হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজারপ্রচ্ছদ

কক্সবাজারে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ গুলিবিদ্ধ ১২

কক্সবাজারের মহেশখালী এলাকায় মঙ্গলবার রাতে পুলিশের সঙ্গে রবন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় জোনাব আলী বাহিনীর পাঁচজনসহ ১২জন সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ পাঁচজনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা হলেন, রবিউল আলম (২২), আমানুল করিম (২০), শফি আলম (২৫), জাহাঙ্গীর আলম (২৫) ও আবদুল মজিদ (২২) গুলিবিদ্ধ হন। এ ছাড়াও এনতাজ বেগম (৪৫), দিলদার বেগম (২৮), উম্মে হাবিবা (২২), রুবিয়া আক্তার (৪০), রেখা ইয়াছমিন (২০), রিনা আক্তার (২২) ও মোহাম্মদ এনাম (২৫) বিভিন্ন ভাবে আহত হন।

 মহেশখালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ দিদারুল ফেরদাউস বলেন, সন্ত্রাসী জোনাব আলী বাহিনীর সঙ্গে ওই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় পুলিশ ১৫টি গুলি ছোড়া হয়। অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সন্ত্রাসীদের ধরতে পাহাড়ি এলাকায় পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।

পুলিশ জানায়, সংরক্ষিত পাহাড়ি জমির পানের বরজ দখল ও এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের কাঁঠালতলী পাড়ার জোনাব আলী বাহিনী ও জালাল আহমদ বাহিনীর মধ্যে ১৯৯৪ সাল থেকে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে দুই বাহিনীর মধ্যে বেশ কয়েকবার পাল্টাপাল্টি হামলা, সংঘর্ষ ও বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। দুই বাহিনীর বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি ২০ টিরও বেশি মামলা হয়েছে।

আজ বেলা ১১টার দিকে জালাল বাহিনীর লোকজন এলাকায় ফিরলে প্রতিপক্ষ জোনাব আলী বাহিনীর লোকজন তাদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় কয়েকটি বাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

তবে এ ঘটনার জের ধরে বিকেল সাড়ে চারটার দিকে দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ শুরু হয়। এ সময় জালাল বাহিনীর দুই সমর্থকের বাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে জোনাব আলী বাহিনীর সদস্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এতে পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে ‘বন্দুকযুদ্ধ’ শুরু হয়। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ পরে সন্ত্রাসীরা পাহাড়ি এলাকার দিকে পালিয়ে যায়।

মহেশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইকুল আহম্মেদ ভূঁইয়া বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় রাত আটটা পর্যন্ত দুই বাহিনীর কেউই লিখিত কোনো অভিযোগ দেয়নি।

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.