টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে টেকনাফে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফ্রিং টেকনাফের ফাহাদ অস্ট্রেলিয়ায় গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী সম্পন্ন করেছে নিখোঁজের ৮ দিন পর বাসায় ফিরলেন ত্ব-হা মিয়ানমারে পিডিএফ-সেনাবাহিনী ব্যাপক সংঘর্ষ ২শ’ বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস বিল গেটসের মেয়ের জামাই কে এই মুসলিম তরুণ নাসের রোহিঙ্গাদের এনআইডি কেলেঙ্কারি : নির্বাচন কমিশনের পরিচালকের বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে দুদক কর্মকর্তা বদলি সড়কের কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং! আপনি বুদ্ধিমান কি না জেনে নিন ৫ লক্ষণে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি ভোটার: নিবন্ধিত রোহিঙ্গাও ভোটার! ইসি পরিচালকসহ ১১ জন আসামি হ’ত্যার পর মায়ের মাংস খায় ছেলে

ঈদগাঁও-চৌফলদন্ডী-খুরুস্কুল যোগাযোগ সেতু নিয়ে চলছে জোট-মহাজোটের স্নায়ু যুদ্ধ!

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১১৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

এম. আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও:::::Sagar pictur দীর্ঘ প্রতিার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে ঈদগাঁও-চৌফলদন্ডী-খুরুস্কুল যোগাযোগ সেতুটি নিয়ে চলছে জোট-মহাজোটের স্নায়ু যুদ্ধ। এমনকি চৌফলদন্ডী সেতু নির্মাণ কাজ জোট আমলে শুরু হলেও শেষ হয়েছে মহাজোট আমলে শীর্ষক বিভিন্ন প্রিন্ট মিডিয়ায় রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। এই নিয়ে দু’জোটের তর্ক-বিতর্কের শেষ নেই। বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা এই বহু প্রতিতি সেতুটি উদ্বোধন করেন। সেতুটি উদ্বোধনের ফলে সাত ইউনিয়নের সাড়ে চার লাধিক জনগোষ্ঠী নানা সুফল পাচ্ছে। ৩ সেপ্টেম্বর উখিয়া জনসভা থেকে এ বহুল আলোচিত সেতুটি উদ্বোধন করলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। একাধিক সূত্রে প্রকাশ, ২০০৪ সালে ১১মে বহুল প্রতিতি এই সেতুটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়। কিন্তু বেশ কিছু নির্মাণের পর ২০০৭ সালে সেতুর কাজ ফের বন্ধ হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে সরকার জনদাবী বিবেচনা করে ২০১০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর পুনরায় বন্ধ হওয়া সেতুর কাজ শুরু করেন। কাজ প্রায় শেষ হয় চলতি বছরের ২৮ জুন। প্রায় ১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত দীর্ঘমিটার সেতুটি বাস্তবায়ন করেছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। যার ফলে, সদরের সাত ইউনিয়নের সাথে জেলা ও থানা সদরের ১৫ কিলোমিটার দুরত্ব কমবে। পাশাপাশি সেতু দিয়ে যাতায়াত কারী জনগণের সময় বাঁচবে এবং অর্থনৈতিক ভাবেও লাভবান হবে। প্রাপ্ত তথ্যে আরো জানা যায়-জেলা পরিষদ প্রসাশক ও সাবেক সংসদ সদস্য খান বাহাদুর মোস্তাক আহম্মদ চৌধুরী ১৯৯৬ সালে তৎকালীন স্থানীয় সরকারে মন্ত্রী (সদ্য মৃত্যু বরণ করা রাষ্ট্রপতি) জিল্লুর রহমানের কাছে আবেদন করেন। কিন্তু এটি বিশাল ব্যয় সাপেে হওয়ায় বিষয়টি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় হতে যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়। পরিশেষে দীর্ঘ বছর পর মোস্তাক আহম্মদ চৌধুরীর বিশেষ আন্তরিক চেষ্টার ফল ফসল হিসেবে নির্মাণ কাজ শুরু হয় বলে জানা যায়। অন্যদিকে জানা যায়, বিগত চারদলীয় জোট সরকারের সময় সাবেক যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী সালাহ উদ্দিন আহমদ কক্সবাজারের সাথে চট্টগ্রামে দূরত্ব কমিয়ে কক্সবাজার জেলার সার্বিক উন্নয়নের চিন্তায় চট্টগ্রাম, আনোয়া, বাঁশখালী, পেকুয়া, বদরখালী, চৌফলদন্ডী হয়ে কক্সবাজার পর্যন্ত একটি আঞ্চলিক মহা সড়কের কাজ শুরু করে ছিলেন। সে আঞ্চলিক মহা সড়কের আওতায় চৌফলদন্ডী খালে একটি টেকসই সেতুর পরিকল্পনা করা হয়েছিল বলে জানা গেছে। তৎকালীন যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী সালাহ উদ্দিন আহমদ সেই সেতুর নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেছিলেন। ২০০৩ সালের শেষের দিকে কক্সবাজার সদরের তৎকালীন এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ শহিদুজ্জামান চৌফলদন্ডী, খুরুস্কুল সেতু নির্মাণ প্রকল্পটি প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্র“ত অগ্রাধিকার প্রকল্পের অন্তর্ভূক্ত করেছিলেন। ৪ এপ্রিল ২০০৪ সালে এই চৌফলদন্ডী সেতুর ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপনের ফলন উম্মোচন করেছিলেন তৎকালীন যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী সালাহ উদ্দিন আহমদ।   ———————————

ঈদগাঁওতে ভূইফোড় চিকিৎসকদের ডিগ্রীর বাহার!

এম. আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও তারিখঃ ১৫-০৯-১৩ ইং ঈদগাঁওতে নিবন্ধন বিহীন দন্ত টেকনিশিয়ানরাও ডাক্তার। দন্ত চিকিৎসালয়গুলো একদিকে যেমন অনুমোদনহীন, অন্যদিকে নেই ডাক্তারী ফিটনেস ও বিএমডিসির নিবন্ধন। ডাক্তার টেকনিশিয়ানরা চিকিৎসকের সহকারী থেকে যত সামান্য অভিজ্ঞতা নিয়ে ডাঃ ডেন্টাল সার্জন পরিচয় দিয়ে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে চিকিৎসা সেবার নামে বৃহত্তর ঈদগাঁও তথা বিশাল এলাকার সহজ-সরল অসহায় রোগীদের সাথে প্রতারনা চালিয়ে যাচ্ছে। এসব ভূইফোড় চিকিৎসকদের হাতে প্রতারিত হচ্ছে গ্রাম থেকে আসা লোকজন। নানা রংয়ের বাহারী কালারের সাইনবোর্ড লাগিয়ে আগে ডাঃ এবং ডেন্টাল সার্জন লিখে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছে হরদম। খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, ঈদগাঁওতে প্রায় অর্ধ ডজনেরও বেশী ডেন্টাল কেয়ার রয়েছে। কথিত ডাঃ টেকনিশিয়ানরা বাহারী ডিগ্রি দিয়ে চেম্বার খুলে গ্রামাঞ্চলের অসহায় রোগীদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। ঈদগাঁওতে অনেক টেকনিশিয়ান নামের আগে ডাঃ লিখে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছে। অনেকের আবার বিএমডিসির নিবন্ধন ও নেই বললে চলে। সরেজমিনে দেখা গেছে, ঈদগাঁও ডিসি রোড়ে অর্ধ ডজন দন্ত চিকিৎসালয় রয়েছে। এদের কারো কারো সরকারী অনুমোদন ও ডিএমডিসির নিবন্ধন নেই বলে জানা যায়। নির্ভরযোগ্য সু্্এে প্রকাশ, বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের আইন অনযায়ী জেনারেল চিকিৎসার জন্য এমবিবিএস এবং দন্ত চিকিৎসার জন্য বিডিএস ডিগ্রি ধারীরাই কেবল ডিএমডিসি থেকে নিবন্ধিত হয়ে চিকিৎসা সেবা দিতে পারবেন। কিন্তু ঈদগাঁওতে আধুনিক চেম্বার খুলে ডাঃ নামধারী টেকনিশিয়ানরাও কেউ কেউ ডিটিডি, সিডিএস, বিডিএ, ডিএসটিডি, বিডিএস, এইচএসবি ইত্যাদি ডিগ্রি দিয়ে সাইন বোর্ড লাগিয়েছে। সাধারণ মানুষ তাদের ডিগ্রি দেখে প্রতিনিয়ত হিমশিম ও হতবাক হচ্ছে। অথচ এসব ডাক্তারগণ স¤পূর্ন অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছে বলে একাদিক সূত্রে প্রকাশ। কেউ কেউ বলছেন শুধু দাঁত ওয়াশ করি আমরা। তাই দন্ত চিকিৎসকদের এমন ঢাহা মিথ্যা প্রচারণা ও নিবন্ধন বিহীন ডেন্টাল কেয়ারের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে সিভিল সার্জনের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন বিশাল এলাকার অসহায় জনগোষ্ঠী। —————————- ঈদগাঁও’র মেহেরঘোনায় চলছে জমজমাট জুয়ার আসর ঈদগাঁও প্রতিনিধি তারিখঃ ১৫-০৯-১৩ ইং সদর উপজেলার ঈদগাঁও’র মেহেরঘোনায় দিবারাত্রি চলছে জমজমাট জুয়ার আসর। এই নিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের মাথা ব্যাথা নেই বলে অভিযোগ তুলেন সচেতন এলাকাবাসী। জানা যায়, দীর্ঘকাল ধরে ঈদগাঁও ইউনিয়নের মেহেরঘোনা নামক এলাকায় উপরের মসজিদের পার্শ্ববর্তী দোকানগুলোতে দিবারাত্রি জুয়ার আসর চলে প্রতিনিয়ত। স্কুল, মাদ্রাসা চলাকালীন সময়েও বীরদর্পে এধরণের অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছে এলাকা কতিপয় যুবকদ্বয়। এ বিষয়ে স্থানীয় সূধী মহলে কোন তৎপরতা দেখা যাচ্ছে না। ঈদগাঁও ফরিদ আহমদ ডিগ্রী কলেজের মাঠে উত্তর কর্ণারে মসজিদের পার্শ্ববর্তী স্থানে বিকাল বেলায় জুয়ার আসর চলছে বলে খবর পাওয়া যায়। এলাকার সচেতন যুবকদ্বয় এই অন্যায় মূলক কর্মকান্ডে বাধা প্রদান করলেও এ কাজে কোন প্রকার ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে না। এ ব্যাপারে এলাকার যুবক, মুরব্বি সমাজ ও কোমলমতি শিার্থীদের মতে, এরকম দিন দুপুরে হীনকর্মকান্ড চলতে থাকলে এই এলাকার পরিবেশ একেবারেই দূষিত হয়ে পড়বে। এর প্রতিকার চেয়ে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এস.আই নাছিরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এধরণের অপরাধ কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত আছে। তবে এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছেন।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT