এবার আত্মসমর্পণের শেষে সুযোগ: যদি না করেন ওপারে পাঠিয়ে দিবো: ওসি প্রদীপ

প্রকাশ: ৯ এপ্রিল, ২০১৯ ১০:৪৯ : অপরাহ্ণ

হেলাল উদ্দিন, টেকনাফ :
টেকনাফের হ্নীলায় মাদক, জঙ্গী ও সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৯ এপ্রিল বিকাল ৩টায় হ্নীলা বাসষ্টেশনে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার দাশের সভাপতিত্বে ও টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির সভাপতি সাইফুল ইসলাম সাইফীর পরিচালনায় মাদক ও সন্ত্রাস বিরোধী সমমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন উখিয়া-টেকনাফের সাবেক সাংসদ টেকনাফ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী, টেকনাফ উপজেলা কমিনিউটিং পুলিশের সভাপতি নুরুল হুদা, টেকনাফ মডেল থানার ওসি (তদন্ত) এসএম দোহা, ওসি (অপরেশন) রাকিব, হ্নীলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাষ্টার মুহাম্মদ আব্দুস সালাম প্রমূখ। বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ওলামালীগের সভাপতি ও হ্নীলা ষ্টেশন জামে মসজিদের খতিব ক্বারী মাও: ফরিদুল আলম, ইমাম মৌলভী জামাল উদ্দিন, হ্নীলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাষ্টার এরশাদুর রহমান প্রমূখ। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হ্নীলা ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আবুল হোসেন মেম্বার, মহিলা ইউপি সদস্য মর্জিনা আক্তার মেম্বার, ইউপি সদস্য ফরিদুল আলম, হোসাইন আহমদ মেম্বার, জামাল উদ্দিন মেম্বার ও সাবেক মেম্বার আলী আহমদ, আ’লীগ নেতা নজরুল ইসলাম খোকন, যুবলীগ নেতা আবুল কালাম আলম। সভায় ওসি প্রদীপ কুমার দাশ কারবারিদের কড়া হুশিয়ারী দিয়ে বলেন, যেহেতু আমি আপনাদের কষ্টের টাকায় আমার বেতন এবং সংসার চলে তাই টেকনাফ যাতে ইয়াবা মুক্ত হয় আমাদেরও দায়বদ্ধতা আছে।মাদক কারবারিদের বারে বারে বলছি মিটিং করেছি প্রতিটি ওয়ার্ডে মাদক বিরোধী কমিটি গঠন করে দিয়েছি, আপনাদের হাতে ধরছি, পায়ে ধরছি, বুঝিয়েছি, আপনারা ইয়াবা ছাড়ুন, এই মাসে পরবর্তীতে আরেকটা আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠান হতে চলছে যেসব মাদক কারবারি এখনো আত্মসমর্পণ করেননি তারা আসুন আত্মসমর্পণ করুন, নয়তো পরপারে চলে যেতে হবে। ভালো হয়ে যান সুন্দর জীবন ফিরিয়ে আসুন। ইয়াবা কারবারিরা উদ্দেশ্যে বলেন এবার আত্মসমর্পণের শেষে সুযোগ আর কোন চান্স নেই যদি না করেন আমি আপনাদের ওপারে পাঠিয়ে দিবো। টেকনাফবাসীকে ইয়াবা মুক্ত করবই করবই।আমার যা হবার তাই হবে মাদকের বিষয়ে আমি কিছুই মানবো না।আত্মসমর্পণ না করলে যা করার তাই করবো আমাকে ক্ষমা করবেন।

সভায় অধ্যাপক মোঃ আলী বলেন, টেকনাফকে ইয়াবামুক্ত করতে সবাই প্রশাসনকে সঠিক তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করুন। এলাকা ভিত্তিক ইয়াবা ব্যবসায়ী কারা তা জনপ্রতিনিধি জানেন, কিন্তু তারা ভবিষ্যতে মেম্বার-চেয়ারম্যান হওয়ার আশায় সঠিক তথ্য দিচ্ছে না। মেম্বার-চেয়ারম্যানরা চাইলে খুব সহজে ইয়াবা মুক্ত করা সম্ভব। আসুন সবাই যার যার অবস্থান থেকে মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করে হ্নীলা তথা টেকনাফকে ইয়াবা মুক্ত ঘোষনা করি।


সর্বশেষ সংবাদ