করোনা নিয়ে গুজবের অভিযোগে ১৩টি মামলা ও ২১ জনকে গ্রেপ্তার: নজরদারিতে শতাধিক অ্যাকাউন্ট

প্রকাশ: ৫ এপ্রিল, ২০২০ ১:৫৯ : পূর্বাহ্ণ

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক:: করোনাভাইরাস সঙ্কটের মধ্যে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে সোশাল মিডিয়ার শতাধিক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করতে বলেছে পুলিশ, আর নজরদারিতে রয়েছে শতাধিক অ্যাকাউন্ট।গুজব ছড়ানোর অভিযোগে এরই মধ্যে  দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ২১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।
পুলিশ সদর দপ্তরে সহকারী মহাপরিদর্শক আনজুমান কামাল শনিবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “শতাধিক সোশাল মিডিয়ার অ্যাকাউন্ট বন্ধের সুপারিশ করে বিটিআরসিকে চিঠি দেওয়া হয়েছে এবং আরও শতাধিক অ্যাকাউন্ট নজরদারিতে রয়েছে।”

বিটিআরসি ছাড়াও ফেইসবুক কর্তৃপক্ষকেও অ্যাকাউন্টগুলো বন্ধ করার সুপারিশ করা হয়েছে। তবে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষকে কয়টি অ্যাকাউন্ট বন্ধের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে, তা বলেনি পুলিশ সদর দপ্তর।
করোনাভাইরাস নিয়ে গুজব ছড়ালে ব্যবস্থা-আইজিপি
গত তিন দিন ধরে সোশাল মিডিয়ার গুজব ‘একটু বেশি হচ্ছে’ জানিয়ে আনজুমান বলেন, “পুলিশেরও কঠোর নজরদারি রয়েছে। যারাই এ ধরনের কাজ করবে, তাদের আইনের আওতায় আসতেই হবে।”

পুলিশ সদর দপ্তরের অতিরিক্ত ডিআইজি হায়দার আলী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, নভেল করোনাভাইরাসি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে এই পর্যন্ত ১৩টি মামলা ও দুটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে।

পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (মিডিয়া) মো. সোহেল রানা বলেন, গুজব রটনাকারীকে শনাক্ত করতে সাইবার পেট্রোল টিম গঠন করা হয়েছে।

গুজবে যেন কেউ কান না দেন, সেজন্য সারা দেশে সচেতনতামূলক প্রচার চালানো হচ্ছে বলেও জানা্ন তিনি।

সোহেল রানা বলেন, “জনগণকে কোনো কিছু বিশ্বাস করার আগে ৯৯৯ ও ৩৩৩ ফোন করা যাচাই করে নেওয়ার অনুরোধ করছি।”

পুলিশের অভিযানে ১৩ জন গ্রেপ্তার হওয়ার পাশাপাশি র‌্যাবের অভিযানেও গুজব রটনাকারী আটজন গেপ্তার হয়েছে।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক সারওয়ার বিন কাশেম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “গুজব রটানোর অভিযোগে আটজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং আরও কিছু অ্যাকাউন্ট শনাক্ত করে অপরাধীদের ধরার অভিযান চলছে।”

সবাই সতর্ক করে তিনি বলেন, “কোনো গুজবে কেউ লাইক বা শেয়ার করলে ওই ব্যক্তিও একই অপরাধে আপরাধী হবেন।”


সর্বশেষ সংবাদ