টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

খালেদা জিয়া আগমনে বিএনপি’র প্রস্তুতি ও সমাবেশ নিয়ে প্রচারণা

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৯ নভেম্বর, ২০১২
  • ১৫১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মুহাম্মদ আবু বকর ছিদ্দিক, রামু/ বিএনপি’র চেয়ারপার্সন ও বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কক্সবাজার সফরকে ঘিরে চকরিয়া, রামু এবং উখিয়াসহ পুরো জেলাজুড়ে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে ক্যাপ্টেন আবদুল মাজেদের নেতৃত্বে কক্সবাজার এসে পৌঁছেছেন খালেদা জিয়ার বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী চেয়ারপার্সন সিকিউরিটি ফোর্স (সিএসএফ) এর লোকজনও। এলাকার সার্বিক আইনশৃংখলা পরিস্থিতি ও খালেদা জিয়ার সফরের অগ্রগতি টিম হিসেবে ৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় কক্সবাজার চলে আসেন সিএসএফ এর সদস্যরা। রামুর ক্ষতিগ্রস্থ বৌদ্ধ পল্লী ও নির্যাতনের শিকার বড়–য়াদের বসত বাড়ি পরিদর্শন শেষে রামু খিজারী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ এবং উখিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে সম্প্রীতি সমাবেশে বেগম খালেদা জিয়ার প্রধান অতিথির ভাষন দেয়ার কথা রয়েছে। সেই সাথে চট্টগ্রাম থেকে সড়ক পথে আসার সময় চকরিয়া চিরিঙ্গা স্টেশনে একটি পথসভায় বক্তব্য রাখার কথাও রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। অপরদিকে জলা বিএনপি’র সিনিয়র নেতারা দীর্ঘদিনের কোন্দল ভুলে গিয়ে এখন এক মঞ্চে উঠে কাজ করতে দেখা গেছে। লক্ষ্য একটাই আর তা হল কাল ১০ নভেম্বরের নির্ধারিত দলীয় প্রধানের সফরকে সফল করা। এরই মধ্যে কক্সবাজার জেলা শহর সহ উখিয়া ও রামুতে নিজেদের পরিচিতি বাড়ানো এবং দলীয় চেয়ারপার্সনের মন জয় করতে হরেক রকমের পোষ্টারিং লিফলেট ও বিশালাকারের ডিজিটাল ব্যানার শুভা পাচ্ছে সর্বত্র। আর ওইসব ব্যানারের মধ্যে সবচেয়ে বেশি চোখে পড়ছে অন্যরকম একটি শ্লোগান। তা হল কক্সবাজার শহর ছাত্রদলের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক কানন বড়–য়ার দেয়া “কথিত সংখ্যালঘু নয়, বাংলাদেশীই হোক আমাদের বড় পরিচয়” “দেশ নেত্রী তোমায় স্বাগতম” সহ নানা ধরনের শ্লোগান লেখা লিফলেট এখন সাধারন মানুষের হাতে হাতে। সর্বত্র চলছে প্রচার প্রচারনা। ৮ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরের পর এবার রামুর ক্ষতিগ্রস্থ বৌদ্ধ মন্দির ও বড়–য়াদের বসতবাড়ি পরিদর্শনে আসছেন বিএনপির চেয়ারপার্সন ও বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া। তিনি আগামী ১০ নভেম্বর একদিনের জন্য কক্সবাজার আসার কর্মসুচী ঘোষনার খবরটি গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে নিশ্চিত করেছেন তাঁর প্রেস সেক্রেটারী মারুফ কামাল খান সোহেল। অপরদিকে দলের ভেতরে নানা বিরোধ থাকার পরও দীর্ঘদিন পর দলীয় প্রধানের কক্সবাজার সফরে আসার খবরে তৃনমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের মাঝে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে আসতে শুরু হয়েছে। এ নিয়ে পুরো কক্সবাজার জেলা জুড়ে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়। তাছাড়া খালেদা জিয়ার এই সফর রামুর ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় মানুষদের পাশে দাড়ানো এবং তাদের প্রতি সহানুভূতি প্রকাশের পাশাপাশি বিরোধে জর্জরিত কক্সবাজার জেলা বিএনপির কোন্দল নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে বলে ধারনা করছেন রাজনৈতিক বোদ্ধারা। সেই সাথে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের অংশ নিতে কক্সবাজার জেলার ৪টি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকা চুড়ান্ত ও নির্বাচনে অংশ নেয়ার রূপরেখা তৈরী করতে পারেন বলে মন্তব্য করতে ভুল করছেননা এখানকার বিএনপির ঘরনার সিনিয়র নেতারা। এমনিতে কক্সবাজার জেলা বিএনপির দীর্ঘ দিনের দ্বিধা বিভক্তি নিয়ে পুরো দেশ জুড়ে আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে। চলমান এই দ্বিধা বিভক্তি সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির যুগ্ন মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমদের আবর্তে মুলত: জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি শাহজাহান চৌধুরী ও কেন্দ্রীয় সদস্য সদর-রামু আসনের এমপি লুৎফুর রহমান কাজলের মধ্যে। কিন্তু সব ভেদাবেদ ভুলে গিয়ে খালেদা জিয়ার এই সফরকে সফল করতে রামুর খিজারী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ এবং উখিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের  জনসভাস্থল পরিদর্শন করেছেন সালাউদ্দিন আহমদ ও লুৎফুর রহমান কাজল এমপি।
এমতাবস্থায় দলীয় প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার আগমনে অগোছালো ভাবে চলমান জেলা বিএনপির রাজনীতি ঐক্যবদ্ধ হতে সহায়ক ভুমিকা রাখতে পারে বলে রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টদের ধারনা। তাই রামুতে সংঘটিত ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পাশাপাশি বিএনপির উর্বর ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত এই কক্সবাজারে দলের ভিতরে বিরাজমান দীর্ঘদিনের বিরোধ নিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার ভুমিকা কি হতে পারে ? সেদিকেই এখন সকলের দৃষ্টি।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT