টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

উখিয়ায় চৌকিদারের কর্মকান্ডে অতিষ্ট গ্রামবাসী: ইউএনও অফিসের সামনে বিােভ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১০৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

দীপন বিশ্বাসpic -ukhiya 11.9.13:::: কক্সবাজারের উখিয়ায় এক চকিদারের অনৈতিক কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে স্থানীয় গ্রামবাসীরা গতকাল বুধবার বিকাল ৩টায় উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে বিােভ প্রদর্শন ও স্মারকলিপি পেশ করেছে। অভিযোগে তারা উল্লেখ করেন, উখিয়া উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আব্দু রশিদ বান্ডুর ছেলে চকিদার আবু ছিদ্দিক দীর্ঘদিন ধরে এলাকার বিভিন্ন মহিলার সাথে অনৈতিক কার্যকলাপে জড়িয়ে পড়ে। ইতোপুর্বে ঐ চকিদারের বিরুদ্ধে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন চৌধুরী শালিসি বৈঠকের মাধ্যমে ঘটনা নিষ্পত্তি করেন। এর পরও থেমে থাকেনি তার অনৈতিক কর্মকান্ড। বিগত ২০০৯ সালের ১০ জানুয়ারী জালিয়াপালং ইউনিয়নের ডেইল পাড়া আশ্রায়ন কেন্দ্রের বাসিন্দা ছৈয়দ আলমের স্ত্রী জনৈক ছেনুয়ারা বেগমকে শীলতা হানী ও অনৈতিক কর্মকান্ড করার চেষ্টা চালায়। এই ঘটনা জানাজানি হলে স্থানীয় গ্রামবাসীরা ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের নিকট একটি অভিযোগ দায়ের করেন। উক্ত চকিদারের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানকে নালিশ দেওয়ার কারণে জনৈক ছেনুয়ারা বেগমের স্বামী ছৈয়দ আলমকে একটি মানব পাচার মামলায় আসামী হিসাবে ঢুকিয়ে দেন। উক্ত বিােভ ও স্বারক লিপি প্রদান কালে ডেইল পাড়া আশ্রায়ন কেন্দ্রের বাসীন্দারা ছৈয়দ আলম, সাহাব মিয়া, আবুল কাশেম,জাহাঙ্গীর আলম,ছেনুয়ারা বেগম, সাবেকুন্নাহার, খালেদা বেগম জানান, ওই লম্পট চৌকিদার আবু ছিদ্দিকের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির দাবী করেন। ওই সব ঘটনা এলাকায় জানাজানি হলে চৌকিদার কর্তৃক নানান ভাবে হয়রানির শিকার হতে হয়। জালিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের ১০জন সদস্য স্বারিত একটি দরখাস্ত কক্সবাজার জেলা প্রশাসক বরাবর দেন।

উখিয়ার সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঃ গত ৮মাসে ৩২৪৯জন রোহিঙ্গা পুশব্যাক নিজস্ব প্রতিবেদক                    ১১সেপ্টেম্বর কক্সবাজারের উখিয়ার বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে প্রতিদিন শত শত মিয়ারমার নাগরিক অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালিয়ে আসছে। সীমান্ত এলাকায় বিজিবি জোয়ানরা কঠোর নজরদারী থাকা সত্বেও এত বেশী রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ করায় সীমান্তবর্তী এলাকায় বসবাসকারী লোকজনদের ভাবিয়ে তুলেছে। অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালীর ছত্রছায়ায় থাকা কিছু দালাল টাকার বিনিময়ে মিয়ানমার থেকে নিয়ে আসছেন রোহিঙ্গাদের। কক্সবাজারের ১৭ বিজিবির অধিনে ৫টি বিওপি ক্যাম্প ও একটি চেকপোষ্ট রয়েছে বলে বিজিবির দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। স্থানীয় এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, সীমান্ত এলাকায় আরো ২/৩টি বিওপি ক্যাম্প স্থাপন করলে অনেকটায় রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ বন্ধ হতে পারে। পাশাপাশি চোরাচালান ও আইন শৃংখলা পরিস্থিতি ঠিক থাকবে। বিগত বছরের তুলনায় এই বছর রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ বৃদ্ধি পেয়েছে। কারণ মিয়ানমারে জাতিগত দাঙ্গার অজুহাত দেখিয়ে আরকান রাজ্য থেকে বিপুল পরিমাণ মিয়ানমারের অবৈধ নাগরিক এদেশে ঢুকেছে। এইখান থেকে বেশীর ভাগ কুতুপালং রোহিঙ্গা বস্তিতে আশ্রয় নেন। চলতি বছরের জানুয়ারী থেকে আগষ্ট পর্যন্ত ৩ হাজার ২’শ ৪৯ জন মিয়ানমার নাগরিক বিজিবির হাতে আটক হন। পরে খাদ্য ও মানবিক সাহায্য সহযোগীতা দিয়ে স্বদেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে ১৭ বিজিবি অপারেশন অফিসার মেজর মেফতাফ উদ্দিন জানিয়েছেন। ১৭ বিজিবি সুত্রে জানা যায় জানুয়ারী মাসে ৪’শ ৯৯ জন, ফেব্রে“য়ারী মাসে ৪’শ ২৮ জন, মার্চ মাসে ২’শ ৩৩ জন, এপ্রিল মাসে ২’শ ৬১ জন, মে মাসে ১’শ ৫০ জন, জুন মাসে ৪’শ ২৭ জন, জুলাই মাসে ৫’শ ১০ জন ও আগষ্ট মাসে ৬’শ ২৭ জন।

উখিয়ায় বিজিবি’র অভিযানে মিয়ানমারের সুপারী জব্দ নিজস্ব প্রতিবেদক                    ১১সেপ্টেম্বর কক্সবাজার-টেকনাফ আরকান সড়কের মরিচ্যা যৌথ চেকপোষ্টের বিজিবি জোয়ানরা একটি যাত্রীবাহি গাড়িতে তল্লাসি চালিয়ে মিয়ানমার থেকে আসা বিপুল পরিমান সুপারী জব্ধ করে। মরিচ্যা যৌথ চেকপোষ্টের সুবেদার নুরুল ইসলাম জানান, গতকাল বুধবার সকালে টেকনাফ থেকে কক্সবাজার গামী যাত্রীবাহি গাড়ীতে তল্লাশি চালিয়ে এসব সুপারী জব্দ করা হয়েছে। যার আনুমানিক মুল্য লাধিক টাকা বলে বিজিবি জানিয়েছেন।

দীপন বিশ্বাস নিজস্ব সংবাদদাতা,উখিয়া ০১৮১৮৫৪০০৫৮

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT