টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গারা কন্যাশিশুদের বোঝা মনে করে অধিকতর বন্যার ঝূঁকিপূর্ণ জেলা হচ্ছে কক্সবাজার টেকনাফে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে ৩০ পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার জমি ও ঘর হস্তান্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বারদের দায়িত্ব নিয়ে ডিসিদের চিঠি আগামীকাল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন (তালিকা) বাংলাদেশ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান টেকনাফ উপজেলা কমিটি গঠিত: সভাপতি, সালাম: সা: সম্পাদক: ইসমাইল আজ বিশ্ব শরণার্থী দিবস মিয়ানমারে ফেরা নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রোহিঙ্গারা ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান বন্ধের সিদ্ধান্ত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতদিন আছে, ততদিন ক্ষমতায় আছি: হানিফ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ

কোরবানির হাটে জালনোট ঠেকাতে প্রস্তুতি

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১৮৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

            নিজস্ব প্রতিবেদক     কোরবানির পশুর হাটে জালনোটের ব্যবহার ঠেকাতে মাঠে থাকবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক, বাণিজ্যিক ব্যাংক ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

এজন্য দেশের সব ব্যাংক ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এছাড়া জালনোট প্রচলন প্রতিরোধে গঠিত জাতীয় কমিটি ও জেলা কমিটিগুলোকেও প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের কারেন্সি ম্যানেজমেন্ট ডিপার্টমেন্টের দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক অসীম কুমার দাশগুপ্ত বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “কোরবানির সময়ে পশুর হাটে জালনোট প্রচলনের আশঙ্কা থাকে। ব্যাপক ব্যস্ততায় রাতে-দিনে অনেক টাকার লেনদেন হয়।

“সাধারণ মানুষ যাতে প্রতারণার শিকার না হয় সেজন্য বাংলাদেশ ব্যাংক জালনোট প্রচলন প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিয়েছে।”

এনিয়ে ইতোমধ্যে সংশ্লিস্টদের সঙ্গে বৈঠকও করা হয়েছে বলে জানান অসীম কুমার।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, রাজধানীর পশুর হাটগুলোতে থাকবে বাংলাদেশ ব্যাংকের নজরদারি।

রাজধানীর বাইরে যেসব জায়গায় বাংলাদেশ ব্যাংকের কার‌্যালয় রয়েছে সেখানে বাংলাদেশ ব্যাংক আর যেখানে বাংলাদেশ ব্যাংকের সুযোগ নেই সেখানে সোনালী ব্যাংকের নেতৃত্বাধীন টিম ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের সহযোগিতা করবে। জেলা শহরে থাকবে জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে গঠিত টাস্কফোর্সের সদস্যরা।

প্রতিটি পশুর হাটে ব্যাংকের কর্মী ও জালনোট প্রচলন প্রতিরোধে গঠিত কমিটির সদস্যরা থাকবে। থাকবে ব্যাংকের বুথও। এসব বুথে জাল নোট সনাক্তের যন্ত্র থাকবে। যে কেউ বুথগুলো থেকে নোট যাচাই করে নিতে পারবেন।

 

গত বছর রাজধানীর ২০টি অস্থায়ী পশুর হাটে বাংকগুলো এই সেবা দিয়েছিল। এবছরও রাজধানীতে সিটি কর্পোরেশন যতগুলো পশুর হাটের অনুমোদন দেবে সবগুলোতেই ব্যাংকের বুথ বসানো হবে। থাকবে পুলিশ, র‌্যাব, গোয়েন্দা বাহিনীর সদস্যরা।

এছাড়া জালনোট প্রচলন প্রতিরোধে সচেতনতামূলক প্রচারণাও চালাবে বাংলাদেশ ব্যাংক। বিশেষ করে নোটের নিরাপত্তা বিষয়ক চিহ্নগুলো সংবাদপত্র ও টেলিভিশনের মাধ্যমে তুলে ধরা হবে।

WARNING:

Any unauthorised use or reproduction of bdnews24.com content for commercial purposes is strictly prohibited and constitutes copyright infringement liable to legal action.

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT