টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ মাদক কারবারি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত সাংবাদিক আব্দুর রহমানের উদ্দেশ্যে কিছু কথা! ভারী বৃষ্টির সতর্কতা, ভূমিধসের শঙ্কা মোট জনসংখ্যার চেয়েও ১ কোটি বেশি জন্ম নিবন্ধন! বাড়তি নিবন্ধনকারীরা কারা?  বাহারছড়া শামলাপুর নয়াপাড়া গ্রামের “হাইসাওয়া” প্রকল্পের মাধ্যমে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ ও বার্তা প্রদান প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে টেকনাফে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফ্রিং টেকনাফের ফাহাদ অস্ট্রেলিয়ায় গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী সম্পন্ন করেছে নিখোঁজের ৮ দিন পর বাসায় ফিরলেন ত্ব-হা মিয়ানমারে পিডিএফ-সেনাবাহিনী ব্যাপক সংঘর্ষ ২শ’ বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস বিল গেটসের মেয়ের জামাই কে এই মুসলিম তরুণ নাসের

চালক মদ্যপায়ী অবস্থায় গাড়ি চালিয়ে টেকনাফে ঈদের চাঁদ রাতের বাস-সিএনজি মূখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনায় ১জন মারা গেছে

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৪ আগস্ট, ২০১৩
  • ১৪৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

Teknaf-Pic (accident)-14-08-13
আমান উল্লাহ আমান,টেকনাফ ### কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কে বাস-সিএনজি (অটো রিক্সা) মূখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের ৭ জন গুরুতর আহত হয়েছে। তম্মধ্যে চট্টগ্রাম চমেক হাসপাতালে নেয়ার পথে নুসরাত মনি (১) নামে এক শিশু নিহত হয়েছে। অপর এসএসসি পরিক্ষার্থী তসলিমা আক্তার (১৬) ও ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী সেকুফা আক্তারের (১৩) অবস্থা আশংকাজনক চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে এবং আহত অপর ৪ জন ৬ষ্ট শ্রেণীর ছাত্রী ছমিরা আক্তার (১০), তসলিমা পারভিন (২১), মোঃ ইসমাইল (২২) ও মোঃ আযুব (২৪) কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ঈদের চাঁদ রাতের ৮ আগষ্ট রাত ১০ টায় টেকনাফ স্থল বন্দর সংলগ্ন কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কে।
প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, টেকনাফ উপজেলার হ্নীলার জাদীমুরা এলাকার আবুল হাশেম পরিবার নিয়ে টেকনাফ বাজার থেকে ঈদের কেনাকেটা শেষে সিএনজি যোগে বাড়ী ফিরছিল। টেকনাফ স্থল বন্দর সংলগ্ন স্থানে পৌঁছলে টেকনাফমূখী নাফ সার্ভিস নামক মিনি বাস (চট্টমেট্টো-জ-১১-০৬৩৪) টি কক্সবাজারমূখী সিএনজি’র (কক্সবাজার-থ-১১-৩০৩৩) সাথে মূখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে সিএনজি গাড়ীটি ধুমড়ে মুছড়ে যায়। এতে আবুল হাশেমের তিন মেয়ে যথাক্রমে তসলিমা আকতার, সেকুফা আকতার ও ছমিরা এবং ছেলের বউ তসলিমা পারভিন, নাতি নুসরাত মনি, ভাতিজা মোঃ আয়ুব ও মোঃ ইসমাইল গুরুতর আহত হয়। আহতদের চমেক হাসপাতালে নেওয়ার পথে নুসরাত মনি নিহত হয় এবং অপর ৬ জন এখনো চিকিৎসাধীন রয়েছে। তম্মধ্যে তসলিমা ও সেকুফার অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।
এদিকে একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী সুত্র জানিয়েছেন, ঘাতক চালক মোঃ কালু প্রকাশ হাঁস কালু মদ্যপায়ী ছিল। ফলে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘঠেছে। টেকনাপ মডেল থানার পুলিশ ওই দিন রাতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
অপরদিকে প্রয়োজনীয় অর্থাভাবে সঠিক চিকিৎসা সেবা হতে বঞ্চিত হচ্ছে র্দূঘটনা কবলিত পরিবারটি। এ পর্যন্ত মিনি বাসের মালিকের পক্ষ থেকে চিকিৎসা বাবত কোন প্রকার সাহায্য সহযোগীতা পায়নি বলে ঐ পরিবারের প্রধান আবুল হাশিম জানিয়েছেন। ফলে পরিবারের দুঃখ-দূর্দশায় ও আকুতিতে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। আবুল হাশেম সকলের সাহায্য ও সহযোগীতা কামনা করেছেন এবং ঘাতক মদ্যপায়ী চালকের উপযুক্ত শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার এসআই সেন টু ওয়াই জানান, দূর্ঘটনা কবলিত মিনি বাসটি জব্দ করা হয়েছে। সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।##

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT