টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
বার্ষিক পরীক্ষা হবে না: প্রাথমিকে পড়ুয়ারা পরের ক্লাসে উঠবে একই রোল নিয়ে সৌদি যুবরাজের সঙ্গে গোপন বৈঠকে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী সাঁতার কেটে ইয়াবা চোরাচালান, দেড় কোটি টাকার ইয়াবাসহ রোহিঙ্গা গ্রেপ্তার জাতিসংঘে গৃহীত রেজ্যুলেশন ও রোহিঙ্গা সমস্যা! সেন্টমার্টিনদ্বীপের সার্বিক বিষয় নিয়ে মুক্ত আলোচনা সেন্টমার্টিনের সিরাজ ও হাবিরপাড়ার বেলাল ইয়াবা মোটর সাইকেল ও নগদ টাকাসহ গ্রেপ্তার সেন্টমার্টিনদ্বীপে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান টেকনাফ ও উখিয়ায় বিদ্যুৎ থাকবেনা ডোপ টেস্টে ফাঁসলেন ৬৮ পুলিশ সদস্য টেকনাফে প্রায় ১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন উন্নয়ণমূলক কাজের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন: এমপি শাহীন আকতার

কক্সবাজারের পর্যটন শিল্প খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৭ আগস্ট, ২০২০
  • ৫২৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

শাহজাহান চৌধুরী শাহীনঃঃ দেশের পর্যটন রাজধানী কক্সবাজার। করোনায় কাবু পর্যটন শহরটিতে ফের প্রাণ ফিরেছে। করোনায় বাংলাদেশের অন্যান্য অঞ্চলের চেয়ে কক্সবাজার শহরকে সফল বলে বিবেচনা করা হয়। করোনা সংকট কাটিয়ে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতে শুরু হয়েছে। কমেছে প্রতিদিনের আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা। ফলে বিধিনিষেধ তুলে নিয়ে রেস্টুরেন্ট, হোটেল, গেস্ট হাউস, শপিংমল, সেলুনসহ সব  দোকানপাট খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে সবক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্বের বিধান মেনে চলতে হবে। গণপরিবহন ও কেনাকাটাসহ সব জনসমাগম স্থানে মাস্ক ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। রাস্তায় বেরিয়েছে মানুষ। অফিস খুলেছে। শিথিল করা হয়েছে করোনা প্রতিরোধ সংক্রান্ত বিধিনিষেধ।

কক্সবাজার করোনা মহামারী নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রয়েছে বলে জানিয়েছে কক্সবাজার স্বাস্থ্য বিভাগ। ১৭ আগষ্ট থেকে জনসমাগমের ক্ষেত্রে কিছুটা ছাড় দেওয়া হবে। ওই সময় থেকে একসঙ্গে ১০ জন মানুষ একত্রিত হওয়ার অনুমতি পাবেন। ধর্মীয় উপাসনালয় গুলোতে অনির্দিষ্ট সংখ্যক মানুষ সমবেত হতে পারবেন। একজন থেকে অন্যজনের মধ্যে অন্তত দেড় মিটার অর্থাৎ ৫ ফুট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।
গত ৫ মাসে সেখানে কাজ হারিয়েছেন ২ লাখেরও বেশি মানুষ। কর্মহীন মানুষদের কাজে ফিরিয়ে নিতে লকডাউন শিথিল করে দোকানপাট খুলে দেওয়া হচ্ছে।
সোমবার থেকে সীমিত আকারে কক্সবাজারের হোটেল, মোটেল, কটেজ, রেস্টুরেন্ট সহ পর্যটন শিল্প সম্পূর্ণ পরীক্ষামূলকভাবে খুলে দেওয়া হচ্ছে। শুধুমাত্র কক্সবাজার পৌর এলাকার পর্যটন শিল্প সম্পৃক্ত প্রতিষ্ঠান সমুহ খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।
গত ৫ আগস্ট কক্সবাজার জেলা করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কমিটির জুম কনফারেন্স সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন বলেছেন, জেলার পর্যটন শিল্পের সাথে বিভিন্নভাবে প্রায় ২ লাখ মানুষ জীবিকা জড়িত। তাদের জীবন-জীবিকার কথা চিন্তা করে সীমিত আকারে পর্যটন শিল্প খুলে দেওয়ার জন্য এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে স্বাস্থবিধি কঠোরভাবে মেনে শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পর্যটন শিল্প খুলতে হবে। মেনে চলতে হবে, এ বিষয়ে প্রণীত কর্মপন্থার সকল নিয়মাবলি। এ বিষয়ে স্টেক হোল্ডার সহ কক্সবাজারে পর্যটনশিল্পের সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে দফায় দফায় বৈঠক করে তা স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। পর্যটন শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে এবং আগত পর্যটকদের যে কোন অবস্থাতেই স্বাস্থ্য বিধি মানাতে বাধ্য করতে হবে। তারপরও কেউ স্বাস্থ্য বিধি লঙ্গন করলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। এজন্য কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে সার্বক্ষনিক তদারকি থাকবে বলে জানান জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন।
পর্যটন শিল্পের উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে উখিয়া-টেকনাফের পর্যটন শিল্পও খুলে দেওয়ার অনুরোধ কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের কাছে এসেছে-সে ব্যাপারে কি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এমন প্রশ্নের জবাবে জেলা প্রশাসক বলেন, কক্সবাজার পৌর এলাকায় পর্যটন শিল্প সীমিত আকারে খোলা থাকাবস্থায় কোভিড-১৯ এর সংক্রামণের মাত্রা ও গতি প্রকৃতি পর্যবেক্ষন করে পর্যটন শিল্পের উম্মুক্ত এলাকা আরো সম্প্রসারিত করা বা সংকুচিত করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সমুদ্র সৈকত মাস্ক ছাড়া প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। স্থানে স্থানে ব্যানার পোস্টারে টাঙানো হয়েছে।
এদিকে, দীর্ঘ প্রায় ৫ মাস পর সীমিত আকারে কক্সবাজারের পর্যটন শিল্প খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে কক্সবাজারের হোটেল, মোটেল, কটেজ, রেস্টুরেন্ট, ক্ষুদে, ভাসমান ব্যবসায়ী সহ সংশ্লিষ্ট সকলের মাঝে প্রস্তুতির ধুম পড়ে গেছে। ফিরে এসেছে কর্মচাঞ্চল্য। নিচ্ছেন, স্বাস্থ্য বিধির আলোকে বিভিন্ন ব্যবস্থা। ফিরে আসছে, কক্সবাজারের কোলাহলময় ঐতিহ্যবাহী পর্যটন শিল্পের আসল রূপ। যদিও বা পর্যটন শিল্প খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে গত এক সপ্তাহ ধরে কক্সবাজারে ব্যাপকভাবে পর্যটক আসা শুরু করেছে। আগামী অক্টোবর থেকে কক্সবাজারে পর্যটন মওসুম শুরু হওয়ার মাস দেড়েক আগে কক্সবাজারের পর্যটন শিল্প উম্মুক্ত করে দেওয়ায় পর্যটন শিল্প উদ্যোক্তারা বেশ খুশি। তারা আসন্ন পর্যটন মৌসুমের জন্য সময় নিয়ে আগাম প্রস্তুতি নিতে পারবেন।
এছাড়া, কক্সবাজার জেলা টুরিস্ট পুলিশও পর্যটক এবং পর্যটক শিল্পের সার্বিক নিরাপত্তায় বেশ প্রস্ততি নিয়েছেন বলে জানা গেছে। কক্সবাজার বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটি, রেসকিউ টিম গুলো সহ সংশ্লিষ্ট সকলে তাদের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়েছেন বলে সংশ্লিষ্ট বিভাগ সমুহ নিশ্চিত করেছেন।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT