টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গাদের এনআইডি কেলেঙ্কারি : নির্বাচন কমিশনের পরিচালকের বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে দুদক কর্মকর্তা বদলি সড়কের কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং! আপনি বুদ্ধিমান কি না জেনে নিন ৫ লক্ষণে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি ভোটার: নিবন্ধিত রোহিঙ্গাও ভোটার! ইসি পরিচালকসহ ১১ জন আসামি হ’ত্যার পর মায়ের মাংস খায় ছেলে ব্যাংকে লেনদেন এখন সাড়ে ৩টা পর্যন্ত আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন বাড়ল মডেল মসজিদগুলোয় যোগ্য আলেম নিয়োগের পরামর্শ র্যাবের জালে ধরা পড়লেন টেকনাফ সাংবাদিক ফোরামের সদস্য ও ইয়াবা কারবারি বিপুল পরিমাণ টাকা ও ইয়াবা উদ্ধার রোহিঙ্গাদের তথ্য মিয়ানমারে পাচার করছে জাতিসংঘ: এইচআরডব্লিউ

উখিয়ায় বাগান ধ্বংস করে পুকুর খনন

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১১৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

pic ukhiya (2) 28.9.13দীপন বিশ্বাস,উখিয়া:::কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলা সংলগ্ন হোয়াইক্যং চাক্মার খোলা গ্রামে কোটি টাকা ব্যয়ে ৫ একর জায়গার উপর গড়ে তোলা নান্দনিক ফলজ, বনজ ও ঔষুধী গাছের বাগান ধ্বংস করে অবৈধ উপায়ে মাছ চাষের নামে পুকুর খনন করে জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। বনরেঞ্জ কর্মকর্তা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বনভূমি দখল ও গাছ কেটে পরিবেশ ধ্বংস করার দায়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে। যেহেতু উক্ত ভূমি নিয়ে দু’পরে দ্বন্ধ রয়েছে জায়গাটি ব্যক্তি মালিকানাধীন কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরীর পতœী কক্সবাজার মহিলা চেম্বারের সভাপতি জাহানারা ইসলাম চৌধুরী অভিযোগ করে জানান, হোয়াইক্যং বনরেঞ্জের ভিলেজারি সূত্রে প্রাপ্ত ৫ একর জায়গা আবাদ করে প্রায় কোটি টাকা বিনিয়োগের মাধ্যমে ১৯৯৪ সাল থেকে এ পর্যন্ত ২৭ হাজার প্রজাতির বিপুল পরিমাণ ফলজ, বনজ, ঔষুধী গাছের চারা লাগানো হয়। যেসব গাছ থেকে দীর্ঘদিন ধরে এলাকাবাসী বিভিন্ন সুফল ভোগ করে আসছিল। তিনি জানান, প্রতিপ লতিফ আনোয়ার চৌধুরী তাদের স্বত্ত্ব দখলীয় জমি দাবী করে গত এক মাস ধরে শত শত শ্রমিক দিয়ে বাগানের মুল্যবান ঔষুধী গাছ-গাছালি সাবাড় করে ৭/৮টি পুকুর খনন অব্যাহত রেখেছে। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ করা হলেও বন ও পরিবেশ মন্ত্রী ড.হাসান মাহমুদের নাম ভাঙ্গিয়ে লতিফ আনোয়ার চৌধুরী প্রভাব বিস্তার করে বাগান নিধন করে যাচ্ছে।
বিতর্কিত ভূমিটি বনবিভাগের কিনা জানতে চাইলে হোয়াইক্যং বনরেঞ্জ কর্মকর্তা মহি উদ্দিন নির্বিচারে বাগান ধ্বংস করার কথা স্বীকার করে বলেন, উক্ত জায়গাটি পরিমাপ করে যদি বনরেঞ্জের জায়গা প্রমাণিত হয় তাহলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ব্যাপারে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বরাবরে একজন দ সার্ভেয়ার চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত পালংখালী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মো: ইব্রাহিম জানান, একটি নান্দনিক ও ট্যুরিজম প্রকল্পের আদলে ফলজ, বনজ, ঔষুধী গাছের বাগান করে মাছ চাষের পুকুর খনন দু:খজনক।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত লতিফ আনোয়ার চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, জায়গাটি তাদের পৈতৃক সম্পত্তি। তাই মৎস্য চাষের জন্য পুকুর খনন করা হচ্ছে। বর্তমানে ৭টি পুকুর খনন করার কথা স্বীকার করে বলেন, বাগানের চাইতে মাছ চাষ করলে অনেক মানুষের কর্মসংস্থান হবে এবং এলাকার আমিষ জাতীয় খাদ্যের চাহিদা পূরণ হবে। তিনি বলেন, বিষয়টি আমাদের একান্তই পারিবারিক ব্যাপার। ###

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT