টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

ইয়াবা মানে ‘আনন্দ’ ‘স্মার্টনেস’

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৭ আগস্ট, ২০১৩
  • ১১৩২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

yeaba2’নিয়মিত ডিজেতে (ডিস্ক জকি) যাই আমি। সেখানে রাতভর বন্ধুদের সঙ্গে এনজয় করতে ভালো লাগে। ডিজেতে গিয়ে প্রথমে সিগারেট, বিয়ার ও সিসা খাই। পরে বন্ধুরা জানায় যে, ইয়াবা খেলে নাকি কোনো ক্লান্তি ও ঘুম আসে না। ট্রাই করি। প্রথমে দু-একটি খেলেও ধীরে ধীরে আনন্দ পেতে আরও ইয়াবা নিতে থাকি। এখন দিনে ৫-৬টি ইয়াবা ছাড়া আমার চলে না।’ নাম-পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে কথাগুলো বলছিলেন রাজধানীর এক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। এ শিক্ষার্থীর আরেক বন্ধু বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের আইটি কর্মকর্তা বলেন, ‘বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিতে গিয়ে কৌতূহলের বশে একদিন ইয়াবা নেই। ভালো লাগা থেকে পরবর্তীতে ডোজ বাড়াতে থাকি। মাসের প্রথমে বেতন পেলে দিনে ৭-৮টি ইয়াবাও খাওয়া হয়। কিন্তু হাত খালি থাকলে ধার করে বা বন্ধুদের খাওয়ানোর অনুরোধ করি। আমি রাতে ঘুমাতে পছন্দ করি না। রাত জেগে ফেসবুক ইউজ করি। বলা যায়, ইয়াবা ছাড়া এখন আমার আর চলে না।’ রাজধানীর বিশ্ববিদ্যালয়গুলো বিশেষ করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষার্থীদের যখন এ দশা তখন আরও ভয়াবহ চিত্র দেখা গেল ইংরেজি মাধ্যমের শিক্ষার্থীদের। ধানমন্ডির নামকরা কয়েকটি স্কুলের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, ইয়াবা খাওয়া নাকি তাদের এক প্রকার ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। ইয়াবা নিলেই নাকি তাদের স্মার্টনেস প্রকাশ পায়! ইংরেজি মাধ্যমের এক শিক্ষার্থী বলে, ‘ইয়াবা নিতে আমার জোস লাগে। কোনো বন্ধুর জন্মদিনে যে কোনো সিসা লাউঞ্জ বা কোনো বন্ধুর প্রাইভেট কারে করে কোথাও বেড়াতে যাওয়ার নাম করে প্রায়ই ইয়াবা খাওয়া হয়।’ ইয়াবা কেনার টাকার উৎস জানতে চাইলে এ শিক্ষার্থী জানায়, হাতখরচের টাকা দিয়েই নাকি সে ইয়াবা খায়। তবে এ শিক্ষার্থীরা শুধু যে ইয়াবা গ্রহণ করছে তাই নয়, তারা ইয়াবার মতো ভয়াবহ মাদক ব্যবসার সঙ্গেও জড়িয়ে পড়ছে। আর এমনটাই দেখা গিয়েছে সম্প্রতি নিহত পুলিশ দম্পতি মাহফুজুর রহমান ও স্বপ্না রহমানের মেয়ে ঐশী রহমানের ক্ষেত্রে। সে রাজধানীর অঙ্ফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে পড়ত। নিয়মিত ডিজে পার্টিতে যাতায়াত করত সে। অসৎ সঙ্গের খপ্পরে পড়ে সে ইয়াবা গ্রহণের পাশাপাশি বাকি সময় ইয়াবা বিক্রিতেও জড়িয়ে পড়ে। নগরীর বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইংরেজি মাধ্যমের স্কুলের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তারা অধিকাংশই রাত জেগে ইন্টারনেট ব্যবহার, মোবাইলে কথোপকথন, ডিজি পার্টিসহ অন্যান্য কাজ করেন। এ কারণে তারা ঘুম এড়াতে প্রথমে ইয়াবার ব্যবহার শুরু করলেও এক সময় তা আসক্তিতে পরিণত হয়। সাধারণত নগরীর ডিজে পার্টিগুলো চলে রাত ৪টা অবধি। এ সময়ে ক্লান্তিহীন ও নিদ্রাহীন আনন্দ-ফুর্তি করতে ডিজেতে আগতরা ইয়াবা গ্রহণ করে থাকেন।

রাজধানীর এক মাদক ব্যবসায়ী জানান, তার কাছে কমবেশি নগরীর কিশোর-কিশোরী থেকে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণ-তরুণীরা এলেও আর্থিক সচ্ছলতার কারণে ইংরেজি মাধ্যম ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তুলনামূলক অন্যদের চেয়ে বেশি ইয়াবা কিনতে আসেন। তবে পরিচিত ছাড়া মাদক ব্যবসায়ীরা অপরিচিত ক্রেতার কাছে পুলিশের কাছে ধরা খাওয়ার ভয়ে ইয়াবা বিক্রি করতে চান না। অন্যদিকে সহজে বহনযোগ্য ও সহজলভ্য হওয়ায় ক্রেতাদের কাছেও এখন ইয়াবার চাহিদা বেশি। মাদক বিশেষজ্ঞরা জানান, কৈশরে সিগারেট দিয়ে শুরু হলেও মাদকাসক্ত বন্ধুদের পাল্লায় পড়ে একজন মাদকাসক্ত ব্যক্তি পরবর্তীতে ‘হার্ড কোর ড্রাগ’ সেবন শুরু করেন। এ সময় তারা ফেনসিডিল, ইয়াবা, গাঁজা, হেরোইন ইত্যাদি সেবনে জড়িয়ে পড়েন। মূলত স্কুল ও কলেজগামীদের টার্গেট করে ইয়াবা তৈরি করা হয়। ইয়াবা আকৃতিতে ছোট, এর গন্ধ স্ট্রবেরির মতো, দেখতেও রঙিন এবং আকর্ষণীয়। ফলে কমবয়সীরা সহজেই ইয়াবায় আসক্ত হয়। প্রথমে ১টি ট্যাবলেট খাওয়ার পর একজন ব্যবহারকারীর মধ্যে যে প্রতিক্রিয়া দেখা দেয় তা পুনঃরায় অনুভব করতে সেবনকারীরা আরও বেশি ইয়াবা সেবনে আগ্রহী হন। সেবনকারীর মধ্যে সেবনের ‘টলারেন্স ডেভেলপ’ করলে একসঙ্গে ৫-৬টি ইয়াবা খেতে চান।। মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্র লাইট হাউসের কনসালটেন্ট ডা. জসীম চৌধুরী বলেন, নেশা সহজলভ্য হওয়ায় দেশের ১৩ থেকে ১৮ বছর বসয়ী শিশু-কিশোরদের মাদকে আসক্ত হয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। এক্ষেত্রে সরকার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে মাদকদ্রব্য সাপ্লাই বন্ধ করার বিষয়ে সতর্ক হতে হবে। এ বিষয়ে সামাজিক সচেতনতা বাড়াতে হবে। সন্তানরা কাদের সঙ্গে মিশছে এবং মাদক খাচ্ছে কিনা সে বিষয়ে নজর রাখতে হবে। মাদকদ্রব্য সেবন করলে সংশ্লিষ্টদের কাছে কাউন্সিলিং করাতে হবে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT