হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

টেকনাফপ্রচ্ছদ

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন, রোহিঙ্গা শিবিরে বাড়তি সতর্কতা

আবুল আলী, টেকনাফ **

আসন্ন উপজেলা নির্বাচন উপলক্ষে রোহিঙ্গা শিবিরে বাড়তি সতর্ক অবস্থা ও বিশেষ নজরদারি বাড়িয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। আগামী ২৪ মার্চ টেকনাফ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে রোহিঙ্গা শিবিরগুলো ঘিরে এ অবস্থা নেওয়া হয়েছে।

নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সব প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। নির্বাচনে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির সদস্যরা তৎপর রয়েছে।

উপজেলা চেয়ারম্যান পদে তিন প্রার্থী নির্বাচন করছেন। তারা হলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সাংসদ মোহাম্মদ আলী (নৌকা), বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আহমদ (আনারস) ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি নুরুল আলম (মোটরসাইকেল)। এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে ৮ জন, নারী পদে ৩ জন। এই উপজেলায় ভোটারের সংখ্যা ১ লাখ ৪৫ হাজার ৮০৮জন। তার মধ্যে পুরুষ ৭২ হাজার ৬৫৭ জন ও নারী ৭৩ হাজার ১৫১জন।

নির্বাচনকে ঘিরে রোহিঙ্গা শিবিরে বিশেষ নজরদারি রয়েছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) মোহাম্মদ আবুল কালাম।

তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকায় আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যাতে কোনো পক্ষই, রোহিঙ্গাদের ব্যবহার করতে না পারে, সে বিষয়ে শরণার্থী শিবিরে কঠোর নজরদারি রয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিশেষ করে যেসব রোহিঙ্গা শিবিরে অপরাধ বেড়েছে, সেখানে আইনশৃংখলাবাহিনীর টহল ও গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে।’

টেকনাফ লেদা রোহিঙ্গা শিবির কমিটির চেয়ারম্যান আবদুল মতলব বলেন, ‘রোহিঙ্গা শিবিরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর টহল বৃদ্ধি করা হয়েছে। নির্বাচনকে সমানে রেখে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তবে আগে থেকেই সব রোহিঙ্গার কাছে এ বার্তা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে, যাতে কেউ নির্বাচনী কাজে অংশ না নেয়।’

র‌্যাব-১৫ টেকনাফ ক্যাম্প ইনচার্জ লেফটেন্যান্ট মির্জা শাহেদ মাহাতাব বলেন, ‘নির্বাচনে রোহিঙ্গাদের ব্যবহার করে কেউ যেন ফায়দা নিতে না পারে, সেজন্য রোহিঙ্গা শিবিরে র‌্যাবের আলাদা দুটি দল কাজ করছে। নির্বাচনে রোহিঙ্গারা যাতে কোনো সমস্যা হয়ে না দাঁড়ায়, সে বিষয়ে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে র‌্যাব।’

সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: রবিউল হাসান বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের নির্বাচনী কাজে সম্পৃক্ত হতে দেওয়া হবে না। রোহিঙ্গা শিবিরে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। তবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে ইতোমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হচ্ছে।’

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.