টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

ঈদগাঁও’র সব খবর ……..পোকখালীতে শিক কর্তৃক ছাত্রকে ব্যাপক বেত্রাঘাতের অভিযোগ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১১২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

এম. আবুহেনা সাগর, এস,এম তারেক ঈদগাঁও:::: সদর উপজেলার পোকখালীতে এক শিক কতৃক ছাত্রকে ব্যাপক বেত্রাঘাতের গুরুত্বর অভিযোগ তুলেছেন একদল ছাত্র। জানা যায়, ১৪ সেপ্টম্বর সকাল সাড়ে ১১টায় পোকখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক কতৃক ইসলাম শিা কাস নেওয়ার সময় অষ্ঠম শ্রেণীর ছাত্র শাহে এমরান রানা (১৩), যার রোল নং- ১০। তাকে বেয়াদবী করার অজুহাতে ব্যাপক বেত্রাঘাত করে অত্র বিদ্যালয়ের এক শিক। ঐ ছাত্রের পিঠে প্রচুর বেতের দাগ দেখা গেছে। এব্যাপারে পোকখালী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিযুক্ত শিকের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি, তার ছাত্র রানার শরীরে জ্বর উঠাকে কেন্দ্র করে ২/১টি বেত্রাঘাত করার সত্যতা স্বীকার করেন। ————————– ঈদগাঁওতে জনসেবা চিকিৎসক ফোরামের কমিটি গঠন এম. আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও তারিখঃ ১৪-০৯-১৩ ইং সদর উপজেলার ঈদগাঁওতে জনসেবা চিকিৎসক ফোরামের আহবায়ক কমিটি গঠন উপল্েয ১৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে ঈদগাঁও বাজারের অস্থায়ী কার্যালয়ে ডাঃ সিরাজুল মোস্তফা নূরীর সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় সকলের সম্মতিক্রমে ডাঃ সিরাজুল মোস্তফা নূরীকে আহবায়ক, ডাঃ বজলুর রহিম সাহেদকে সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক, ডাঃ উত্তম কুমার মলিক, ডাঃ শওকত ওসমান, মিন্টু নাথ, বিপব রুদ্র, আবদুস ছালাম, হেফাজত উলাহ, খালেদা আক্তার ও ডাঃ শিমুল কান্তি দে কে সদস্য সচিব মনোনীত করা হয়। ঐ সভায় আহবায়ক কমিটি গঠনের দু মাসের মধ্যে সম্মেলনের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

ইসলামাবাদে মেঝ ভাইয়ের হত্যার হুমকিতে ঘর ছাড়া অপর ভাইয়েরা: অভিযোগ দায়ের এম. আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও তারিখঃ ১৪-০৯-১৩ ইং সদর উপজেলার ইসলামাবাদে মেজ ভাই কতৃক হত্যার হুমকিতে অপর ভাইদের ঘরছাড়া করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এনিয়ে কক্সবাজার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্টেট আদালতে অভিযোগ দায়ের করা হয়। জানা যায়, ইসলামাবাদ ইউনিয়নের পশ্চিম বোয়ালখালী এলাকার মৃত নজির আহম্মদ (সওঃ)’র মেজ পুত্র কতৃক তার আপন ভাইদ্বয় কাসেম, সাদ্দাম, মনছুর ও সিদ্দিকের বসতবাড়ীটি গত ৩১অক্টোবর সকালে তালা ভেঙ্গে বাড়ীতে ঢুকে ভাংচুর করে। তার পাশাপাশি বসত বাড়ী ভাংচুর করার পরও মেঝ ভাই ান্ত না হয়ে তারই ছোট ভাই সাঈদ মোহাম্মদ সাদ্দামকে প্রকাশ্যে হত্যা করে লাশ গুম করার হুমকি দেয়। আবুল কালাম সম্প্রতি সৌদি আরব থেকে এসে ভাইদের প্রতি প্রতিহিংসা হয়ে এধরনের হীন কর্মকান্ড চালাতে দেখে অপর ভাইয়েরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। এছাড়াও বড় ভাই আবুল কাসেমের দুই অসহায় পুত্রকে দাদার দানকৃত সম্পত্তি নিয়ে কালাম ুগিত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে সাঈদ মোহাম্মদ সাদ্দাম নিরাপত্তা ও সম্পদ রার স্বার্থে কক্সবাজার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্টেট আদালতে একটি অভিযোগ দায়ের করে। যার নং-৬২/১৩। অপরদিকে স্থানীয় মেম্বার উমর আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে, তিনি মৃত নজির আহম্মদের পুত্রদের মাঝে পারিবারিক বিরোধ চলছে বলে জানান। ============= চৌফলদন্ডী- মহেশখালী নৌ-পথে ফেরী সার্ভিস চালুর দাবী এম আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও ১৪-০৯-২০১৩ইং পর্যটক, স্থানীয়দের ভীতিমুক্ত ও সময়-অর্থ সাশ্রয়ের লে  চৌফলদন্ডী- মহেশখালী নৌ পথে ফেরী সার্ভিস চালুর দাবী জানিয়েছেন  এলাকাবাসী। ঐ নৌ পথে ফেরী চালু করলে নিরাপদে দীপাঞ্চলে  যাতায়াত করতে পারবে লোকজন। তাছাড়া পর্যটকদের জন্য বিশেষ সুবিধা জনক মাধ্যাম হবে। অন্যদিকে,চৌফলদন্ডী- খুরুশকুল- কক্সবাজারের গ্রামীন যোগাযোগ সড়কটির আমুল পরিবর্তন ঘটবে বলে জানান অনেকে। জানা যায়, বিগত ৩ সেপ্টেম্বর  মহাজোট সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপকূল বাসির দীর্ঘদিনের স্বপ্ন চৌফলদন্ডী যোগাযোগ সেতু উদ্ভোধনের মধ্যে দিয়ে ঈদগাঁও- কক্সবাজার আঞ্চলিক সড়কের যাত্রা শুরু হয়েছে। এদিকে চৌফলদন্ডী সেতু সংলগ্ন হতে দ্বীপ উপজেলা খ্যাত মহেশখালী – গোরকঘাটা খুবই কাছাকাছি। এ নৌ পথে কোন মোহনা কিংবা উত্তাল ঢেউ নেই। তাই উক্ত স্থানে ফেরী সার্ভিস চালু করলে, সর্বশ্রেণীর লোকজনের যাতায়াত, ব্যবসা বানিজ্য সহ ব্যাপক েেত্র উপকার হবে এমন মন্তব্য পথচারী সহ স্থানীয় জনদের। অন্যদিকে, পর্যটন নগরী কক্সবাজারে বিভিন্ন দেশের লোকজন ভ্রমনে আসে। পর্যটকেরা বৃহত্তম সমুদ্র সৈকতের আনন্দ উপভোগের পরপরই মহেশখালী আদিনাথ দর্শন করতে যায়। কিন্তু তাদের কে চকরিয়া হয়ে বহুদূর অতিক্রম করে বহু টাকা ব্যয়ের মাধ্যমে মহেশখালীতে যেতে হয়। যদি চৌফলদন্ডী- মহেশখালী নৌ পথে ফেরী সার্ভিস চালু হয়, তাহলে অল্প সময়ে নদীর মাঝ পথে ভ্রমনের মধ্যে দিয়ে পর্যটকেরা মহেশখালীতে অনায়াশে ঘুরে আসতে পারবে। ঠিক একই মত পোষণ করে দৈনিক আজকের কক্সবাজারকে চৌফলদন্ডী ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলম জানান, ফেরী চালু হলে সর্বধিকে উপকৃত হবে এলাকাবাসী। এ ব্যাপারে যথাযত কতৃপরে সুনজর কামনা করেছেন বিশাল এলাকার জনগোষ্ঠি। অন্যদিকে রাখাইন সম্প্রদায়ের এক ব্যবসায়ী জানান, এই নৌ-পথে ফেরীর সার্ভিস চালু হলে সকল ব্যবসায়ীদের সুবর্ণ সুযোগ সৃষ্টি হবে।  ——————————

ঈদগাঁও’র ৬ ইউনিয়নের প্রত্যান্ত গ্রামাঞ্চলে সড়ক-উপসড়কে ২১ মাসে একাধিক সড়ক দূর্ঘটনা এম. আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও তারিখঃ ১৪-০৯-১৩ ইং সদর উপজেলার বৃহত্তর ঈদগাঁওতে বিগত বছর এবং চলতি বছরের নয় মাসে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক সহ ৬ ইউনিয়নের প্রত্যান্ত গ্রামাঞ্চলের সড়ক-উপসড়কে একাধিক ছোট-বড় সড়ক দূর্ঘটনায় প্রায় হতাহতের সংখ্যা শতাধিকের বেশী বলে জানা যায়। এদিকে ঈদগাঁও ফরিদ আহমদ ডিগ্রি কলেজ গেইটস্থ ব্রীজ থেকে মেহের ঘোনা এলাকায় বহু সড়ক দূর্ঘটনায় ছোট-বড় হতাহতের ঘটনা থেমে নেই। এসব সড়ক দূর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে নানা স্থানে গাড়ি ভাংচুর সহ সড়ক অবরোধের মত ঘটনাও ঘটেছে। খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, এ দূর্ঘটনার প্রধান কারণ কতিপয় চালকদের বেপরোয়া গাড়ি চালনা। ঈদগাঁও থেকে হিল লাইন, সীলাইন, ঈদগাঁও লাইন, চান্দের গাড়ি, মাহিন্দ্রা, মাইক্রোবাস, সিএনজি, টমটম সহ অধিক যানবাহনে ফিটনেস না থাকায় সড়ক দূর্ঘটনা দিনের পর দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমনকি সড়ক দূর্ঘটনায় পতিত হয়ে স্ত্রী তার আদরের স্বামীকে হারাচ্ছে, মা তার প্রিয় সন্তানকে হারাচ্ছে, ছেলে বাবাকে হারাচ্ছে এবং ভাই-বোনকে হারিয়ে বাকরুদ্ব কন্ঠে বসে থাকতে হচ্ছে অনেক পরিবারকে। এ ছাড়া মহাসড়কের ঈদগাঁও বাসষ্টেশনস্থ লাল ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায় সম্প্রতি সড়ক দূর্ঘটনায় সেনা সদস্য সহ দু’জন গুরুতর আহত হয়েছিল। অন্যদিকে বাসষ্টেশনে দূরপাল্লার যানবাহন সৌদিয়া, শ্যামলী, হানিফ, তিশা, ঈগল ও পূর্বানী পরিবহনের কাউন্টার থাকায় ঢাকা চট্টগ্রামের দূরপাল্লার যানবাহন গতি নিয়ন্ত্রন করতে গিয়ে দূর্ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে ঈদগাঁও ফরিদ আহমদ ডিগ্রি কলেজের মেধাবী শিার্থী আসমা ও লূৎফা সহ একাধিক শিার্থীদের মতে, মহাসড়ক দিয়ে পারাপার হয়ে কলেজে আসা যাওয়া করতে ভীষম আতংক বোধ করছি। এ আতংক কাটতে যা যা করণীয় তার দ্রুত ব্যবস্থা করার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানাচ্ছি। অপরদিকে রামু কলেজের ছাত্র এস.এম রুবেল উদ্দীন এ প্রতিনিধিকে জানান, সড়ক দূর্ঘটনার মত ভয়াবহ আতংক আর কতকাল? এ আতংক থেকে আমরা এলাকাবাসী কবে মুক্তি পাব। ———————————–

ঈদগাঁওতে বাড়ছে দখল বাণিজ্যঃ পাহাড় কাটার মহোৎসব এম. আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও তারিখ ঃ ১৪-০৯-১৩ইং দখল বাণিজ্যে বন্দি সদর উপজেলার বৃহত্তর ঈদগাঁওয়ের সবুজ পাহাড় গুলো। বাংলাদেশের ঐতিহ্য বহনকারী কিছু স্থানের অন্যতম হল কক্সবাজার। তবে ঐতিহ্যবাহী এ পাহাড় এখন তার ঐতিহ্য প্রতিনিয়ত হারাতে বসেছে। এক শ্রেণীর ভূমিদস্যু বন ও পাহাড় খেকোর লোলুপ দৃষ্টিতে ধ্বংস হচ্ছে পাহাড়টি, শ্রী হারাচ্ছে শাল-গজারী, কড়ই-গামারী আর সেগুন বাগান। স্বাধীনতার পর থেকে নব্বই দশক পর্যন্ত কক্সবাজারের পাহাড় এলাকা ছিল নির্জন, সবুজ শাল, গজারী, মহুয়া, কড়ই, সেগুন ঘেরা বন ভূমির মতই নীরব ও শান্ত। কিন্তু নব্বই দশক পেরিয়ে দু হাজার সালের শুরুতেই অশান্তিতে পরিণত হয়ে উঠতে থাকে এ পাহাড় ভূমি। প্রাপ্ত তথ্যে প্রকাশ, এক শ্রেণীর ভূমি দস্যু এবং দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিশেষ করে নাফ নদী পাড়ি দিয়ে পালিয়ে আসা (রোহিঙ্গা) ভূমিহীন লোকজন কক্সবাজারের বিভিন্ন পাহাড়ী এলাকায় এসে অবৈধভাবে বন ও পাহাড় দখল করে বসতি স্থাপন করছে। এদের কেউ কেউ স্থানীয় উপজাতি কিংবা রোহিঙ্গা সমাজ।  ভূমি গায়ের জোরে দখল করে বসতি স্থাপন করে যাচ্ছে একের পর এক। এদিকে বন বিভাগের প থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করার পরও ফের এসব ঘর বাড়ি নির্মান করে বসতি স্থাপন করে যাচ্ছে নির্বিঘেœ। আবার কেউ কেউ সরকারী খাস জমি অবৈধভাবে নানা কৌশলে নিজের নামে রেকর্ড করে ফেলে। এমনকি বনভূমি ও সবুজ পাহাড় দখলে মেতে উঠছে। তবে সবচেয়ে বেশি দখল বাণিজ্য হচ্ছে বৃহত্তর ঈদগাঁও তথা ৬ ইউনিয়নের আওতাধীন এলাকা গুলোতে। অপরদিকে বৃহত্তর ঈদগাঁও তথা জালালাবাদ, ইসলামাবাদ, ইসলামপুর, পোকখালী, চৌফলদন্ডী, ভারুয়াখালী সহ ঈদগাঁও’র বিভিন্ন স্থানে পাহাড় দখলে মেতে উঠছে কতিপয় মহল। এমনকি এসব এলাকা গুলোতে  দিন দুপুরে পাহাড় কেটে সাবাড় করলেও সংশ্লিষ্ট বিভাগের লোকজন রহস্যজনক কারণে নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করায় জনমনে নানান প্রশ্নের সৃষ্টি হচ্ছে। এতে চরম ভাবে পরিবেশ বিপর্যয়ের আশংকায় রয়েছে স্থানীয়রা। বিশাল এলাকার পরিবেশ বাদীদের মতে, বৃহত্তর ঈদগাঁওতে  সবুজ পাহাড় খেকো এবং পাহাড় কাটার মহোৎসব কারীদের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক চিহ্নিত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবী জানান। ঈদগাঁওতে থামছে না জাল আইডি কার্ড তৈরী ও সনদ টেম্পারিং

 

এস. এম. তারেক, ঈদগাঁও, কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওতে থামছে না জাল ভোটার আইডি কার্ড তৈরী ও সনদ টেম্পারিং। প্রশাসনের নাকের ডগায় দিব্যি এসব অবৈধ কর্মকান্ড সংগঠিত হলেও তারা দিনরাত শুধু নাকে তেল দিয়ে ঘুমাচ্ছেন। বৃহত্তর ঈদগাঁও’র অনাচে কানাছে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কথিত কম্পিউটার সেবা প্রদানকারী দোকান গুলোতে এসব নকল ভোটার আইডি কার্ড তৈরী ও সনদ টেম্পারিং জালিয়তির ঘটনা ঈদগাঁওতে  বলতে গেলে  এখন ওপেন সিক্রেট। আইডি কার্ড জালিয়তির মাধ্যমে চক্রটি হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। যাদের ভোটার আইডি কার্ড নেই বিশেষ করে ওইসব লোকজন এসব প্রতিষ্ঠান সমুহে এসে ধরনা দিচ্ছেন। হুবুবু দেখতে একই রকম এসব নকল  আইডি কার্ড বিশেষ ভাবে পর্যবেক্ষন না করলে আসল নকল পরখ করার কোন জো নেই। সরকারী চাকুরী থেকে শুরু করে রাষ্ট্রীয় প্রায় সকল কাজে ব্যবহার হচ্ছে এসব জাল ভোটার আইডি কার্ড। নাম প্রকাশ না করার শর্তে, ঈদগাঁও বাজারের এক কম্পিউটার দোকানের অপারেটরের মতে ভোটার আইডি কার্ড নকল করাকে তিনি অপরাধ মূলক কর্মকান্ড হিসেবে স্বীকৃতি দিতে নারাজ। তার বক্তব্য হলো এসব আইডি কার্ড তৈরী করে বরং  তিনি মানুষকে  নানা ভাবে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন । তার  ভাষায় একজন লোক কোন কারনে যদি তার আইডি কার্ডটি হারিয়ে ফেলে, তবে সেক্ষেত্রে আরেকটি আসল আইডি কার্ড পেতে লোকটির অনেকদিন অপেক্ষা করতে হবে ও দীর্ঘ ঝামেলার মুখোমুখি হতে হবে। এক্ষেত্রে সে এসব কম্পিউটারের দোকান থেকে খুব সহজে ও কম সময়ে একটি আইডি কার্ড তৈরী করে নিতে পারে এবং তার কাজটিও সহজে সমাধান করতে পারবে। এতে দোষের কি আছে? এসব কম্পিউটারের দোকান সমুহ শুধু জাল আইডি কার্ডই তৈরী করে না বিভিন্ন প্রকার সনদ জালিয়তির কাজটিও তারা অতি সুক্ষœ ভাবে সম্পাদন করে থাকে। কম্পিউটারে বিশেষ কায়দায় নাম ঠিকানা রিমোভিং করে হুবুহু আসলের  মতো তারা সনদ বানিয়ে দিতে পারে এক মুহুর্তের মধ্যে। জাল সনদ পত্র ব্যবহার করে কেউ কেউ স্বীয় স্বার্থ হাছিল করতে পারলেও অনেকেই আবার প্রতারণার শিকার হচ্ছেন।  এসব অবৈধ জাল আইডি কার্ড ও সনদ জালিয়তদের বিরুদ্ধে জরুরী ভিত্তিতে ব্যবস্থা গ্রহন করা দরকার বলে মনে করছেন এলাকার সচেতন মহল। অন্যথায় এদর কারনে লোকজন বিভিন্ন ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে বলে আশংকা করছেন ভোক্তভোগীরা। জাল আইডি কার্ড ও সনদ জালিয়তি রোধ করতে ব্যবস্থা নেয়া হবে কিনা এ ব্যাপারে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের আইসি মনজুর কাদের ভুইয়ার  নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, খোঁজ খবর নিয়ে দায়ী ব্যাক্তিদের চিহ্নিত পূর্বক আমরা তাদের বিরুদ্ধে শীঘ্রই  প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করব। শুধু পদক্ষেপ গ্রহনই শেষ কথা নয় সংশ্লিষ্ট সকলকে এ ব্যাপারে আরো বেশী সচেতন ও যতœবান হওয়ার পাশাপাশি উপস্থাপিত কাগজ পত্র গুলো সঠিক কিনা তা যাচাই বাছাই করে  দরকার বলে মনে করছেন অভিজ্ঞ মহল। ১৪ সেপ্টেম্বর’১৩

 

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT