টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে অপরাধিরা সক্রিয়

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ৬ অক্টোবর, ২০১৩
  • ১৪৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

..........টেকনাফ নিউজ ডেস্ক:::ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে কক্সবাজার জেলাব্যাপি অপরাধিরা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এর ফলে সড়ক পথে চলাচলকারি, ঈদ বাজারগামি মানুষ এবং পরিবহন চালক-মালিকরা আতংকে রয়েছে।
জানা গেছে, ঈদুল আযহাকে টার্গেট করে অপরাধিরা সড়ক পথে, পাহাড়ে ও গ্রামিণ জনপদের স্বাবলম্বি মানুষদের ঘরে-ঘরে ডাকাতি, সন্ত্রাসি এবং অপহরণ করে মুক্তিপন আদায় বাণিজ্যে নেমেছে।
এদিকে কক্সবাজারের রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নে এক যুবক অপহরণের শিকার হয়েছে। পরে মুক্তিপন দিয়ে ওই যুবক ছাড়া পায় বলে খবর পাওয়া গেছে।
জানা গেছে, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের মোহাম্মদ ছৈয়দ করিমের পুত্র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম (২২)’কে ৩ অক্টোবর মধ্য রাতে একদল সন্ত্রাসী অপরহণ করে ঈদগড় ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি এলাকা হাসনাকাটার পুর্নগ্রামে নিয়ে যায়। ওই যুবককে নির্মম নির্যাতন চালিয়ে আটক রাখা হয়। পরে ওইসব সন্ত্রাসীরা যুবকের পিতাকে মোবাইল ফোনে ৭৫ হাজার টাকা মুক্তিপন দাবি করে এবং ওই টাকা তারা বিকাশের মাধ্যমে চায়।
হতভাগা পিতা আদরের ছেলেকে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে বাঁচাতে তাদের কথামত দাবিকৃত টাকা পরদিন অর্থ্যাৎ ৪ অক্টোবর বিকাশে পাঠায়। এ ঘটনায় অপহরণকারি তাহের মোবাইলে জাহাঙ্গীরের বাবা থেকে মুক্তিপন দাবি করে। আর ছেলেকে বাঁচাতে দাবিকৃত টাকা পাঠালে ওই টাকা নুরুল হুদা বিকাশ থেকে উঠায়।
এদিকে অপহরণের কবল থেকে ওই যুবক মুক্তি পেলেও অপহরনকারি সন্ত্রাসীরা দাবিকৃত টাকা পেয়ে কৌশলে সটকে পড়ে।
অভিযোগ পাওয়া গেছে, এ ঘটনা শীর্ষ অপরাধি ঈদগড় হাসনাকাটা এলাকার পুর্নগ্রামের মোহাম্মদ বন কালুর পুত্র আবু তাহের, মোহাম্মদ করিমের পুত্র ফরিদ মিয়া ও মোহাম্মদ শফির পুত্র নুরুল হুদা সংগঠিত করে। তারা ওই বাড়িতে ডাকাতি করতে এসে ব্যর্থ হয়ে ওই্ যুবককে অপহরন করে মুক্তিপন বাণিজ্য করেছে।
জানা গেছে, চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় চলছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হচ্ছে। কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে এলাকায় অপহরণ ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপে এলাকাবাসি ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।
এ ব্যাপারে অপহরণকারি ও সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার করার জন্য পুলিশ সুপার, রামু থানা ও ঈদগড় পুলিশ ফাঁড়ির হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।
এদিকে আমাদের পেকুয়া প্রতিনিধি জানিয়েছেন, পেকুয়ায় এক স্কুল ছাত্র অপহৃত হয়েছে। সে কেজি প্রথম শ্রেনীর ছাত্র। তাকে বাড়ি থেকে স্কুলে আসার পথে সকালে অপহরণকারীরা অপহরণ করে সিএনজিতে তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। গতকাল তার মুক্তিপন দাবীতে মায়ের মুঠোফোনে অপহরনকারীরা ৩৫ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবী করেছে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত গতকাল শনিবার রাত ৯টা পর্যন্ত তাকে উদ্ধার করা যায়নি। অপহৃত স্কুল ছাত্রের নাম তারেকুর রহমান বাবু (৮)। সে উপজেলার  সদর ইউনিয়নের পূর্ব গোঁয়াখালী গ্রামের সৌদি  প্রবাসী মহিউদ্দিনের ছেলে এবং পেকুয়া মডেল কেজি স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্র বলে জানা গেছে।
এদিকে ওই স্কুল ছাত্র অপহৃত হওয়ায় এলাকায় আতংক দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে গতকাল সন্ধ্যায় অপহৃত ছাত্র বাবুর চাচা জসিম উদ্দিন (২৮) বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা অপহরণকারীদের বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় একটি এজহার দায়ের করেছেন।
এজাহার সূত্রে জানা যায়, পেকুয়া মডেল কেজি স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্র তারেকুল রহমান বাবু সকাল ৮টায় দিকে গোয়াখালী নিজ বাড়ি থেকে বিদ্যালয়ে আসছিল। পথিমধ্যে সদর ইউনিয়নের  সিকদার পাড়া গ্রামের জাকের হোসেন চৌধুরীর বাড়ির সামনে এলে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিরা তাকে সিএনজিতে তুলে নিয়ে যায়। পরে অপহরণকারী চক্র ওই দিন পৃথক সময়ে ৩টি মোবাইল (যার নং-০১৮২৭৩৯৩২৯৬/০১৭৪৯-০৭৭২১১) থেকে তারা ওই ছাত্রের মা তাহেরা বেগমের  মোবাইলে  (০১৮১২-৮৪৫০৯২) ফোন করে ৩৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছে। এমনকি (কাল) আজ রবিবার সন্ধ্যার মধ্যে দাবীকৃত টাকা না দিলে ওই ছাত্রকে হত্যা করা হবে বলে তার মা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।
ওই ছাত্রের মা মোতাহেরা বেগম বলেন, বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে সিকদার পাড়া গ্রাম থেকে তিনজন অপহরণকারী সিএনজি টেক্সীতে তুলে আমার ছেলে তারেককে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এরপর বিকাল ৩টা ১৫ মিনিটে আমার মোবাইলে ফোন করে ৩৫লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীর একজন। অপহরণকারীরা শনিবার রাতের মধ্যে ৩৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ জোগাড় করতে বলে। আর রোববার সকাল ১০টায় আমাকে ফোন করে টাকা পৌঁছানোর ঠিকানা বলে দিবে বলে ০১৮২৭৩৯৩২৯৬/০১৭৪৯-০৭৭২১১ নম্বর থেকে জানায়। এরপর ফোনের লাইন কেটে দেন ওই অপহরণকারী।
পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঈন উদ্দিন আহমেদ বলেন, এ ঘটনায় বাদীর এজহার পাওয়ার পর মামলা রেকর্ড় করা হয়েছে। যার মামলা নং (০১/১৩)। – See more at: http://dainandincox.com/archives/33747#sthash.cKFZDFKU.dpuf

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT