টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে টেকনাফে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফ্রিং টেকনাফের ফাহাদ অস্ট্রেলিয়ায় গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী সম্পন্ন করেছে নিখোঁজের ৮ দিন পর বাসায় ফিরলেন ত্ব-হা মিয়ানমারে পিডিএফ-সেনাবাহিনী ব্যাপক সংঘর্ষ ২শ’ বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস বিল গেটসের মেয়ের জামাই কে এই মুসলিম তরুণ নাসের রোহিঙ্গাদের এনআইডি কেলেঙ্কারি : নির্বাচন কমিশনের পরিচালকের বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে দুদক কর্মকর্তা বদলি সড়কের কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং! আপনি বুদ্ধিমান কি না জেনে নিন ৫ লক্ষণে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি ভোটার: নিবন্ধিত রোহিঙ্গাও ভোটার! ইসি পরিচালকসহ ১১ জন আসামি হ’ত্যার পর মায়ের মাংস খায় ছেলে

ইয়াবার ছোবলে বিপন্ন তরুণ সমাজ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৩
  • ১৫৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
নিজস্ব প্রতিবেদক 401776_1015

 নিষিদ্ধ হওয়ার পরও বাংলাদেশে থেমে নেই ইয়াবার রমরমা ব্যবসা। সহজলভ্য হওয়ায় নিষিদ্ধ ড্রাগ ফেনসিডিলের চেয়ে ইয়াবা সেবীদের সংখ্যা অনেকগুণ বেড়ে গেছে। তরুণ সমাজকে লক্ষ্য করে একটি চক্র ইয়াবার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। গত এক বছরে ইয়াবা সেবনকারীদের হাতে কমপক্ষে ৪৩ জন নিহত হয়েছেন। আর এক বছরে প্রায় ১৬ লাখ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। একইসঙ্গে এ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শীর্ষ ব্যবসায়ীসহ অনেককে গ্রেফতারও করা হয়েছে।
ইয়াবা একটি থাই শব্দ। এর বাংলা অর্থ পাগলা ওষুধ। এটি মেথঅ্যাম্ফিটামিন ও ক্যাফেইনের মিশ্রনে তৈরি হয়। এর সঙ্গে আবার কখনো হেরোইনও মেশানো হয় যা স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক হুমকিস্বরূপ। ফলে ইয়াবা সেবনে মৃত্যু পর্যন্তও হতে পারে। ১৯৯৮ সালে বাংলাদেশে এই মাদকের আবির্ভাব ঘটে। মূলত এরপর থেকেই ইয়াবার মরণ থাবায় ছেয়ে যায় গোটা দেশ।
ইয়াবার থাবা বর্তমানে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল ও বিভিন্ন বয়সের ব্যক্তিদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে। বিশেষ করে তরুণ সমাজ ইয়াবার প্রতি বেশি ঝুঁকে পড়েছে। আর তাদেরকে লক্ষ্য করে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী এই নিষিদ্ধ মাদকের রমরমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।
এক জরিপে দেখা গেছে, গত এক বছরে মাদকসেবী সন্তানের হাতে ২৭ পিতা-মাতা নিহত ও ১৬ নারী তার স্বামীর হাতে নিহত হয়েছেন। সম্প্রতি পুলিশ দম্পতির মাদকসেবী মেয়ে ঐশীর বিরুদ্ধেও মা-বাবাকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।
লিগ্যাল ও মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক এটিএম হাবিবুর রহমান বলেন, ‘গত এক বছরের পরিসংখ্যানে দেখা গেছে আমরা যে পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করেছি সেটা ফেনসিডিলের দ্বিগুণ। আর এ সংখ্যা থেকে আমরা অনুমান করছি যে দেশে ইয়াবা আসক্তি বাড়ছে। ইয়াবা ব্যবসায়ীরা প্রধানত তরুণ সমাজকে টার্গেট করে। আর তরুণ সমাজের মধ্যে শিক্ষার্থীরা ফোকাস থাকে।”   তিনি জানান, পূর্ব, পশ্চিম এবং দক্ষিণ-পূর্ব এই তিনটি রুট থেকে ইয়াবা সরবরাহ বেশি। কোট একটি অংশে নয় সমগ্র দেশে আমাদের মাদক বিরোধী অভিযান চলছে, চলবে। আমরা দেশের সব অঞ্চল থেকেই মোটামুটি মাদকদ্রব্য উদ্ধার করি।’
এছাড়া ইয়াবা চোরাচালানের বিভিন্ন লোকেশন নির্ধারণ করাসহ ইয়াবার আগ্রাসন বন্ধে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT