজার মানু ষকে সীমান্ত শহর টেকনাফ আসতে ও বিকল্প পথে কক্সবাজার যাতায়তে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তাছাড়া সড়কের বিভিন্ন স্থানে ঠিকাদারদের অনিয়মের কারণে অনেক ব্রীজ মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন এসব সড়ক দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে মানুষ দূঘর্টনার শিকার হচ্ছেন। জানা যায়, এসব রাস্তা দিয়ে ৬ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ চলাচল করে থাকেন। এছাড়া উপকূলীয় ইউনিয়ন বাহারছড়ার লোকজনও এই রাস্তা ব্যবহার করেন। প্রতিবছর হাজার হাজার পর্যটক এরাস্তা দিয়ে সমুদ্র সৈকতে যায়। এ সড়কের দূরাবস্থার কারণে এলাকার মানুষ ও দূর-দূরান্ত থেকে আসা পর্যটকদের প্রতিনিয়ত হয়রানী এবং দুঘর্টনার শিকার হতে হচ্ছে। সরেজমিনে এ সড়ক পরিদর্শন করে দেখা যায়, টেকনাফ জিরো পয়েন্ট শাপলা চত্তর  থেকে সী-বীচ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৩ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে হাইস্কুল মাঠ সংলগ্ন এলাকা, স্কুল গেইট, কলেজের রাস্তার মাথা, ডেইল পাড়া রাস্তার মাথা পর্যন্ত কাপেটিং উঠে গিয়ে বড় বড় গর্তে  পরিনত হয়েছে। টেকনাফ সদর ইউনিয়নের বাইতুশ শরফ এলাকা থেকে ব্রাক অফিস পর্যন্ত রাস্তার  দুপাশের রক্ষা দেয়াল না থাকার কারণে দু-পাশ ভেঙ্গে সরু হয়ে গিয়েছে। শাপলা চত্ত্বর থেকে সী বীচ রাস্তার মাথা পর্যন্ত জরুরি ভিত্তিতে সংস্কারের দাবিতে খানাখন্দকে  মাছের পোনা ছেড়ে এবং মানবন্ধন করে এলাকাবাসী প্রতিবাদ জানানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে। জরুরী ভিত্তিতে সড়কটি সংস্কার করা না হলে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন এলাকাবাসী । এলাকাবাসী যৌথ বৈঠকে শ্রীঘ্রই কর্মসূচী ঘোষনা করবেন বলে জানা গেছে। সড়কের অবস্থা এতই কাহিল হয়েছে এসড়ক দিয়ে মোটর সাইকেল  ও রিক্সা ছাড়া অন্য কোন যানবাহন সহজে আসা-যাওয়া করতে পারেনা। ঝুকিপূর্ন কালভার্টে মাটি সরে গিয়ে বিপদজনক হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। চলাফেরা করার জরুরী তাগিদে প্রতিদিন  ছোট-খাট যানবাহন নিয়ে মানুষ এসড়ক দিয়ে চলাচল করছে। অনেক সময় টমটম ,সিএনজি ,রিক্সা গর্তে পড়ে উল্টে গিয়ে যানবাহনের ক্ষতি এবং যাত্রীসাধারন আহত হচ্ছে। সূত্রে জানা যায়, বিগত সময় গুলোতে এ সড়কে তেমন কোন উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি। সড়ক ও জনপথ বিভাগ সময় জোড়াতালি দিয়ে কাজ করে থাকে।স্থায়ী ও মজবুত কাজ না হওয়ার কারণে বছর ঘুরতে না ঘুরতে রাস্তাটি বেহাল দশায় পরিণত হচ্ছে। প্রতিবছর এসড়ক দিয়ে পানবোঝাই ট্রাক, হ্যাচারীর পোনা, সুপারির ট্রাক, সামুদ্রিক মাছ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে রপ্তানী করে থাকে। এথেকে সরকার বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের পাশাপাশি কোটি টাকার রাজস্ব আদায় করে থাকে। অথচ এসড়কটি বেহাল দশার কারণে ভবিষ্যতে রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। টেকনাফ বাইতুশ শরফ মাদ্রাসার সুপার মাওলানা আমির আহমদ বলেন,আমাদের মাদ্রাসা থেকে প্রতিবছর ২০-৩০জন ছাত্র-ছাত্রী দাখিল পরীক্ষায় পাস করে দেশের বিভিন্ন কলেজ ইউনিভারসিটিতে যাচ্ছে। এসড়কটির বেহাল দশার কারণে  যানবাহন তেমন চলাচল করতে চাইনা বিধায় ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষক শিক্ষিকাগণের চলাচলে অসুবিধা হয়ে পড়েছে। তিনি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের প্রতি উক্ত সড়ক মেরামতের জন্য দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহনের জোর দাবী জানিয়েছেন। বাইতুশ শরফের  ছাত্র এনায়েত উল্লাহ জানান, টেকনাফ সী বীচে  দেখার জন্য  প্রতিবছর দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে হাজার হাজার পর্যটকের ঢল নামে। কিন্তু রাস্তা খারাপ হওয়ার কারণে অনেকে গাড়ি নিয়ে যেতে পারেননা। গাড়িগুলো পার্কিং করে রাখতে হয় টেকনাফ বীচ থেকে ৩ কিঃ মিঃ দুের পৌরসভার হাইস্কুল মাঠে। ওখান থেকে রিক্সা , টমটম, সিএনজি অথবা পায়ে হেঁটে যেতে হয় টেকনাফ সী- বীচ দেখার জন্য। বর্তমান সরকার এ রাস্তাটিকে ককসবাজার সী- বীচ রোডের মত উন্নয়ন কাজ হাতে নিলে আমাদের টেকনাফ সী-বীচ আকর্ষনীয় পর্যটন স্পট হিসাবে রুপান্তরিত হবে। এ সড়কের জীপ চালক আলাউদ্দীন বলেন, ‘এ সড়কের বেহাল দশার কারণে প্রতিদিন গাড়ির মূল্যবান যন্ত্রাংশ নষ্ট হচ্ছে, অহরহ দুর্ঘটনা ঘটছে। সীমাহীন দুর্ভোগ বেড়েছে যাত্রী সাধারণের। প্রতিনিয়ত নোকসানের মুখে পড়ে শতকরা ৮০ ভাগ পরিবহন মালিক এসড়কে গাড়ি নামাতে সাহস পাচ্ছেননা। #

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT