টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

কক্সবাজারে জঙ্গি ঘাঁটি সনাক্ত করনে শীঘ্রই পুলিশের বিশেষ অভিযান

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১২
  • ২৩৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

আহসান সুমন , কক্সবাজার থেকে: কক্সবাজারে পুলিশের হাতে আটক রোহিঙ্গা জঙ্গিদের নতুন সংগঠন জামায়াতে আরাকানের ৪ সদস্যকে ৫ দিনের রিমান্ডে নিয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। দুই দিনেই আটককৃতদের কাছ থেকে অধিকতর চাঞ্চল্যকর তথ্য বের হয়ে এসেছে বলে প্রাথমিক ভাবে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন তদন্তকারীরা। তাছাড়া জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই আটক ৪ জনকে নিয়ে পুলিশ আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বান্দরবানের পাহাড়ি এলাকার গহীণ অরণ্যে তাঁদের জঙ্গি ঘাটি শনাক্ত করতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করার কথা রয়েছে। সেই সাথে পরবর্তীতে সন্ধেহভাজন আটক আরো ৯ জনকেও প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে প্রেরন করা হলে বিচারক তাদের জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠিয়ে দেন।

অপরদিকে আত-তাহরীদ নামের মাসিক পত্রিকার বিষয়ে পুলিশ সুত্রে জানা যায়, ওই সংগঠনের মুখপত্র হিসেবে পত্রিকাটি গোপন প্রেসে ছাপিয়ে সংগঠনের সদস্য ও শুভানুধ্যায়ীদের মধ্যে বিক্রি ও বিতরণ করা হতো। আর তাতে সদস্যদের উজ্জীবিত করার জন্য আল-কায়েদাসহ বিদেশি জঙ্গিদের লেখা ও সাক্ষাৎকার বাংলায় অনুবাদ করে ছাপানো হয়। পুলিশ জানায়, রিমান্ডে চার উগ্রপন্থীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তাঁদের কাছে কিছু সাংগঠনিক কাগজপত্র, পুস্তিকা, মুখপত্র হিসেবে মাসিক পত্রিকা ও যে ডায়েরি পাওয়া গেছে তার মধ্যে আত-তাহরীদ নামের মাসিক পত্রিকাটিতে পাকিস্তান ভিত্তিক আল-কায়েদার এক নেতার সাক্ষাৎকার রয়েছে। তাই দেশি-বিদেশি জঙ্গিদের সঙ্গে তাঁদের যোগসাজস আছে কি না সেটাও ভাল ভাবে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, নিষিদ্ধঘোষিত জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের জেএমবি’র একাংশ জামাআতুল আরাকান নামে নতুন করে সংগঠিত হচ্ছে। তারা বান্দরবান জেলার আলীকদমে দুর্গম পাহাড়ে ঘাঁটি গেড়ে প্রশিক্ষণ চালাচ্ছিল। এই জঙ্গিগোষ্ঠীর কিছু সদস্য পাকিস্তান হয়ে আফগানিস্তানে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন বলে গোপন সূত্রে এ খবর পেয়ে কক্সবাজার পুলিশ ২ সেপ্টেম্বর রাতে কক্সবাজার শহরের লালদীঘি, বাস টার্মিনাল ও বাহারছড়া এলাকা থেকে চারজনকে গ্রেপ্তার করে। এ ৪ জনকে নিয়েই পুলিশ কয়েকদিনের মধ্যে বান্দরবানের গহীণ পাহাড়ে তাঁদের ঘাটি শনাক্ত করতে যাওয়ার কথা রয়েছে।

প্রাপ্ত তথ্যে আরও জানা গেছে, জঙ্গী সংগঠন হরকাতুল জিহাদ থেকে বের হয়ে তারা জামায়াতে আরাকান নামে নতুন আরও একটি জঙ্গি সংগঠন করার মাধ্যমে কক্সবাজার সীমান্তে ফের জঙ্গী তৎপরতা শুরু করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছিল। এবং সিরিয়া-আফগানিস্তানের যুদ্ধে অংশ নেয়ার প্রস্তুতিও ছিল তাদের।

পুলিশ সুপার সেলিম মোঃ জাহাঙ্গীর জানিয়েছেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা হরকাতুল জিহাদ থেকে বের হয়ে জামায়াতে আরাকান নামের একটি নতুন জঙ্গি সংগঠন করার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এরপর জেএমবি সন্দেহে একজন রোহিঙ্গাসহ আটক আরো ৯ জনকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২ সেপ্টেম্বর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বাবুল আকতারের নের্তৃত্বে পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে প্রথমে বাহারছড়া এলাকা থেকে একজন ও পরে তার দেয়া তথ্য মতে লালদীঘি ও বাস টার্মিনাল থেকে অপর ৩ জনকে আটক করা হয়। সেই সাথে পরবর্তীতে আছাদ কমপ্লেক্স থেকে মিয়ানমারের এক নাগরিকসহ সন্ধেহভাজন আরও ৯ জনকে আটক করে পুলিশ।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT