টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গারা কন্যাশিশুদের বোঝা মনে করে অধিকতর বন্যার ঝূঁকিপূর্ণ জেলা হচ্ছে কক্সবাজার টেকনাফে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে ৩০ পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার জমি ও ঘর হস্তান্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বারদের দায়িত্ব নিয়ে ডিসিদের চিঠি আগামীকাল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন (তালিকা) বাংলাদেশ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান টেকনাফ উপজেলা কমিটি গঠিত: সভাপতি, সালাম: সা: সম্পাদক: ইসমাইল আজ বিশ্ব শরণার্থী দিবস মিয়ানমারে ফেরা নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রোহিঙ্গারা ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান বন্ধের সিদ্ধান্ত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতদিন আছে, ততদিন ক্ষমতায় আছি: হানিফ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ

চকরিয়া ও পেকুয়ায় বৌদ্ধ বিহার পরিদর্শন কালে বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাষ্টের প্রতিনিধি দল……… বর্তমান সরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাসী

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৫ আগস্ট, ২০১৩
  • ১৩০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

প্রেস বিজ্ঞপ্তি ॥ কক্সবাজারে প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলে চকরিয়া ও পেকুয়ার বিভিন্ন বৌদ্ধ বিহার পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যান ট্রাষ্টের সদস্যরা। রবিবার (২৫ আগষ্ট) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত পেকুয়া উপজেলার বারবাকিয়া রাখাইন বৌদ্ধ বিহার, চকরিয়া উপজেলার হারবাং আনন্দ বৌদ্ধ বিহার, হারবাং গুনামেজু বৌদ্ধ বিহার, মানিকপুর সানেপাড়া বন বৌদ্ধ বিহার, মানিকপুর দণি রাখাইনপাড়া বৌদ্ধ বিহার, মানিকপুর ধর্মবিজয় বৌদ্ধ বিহার ও চকরিয়া কেন্দ্রীয় জেতবন বৌদ্ধ বিহার এবং বিহার ভিত্তিক শিশু শিা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন।

প্রতিনিধি দলে ছিলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাষ্টের ট্রাষ্টি সুপ্ত ভূষণ বড়ৃয়া, বাংলাদেশ বৌদ্ধ সমিতি কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি রবীন্দ্র বিজয় বড়ৃয়া, সহ-সভাপতি অনিল বড়ৃয়া, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাষ্ট ও নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর চকরিয়া ও পেকুয়া প্রতিনিধি, রাখাইন আদর্শ শিশু শিালয়ের প্রতিষ্ঠাতা মাষ্টার মংয়াই প্রমুখ। এসময় প্রতিনিধি দল বৌদ্ধ ভিু, বৌদ্ধ নেতৃবৃন্দ, বৌদ্ধ বিহার পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দ ও বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের লোকজনের সাথে কথা বলেন এবং তাদের সাথে মতবিনিময় করেন। পরে প্রতিনিধি দল চকরিয়া কেন্দ্রীয় জেতবন বৌদ্ধ বিহার প্রাঙ্গনে আয়োজিত আলোচনা সভায় অংশ গ্রহন করেন। এসময় প্রতিনিধি দলের প্রধান সুপ্ত ভূষণ বড়ুয়া বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাসী। গত ২৯ সেপ্টেম্বর রামু সহিংসতার পর স্বল্প সময়ের মধ্যে সরকারী অর্থায়নে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে বৌদ্ধ স্থাপত্য শৈলী বজায় রেখে বৌদ্ধ বিহারগুলো নির্মাণ করায় বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা খুশি। প্রধানমন্ত্রীর কাছে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের প থেকে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি আরো বলেন, চকরিয়া ও পেকুয়া উপজেলার ২২টি বৌদ্ধ বিহারে এ সরকারের আমলে সর্বোচ্চ অর্থসহায়তা প্রদান করা হয়েছে এবং ভবিষ্যতে তা অব্যাহত থাকবে। জেলার জরাজীর্ণ বিহারগুলো অচিরেই সংস্কারের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও তিনি জানান।

আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া কেন্দ্রীয় জেতবন বৌদ্ধ বিহারের অধ্য শ্রীমৎ জ্ঞানীশ্বর ভিু, বাংলাদেশ বৌদ্ধ সমিতি চকরিয়া উপজেলা শাখার সভাপতি বাবুল বড়ৃয়া, সহ-সভাপতি মাষ্টার সুরেশ বড়ুয়া, সাধারণ সম্পাদক পটল বড়ৃয়া, সোমদত্ত বড়ৃয়া, নির্মল বড়–য়া, আনন্দ বড়–য়া, শান্তি বড়–য়া, সজল বড়–য়া, সবর্ণ বড়–য়া, মতিলাল বড়–য়া প্রমুখ।

————————————————————————————————– প্রেরক : মোহাম্মদ সেলিম, জেলা প্রতিনিধি, জিটিভি। কক্সবাজার, তাং-২৫ আগষ্ট ২০১৩ ইং। মোবাইল-০১৮১৮৫৮৭০৪৪

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT