টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
মডেল মসজিদগুলোয় যোগ্য আলেম নিয়োগের পরামর্শ র্যাবের জালে ধরা পড়লেন টেকনাফ সাংবাদিক ফোরামের সদস্য ও ইয়াবা কারবারি বিপুল পরিমাণ টাকা ও ইয়াবা উদ্ধার রোহিঙ্গাদের তথ্য মিয়ানমারে পাচার করছে জাতিসংঘ: এইচআরডব্লিউ প্রশাসনে তিন লাখ ৮০ হাজার পদ শূন্য গোদারবিলের জামালিদা ও নাইট্যংপাড়ার ফয়েজ ইয়াবা ও নগদ টাকাসহ গ্রেপ্তার পরীমনির কান্না অথবা নিখোঁজ ইসলামি বক্তা এসএসসি-এইচএসসির পরীক্ষার সিদ্ধান্ত পরিস্থিতি দেখে : শিক্ষামন্ত্রী টেকনাফে পাহাড় ধ্বসে ৩৩ জনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ট্রাজেডি আজ পড়ে আছে বিলাসবহুল বাড়ি,নেই দাবিদার শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ লম্বাবিলে বাস—সিএনজির মুখোমুখী সংঘর্ষে রোহিঙ্গাসহ ২ জন নিহত

কক্সবাজার উপকূলীয় এলাকায় আদম পাচার, ইয়াবা আমদানী ও সমুদ্রে নৌ ডাকাতি; বেসামাল প্রশাসন!

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১১৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

 cbcb copyউপকূলীয় প্রতিনিধি, মহেশখালী-  মহেশখালী উপকূলীয় এলাকায় মালয়েশিয়া নৌ পথে আদম পাচার এখন নিত্য নৈমত্তিক বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে। সমুদ্রে ডাকাতির বিষয়টি এখন প্রশাসনের নজরদারীতে রয়েছে। প্রাইম নিউজ অনলাইন পত্রিকায় ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর এরই সূত্র ধরে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে গত ২/১ দিন ধরে ফলাও করে আদম পাচার, ইয়াবা আমদানী এবং নৌ ডাকাতির বিষয়টি প্রকাশ করেন। আদম পাচারের সাথে জড়িত গড ফাদার ল্যাং ফরিদ এর ভাই বহু মামলার পলাতক ও সাজাপ্রাপ্ত আসামী জালালকে মহেশখালী পুলিশ গ্রেফতার করতে সমর্থ হয়। নৌ ডাকাতির বিষয়ে ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের তালাশ টিম ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করলে সমুদ্রে নৌ ডাকাতির সাথে আব্দুল গফুর প্রঃ নাগুর নাম উঠে আসে। সোনাদিয়ার দুধর্ষ নৌ ডাকাত হিসাবে চিহ্নিত হয়েছে। কিন্তু রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় মহেশখালীর থানা পুলিশ এখনও তাকে গ্রেফতার করতে সমর্থ হয়নি। ইতিমধ্যে গত ২ দিনে মালয়েশিয়াগামী প্রায় ২টি বড় চালান ধরা পড়ে। চট্টগ্রামের র‌্যাব ৭ অবৈধ পন্থায় মালয়েশিয়াগামীদের ধরতে সমর্থ হয়। সমুদ্রের নৌ ডাকাতি, আদম পাচার এবং ইয়াবা আমদানীর সাথে সংশ্লিষ্ট ৩ জন ব্যক্তি যথাক্রমে নাগু, ল্যাং ফরিদ এবং ছৈয়দ কবির জড়িত মর্মে স্থানীয় চেয়ারম্যান এবং জনগণের সাথে কথাবলে নিশ্চিত হওয়া যায়। এই সংক্রান্তে কুতুবজোম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মৌলভী শফিউল আলমের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, সমুদ্রে নৌ ডাকাতির সাথে নাগু ও তার ভাইপো একরাম সহ সোনাদিয়ার একাধিক ব্যক্তি জড়িত। এদের বিরুদ্ধে ডজন খানেক মামলা রয়েছে। আদম পাচার ও ভূমিদস্যু ইত্যাদি অপকর্মের সাথে ল্যাং ফরিদ ও তার ভাই জালাল প্রঃ জালাইল্যা ডাকাত জড়িত। তাদের সাথে সাহাবুদ্দিন, নাছির উদ্দিন, রাহামত উল্লাহ, মমতাজ মাঝি, নুরুল হাসেম, আব্দুল আজিজ সহ আরো ৬৪ জন অপরাধী জড়িত। ইয়াবা আমদানীর মূল হোতা ছৈয়দ কবির এখনও তাজিয়া কাটা এলাকায় দিব্যি বসবাস করিতেছে। কক্সবাজার অঞ্চলে যতগুলো ইয়াবা আমাদানীর সাথে জড়িত তার মধ্যে ছৈয়দ কবির অন্যতম। চেয়ারম্যান আরো জানান, এই ছৈয়দ কবির ছদ্মবেশে মৌলানা সেজে টেকনাফ থেকে ইয়াবা ও হাতির দাত এনে ঢাকায় চালান করে দেন। গত ২ বছর আগে এই ছৈয়দ কবির টানা জালের বোটে শ্রমিকের কাজ করিত। পরে খোন্দকার পাড়া বাজারে তরকারি বিক্রি করিত। বর্তমানে এই ছৈয়দ কবির কোটি কোটি টাকার মালিক। কিন্তু প্রশাসনকে এই ব্যাপারে অবহিত করলে প্রশাসন কোন কার্যকর ব্যবস্থা নেয় নি। স্থানীয় চেয়ারম্যান মৌলভী শফি জানান, এই অপরাধীদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনতে হবে। নতুবা দেশ ইয়াবায় সায়লাব হবে, আদম পাচারের সাথে জড়িতদের রুখে দাড়ানো সম্ভব হবে না এবং সমুদ্রের নৌ ডাকাতিও বন্ধ হবে না।

মোহাম্মদ ফারুক ইকবাল মোবাইল ঃ ০১৮১৩১৬৪৭৬১

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT