হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

টেকনাফপ্রচ্ছদ

ঘুষ প্রতি ট্রাক ৩শ টাকা: মেরিন ড্রাইভ সড়ক দিয়ে অতিরিক্ত ওজনের মালামালের ট্রাক চলাচল

এম আমান উল্লাহ আমান::
দিনে নয় রাতে চলে মেরিন ড্রাইভ সড়কে মালবাহী ট্রাক। প্রশ্ন থেকে যায় দিনে নয় রাতে কেন? প্রশাসন দেখেও কি দেখেনা? ট্রাক চালক জসিম বলেন টাকা নেন ৩শ ৫শ, প্রতি ট্রাক ৩শ টাকা করে তবে জারা নতুন তাদের কাছ থেকে ৫শ, ওখানে বন্দুক নিয়ে সরকারি দায়িত্ত পালন করে ওরা ঘুষ নেন।

সকল ধরণের গাড়ি চলাচলে টেকনাফ-কক্সবাজার যাওয়াআসার জন্য আরকান সড়ক রয়েছে। এদিকে সমুদ্রের কুল ঘেঁষে নান্দনিক সড়ক মেরিন ড্রাইভ যা সেন্টমার্টিন, সাবরাং ট্যুরিজম জোন, জইল্যার দ্বীপসহ পর্যটকদের কক্সবাজার-টেকনাফ যাওয়াআসার নিরাপদ একমাত্র সড়ক। এ সড়ক দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত ঘেঁষে হওয়ার ফলে দেশি-বিদেশী পর্যটকদের আকৃষ্ট করেছে বেশি। তাছাড়া আরকান সড়কের দু’পাশে রোহিঙ্গা বসবাসের ফলে যানজট হয় এবং এদের দেখা শুনা ও দেশের প্রশাসন, ভিআইপিরা,সাধারণ জনগোষ্ঠী যাতায়াত করে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে। কিন্তু ইদানীং দেখা যাচ্ছে এই মেরিন ড্রাইভের মালবাহী যানবাহ চলাচলের ফলে সড়কটি ঢেউ হয়ে যাচ্ছে এবং খুব অল্পসময় ভাঙ্গন ধরার সম্ভাবনা রয়েছে। যেহেতু সড়ক টি মালবাহী যানবাহন চলাচলের ন্যায় শক্ত নয়।
যে সড়কে টেকনাফ-কক্সবাজার যাওয়াআসা করা সাধারণ যাত্রীবাহী বাস চলাচল করছেনা সেখানে কেন কিভাবে মালবাহী অতিরিক্ত ওজনের বালি, গাছ, লবণ, চাউলসহ নানাবিধ মালামালের ট্রাক যাওয়াআসা করছে। এই সড়কের সৌন্দর্য রক্ষা এবং ভাঙ্গনের কবল থেকে রক্ষার দায়িত্ব কার? আপনার/আমার নাকি প্রশাসনের?

যেহেতু মেরিন ড্রাইভ দেশের একটি মূল্যবান ও গুরুত্ববহ সড়ক। টেকনাফ থেকে কক্সবাজার এই সড়কে রয়েছে বর্ডার গার্ডের ২ টি, সেনাবাহিনীর ২টি, পুলিশের ২ টিসহ মোট ৬টি চেকপোস্ট। এসব চেকপোস্ট ফাঁকি দিয়ে যেখানে (পর্যটকবাহী বাস ছাড়া) যাত্রীবাহী বড় বাস চলাচল করতে পারেনা।সেখানে কেন ভারী মালবাহী ট্রাক চলাচল করে মেরিন ড্রাইভের ক্ষতিসাধন করবে। তা এখন টেকনাফ উপজেলার সচেতন মহলের অভিমত এখন থেকে এসব প্রতিরোধ না করলে ভাঙ্গন থেকে রক্ষা করা যাবেনা এই নান্দনিক মেরিন ড্রাইভ সড়ক।

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.