হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজারপরিবেশপ্রচ্ছদফিচার

কক্সবাজারে বিগত ১০০ বছরের রেকর্ড বৃষ্টিপাত : মৃত ১১ , নিখোঁজ-৩

মুহম্মদ নূরুল ইসলাম::০১১৯৯ ৭০৭২ ৬১ :::

indexdddকক্সবাজার জেলার বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। পাহাড়ি ঢল, পাহাড় ধ্বস, গাছ চাপা, বাড়ি চাপা পড়ে জেলায় এযাবৎ ১১ জন নিহত ও ৫০জন আহত হয়েছে। চকরিয়াতে তিনজন নিখোঁজ রয়েছে। জেলার ৮টি উপজেলা ও ৪টি পৌরসভার ২৬ লাখ মানুষের মধ্যে কুতুবদিয়া ছাড়া ৭টি উপজেলার ১৫ লাখ মানুষ বন্যা কবলিত হয়েছে। লাখ লাখ বসতবাড়ি পানির নিচে তলিয়ে গেছে। শত শত স্কুল, কলেজ, মাদরাসা, মক্তবসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পানিতে ডুবে রয়েছে। বন্যার পানিতে ডুবে যাওয়ার ফলে গতকাল ২৬ জুন ২০১৫ শুক্রবার জেলার লাখ লাখ মানুষ পবিত্র জুম্মার নামাজ আদায় করতে পারে নি। বাড়িঘর পানিতে ডুবে থাকার কারণে এসব লোক11037887_1649425578677086_4051718622801438273_nজন দিনের পাঁচ ওয়াক্ত ফরজ নামাজ আদায় করতে পারছে না। কক্সবাজার আবহাওয়া দপ্তর বিগত ২২ জুন থেকে গতকাল ২৬ জুন রাত ৯টা পর্যন্ত সময়ে ১,০৫৩ মিমি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে। গত ২৫ জুন ২০১৫ কক্সবাজারে ৪৬৭ মিমি বৃষ্টিপাত হয়েছে। জানা মতে তা বিগত একশ বছরের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত। বিগত ২৫ জুন ২০১৩ সালে কক্সবাজারে সর্বোচ্চ ৪৪০ মিমি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। বিগত ২৫ জুনের বৃষ্টিপাত পূর্ববর্তী সকল রেকর্ড অতিক্রম করেছে। জেলার বৃহত্তম নদী বাঁকখালী, মাতামুহুরীসহ সবকটি নদীতে বন্যার পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে বয়ে চলেছে। বিভিন্ন নদীতে বন্যা প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙ্গে জনপদ প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দি মানুষ বাড়ি থেকে বের হতে পারছে না। বাড়িঘর পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় মানুষ ঘরের চালে আশ্রয় নিয়েছে। বর্তমানে বন্যা কবলিত এলাকায় বিশুদ্ধ খাবার পানির তীব্র অভাব দেখা দিয়েছে। একই সাথে খাবারের সংকট চলছে। ঘরের চুলা ডুবে যাওয়া রান্না বন্ধ হয়ে গেছে। চুলায় পানিতে ডুবে থাকায় রান্না বন্ধ হয়ে গেছে, ফলে এসব এলাকার মানুষ রোজা রাখতে পারছে না। বাড়িঘর ডুবে যাওয়ার ফলে ধান, চাউলসহ যাবতীয় খাদ্যদ্রব্য পানিতে ডুবে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।
বৃষ্টি আল্লাহর নিয়ামত। এই পানি থেকে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন যাবতীয় প্রাণের সঞ্চার করেছেন ও প্রাণের সৃষ্টি করেছেন। ফলে আমাদের উক্ত নিয়ামতের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা উচিত। কিন্তু কোনো কোনো সময় বৃষ্টি আসমানী গজব হয়েও মানুষের উপর নিপতিত হয়। হযরত নূহ আলাইহিসসালামের আমলে বৃষ্টি ও নিচের পানি গজব মানুষের উপর নিপতিত হয়েছিলো। সেই পানি দিয়ে আল্লাহ তা’আলা সেইসব অবাধ্য জনগোষ্ঠিকে নিপাত করেছেন। এমনকি হযর11403400_928447473879245_1334430137769741453_nত নূহ আ.-এর এক সন্তানও আল্লাহ তা’আলার এই গজব থেকে রেহাই পায় নি।
হে আল্লাহ, কক্সবাজারের বন্যা কবলিত লাখ লাখ মানুষতো আর তোমার অবাধ্য নয়। তৎমধ্যে কেউ না কেউ তো অনুগত, বাধ্য ও ঈমানদার বান্দা আছেন। মাবুদ তুমি তোমার সেইসব নেক্কার বান্দাদের উছিলায় জেলাবাসীকে বন্যার ভয়াবহতা থেকে রক্ষা করো। হে পরোয়ারদিগার তোমার গোনাগার বান্দারা পবিত্র রমজান মাসের সিয়াম (রোজা রাখতে) পালন করতে পারছে না। মাবুদ তুমি কক্সবাজারবাসীর প্রতি তোমার রহমতের হাত প্রসারিত করো। মাবুদ আমরা বুঝে-নাবুঝে অবাধ্য হয়েছি। আমরা তোমার গোনাগার বান্দা। আল্লাহ তুমি আমাদেরকে কবুল কর। হে মহান সৃষ্টিকর্তা এখন আমরা তোমার সাহায্যপ্রার্থী। মাবুদ তুমি তোমার বান্দাদের রক্ষা করো। আল্লাহ তুমি তোমার বান্দাদের হেফাজত কর। আমীন। ছুম্মা আমীন। আসুন আমরা সবাই আল্লাহ তা’আলার কাছে তওবা করি। আমাদের কৃতকর্মের কথা স্মরন করে আল্লাহ তা’আলার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করি।
পবিত্র রমজানে সিয়াম সাধনার মাসে জেলার বন্যাদুর্গত লোকজনের সাহাযার্থে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষ সবাই এগিয়ে আসুন। রমজান মাসে ইফতার মাহফিলের আয়োজন বন্ধ রেখে ইফতারের উক্ত টাকা বন্যা কবলিত মানুষের সাহায্যে বিতরন করুন।
মুহম্মদ নূরুল ইসলাম::০১১৯৯ ৭০৭২ ৬১
সভাপতি, কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমী ও সাংবাদিক ইউনিয়ন কক্সবাজার।

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.