টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

কক্সবাজারে ৩০ স্পটে পাহাড় কাটা চলছে!

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ৪ আগস্ট, ২০১৩
  • ৯৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর:::::Pic_Cox-bg20কক্সবাজারে ব্যাপক হারে পাহাড় কাটা শুরু করা হয়েছে। ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মাটি ভারটের নামে শহরের ৩০টির বেশি স্পটে প্রকাশ্যে পাহাড় কাটার কাজ চলছে।

এর মধ্যে কক্সবাজার সিটি কলেজে পাহাড় কাটায় ব্যবহার হচ্ছে ‘সেই’ এক্সেভেটরটি। এক্সেভেটর দিয়ে পাহাড় কেটে ২০/৩০টি ট্রাকে করে মাটি সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

রোববার সরেজমিনে কক্সবাজার সিটি কলেজে গিয়ে দেখা যায়, একটি এক্সেভেটর দিয়ে পাহাড় কেটে সরিবদ্ধ ট্রাকে মাটি ভর্তি করা হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, গত ২৫ জুলাই কক্সবাজার শহরে পাহাড় কাটার ব্যাপক প্রস্তুতির অংশ হিসেবে একটি এক্সেভেটর (বুলডোজার) কক্সবাজার আনা হয়। এ সংক্রান্ত সচিত্র সংবাদ বাংলানিউজে প্রকাশিত হয়। এর পর চট্টগ্রামের মোহানা কনস্ট্রাকশনের নামের একটি প্রতিষ্ঠানের আনা এক্সেভেটর সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু রোববার কক্সবাজার সিটি কলেজ প্রাঙ্গণে ওই এক্সেভেটরটির দেখা মিলে।

স্থানীয়রা বাংলানিউজকে জানান, গত ৩দিন ধরে এক্সেভেটর দিয়ে প্রকাশ্যে চলছে পাহাড় কাটা। আর শত শত ট্রাকে করে সেই মাটি সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

কয়েকজন ট্রাক শ্রমিক জানান, তারা এ মাটি ক্রিকেট স্টেডিয়ামের জন্য গলফ মাঠে নিয়ে যাচ্ছেন। একটি প্রভাবশালী চক্র এসব মাটি বিক্রি করছেন। তারা কেবল শ্রমের মূল্য পাচ্ছে।

কক্সবাজার সিটি কলেজের অধ্যক্ষ ক্য থিং অং পাহাড় কাটার সত্যতা স্বীকার করে বাংলানিউজকে জানান, কলেজের অবকাঠামোর জন্য পাহাড় কাটা প্রয়োজন রয়েছে। তাই তিনি কয়েকজন ব্যক্তিকে পাহাড় কাটার অনুমতি দিয়েছেন। এ মাটি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে তিনি দাবি করেন।

এছাড়াও কক্সবাজার শহরের ৩০টি স্পটে প্রকাশ্যে চলছে পাহাড় কাটা। কক্সবাজার শহরের বৈদ্যঘোনা, খাজা মঞ্জিল এলাকা, দক্ষিণ পাহাড়তলী, ইসুলুর ঘোনা, ইসলামপুর, আবু উকিলের ঘোনা, বাচামিয়ার ঘোনা, ফাতের ঘোনা, মোহাজের পাড়া, পূর্ব লাইট হাউসপাড়া, বাদশা ঘোনা, দক্ষিণ রুমালিয়ার ছড়া, সমিতিবাজার, সাহিত্যিকা পল্লী, লারপাড়া, কলাতলী আদর্শ গ্রাম, কলাতলী বাদশা ঘোনা, বিজিবি ক্যাম্পের পশ্চিম পাশে, সদর উপজেলা পরিষদের পেছনের এলাকা, হাজিপাড়া, দক্ষিণ মহুরিপাড়া, লিংকরোড, সরকারি কলেজের পেছনেসহ প্রায় ৩০টি স্পটে ক্রিকেট স্টেডিয়ামের কাজে নাম ব্যবহার করে চলছে এ পাহাড় কাটা।

পরিবেশ অধিদপ্তর কক্সবাজার কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সরদার শরিফুল ইসলাম বাংলানিউজকে জানান, কক্সবাজার সিটি কলেজের ভয়াবহ পাহাড় কাটার বিষয়টি রোববার সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। রাষ্ট্রিয় কাজে পাহাড় কাটতে হলে তা অনুমতি নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। কেউ আইন অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

একই সঙ্গে অন্যান্য পাহাড় কাটার বিষয়ে খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

কক্সবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসীম উদ্দিন বাংলানিউজকে জানান, সদর থানার পুলিশ রোববার বিকেল ৪টার দিকে কক্সবাজার সিটি কলেজ স্পট থেকে পাহাড় কাটায় জড়িত দুই শ্রমিককে আটক করেছে। এসময় মাটি ভর্তি ১টি ট্রাক ও সরঞ্জাম জব্দ করা হয়েছে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT