টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

আনন্দের মাঝেও শঙ্কা: কী হবে ঈদের পরে

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ১০ আগস্ট, ২০১৩
  • ১৪৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ঈদের ছুটি শেষ শনিবার৷ রোববার থেকে স্বাভাবিক কাজকর্ম শুরু করবেন দেশের মানুষ৷ ছুটি শেষ হওয়ার পর পরই জামায়াতের টানা ৪৮ ঘণ্টার হরতাল৷ বিরোধী দল বিএনপি’র কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারির বিপরীতে সরকারের দাবি না মানতে অনড় অবস্থান৷

শুক্রবার ঈদের দিনেও সাধারণ মানুষের মধ্যে ছিল আশঙ্কা৷ তাই যারা ঈদগায় নামাজ পড়তে গেছেন, তাদের প্রধান চাওয়া ছিল দেশের রাজনৈতিক সংকট যেন কেটে যায়৷ দেশ যেন মুক্ত হয় সংঘাত-সংঘর্ষের হাত থেকে৷

সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আবারও সংবিধান সংশোধন করে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা পুনর্বহালের দাবি জানিয়েছেন৷ তিনি বলেছেন, কোনো দলীয় সরকারের অধীনে তারা নির্বাচনে যাবেন না৷ আর হতেও দেবেন না৷ নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে যদি নির্বাচনে সবার জন্য সমান সুযোগ নিশ্চিত হয়, তাহলে তারা কোনো আন্দোলন করবেন না৷ অন্যথায় কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে দাবি আদায় করবেন৷

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় সবাইকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বলেছেন৷ তিনি আবারো বলেছেন, নির্বাচন হবে সংবিধান অনুযায়ী৷ কোন অযৌক্তিক দাবি মেনে নেয়া হবে না৷ তার মতে, বিরোধী দল সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে৷

আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক এবং বন ও পরিবেশমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ঈদের পর পরই সারা দেশে সরকারের উন্নয়ন নিয়ে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা শুরু হবে৷ এখন ঢাকায় বিলবোর্ডের মাধ্যমে যে প্রচার চালানো হচ্ছে, এটা সরকার করছে৷ কিন্তু আওয়ামী লীগ আরো বড় আকারে ঢাকাসহ সারাদেশে প্রচার চালাবে৷ বিরোধী দলের অপপ্রচারের জবাব দেয়া হবে৷ আর দলকে নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত করা হবে৷

অন্যদিকে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন জানান, সরকারকে আর সময় দেয় হবে না৷ তাদের অনেক সময় দেয়া হয়েছে৷ ঈদের পরই তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি আদায় করতে সর্বশক্তি নিয়ে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়বেন তারা৷ সরকার যদি যৌক্তিক দাবি মেনে না নেয়, তাহলে রাজপধে দাবি আদায়ের কোন বিকল্প নেই৷ তিনি বলেন, সরকার একদলীয় শাসনের দিকে যাচ্ছে৷

ঈদের পর শুরু হচ্ছে জামায়াতের হরতাল৷ হাইকোর্ট তাদের নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণার প্রতিবাদে ১৩ ও ১৪ আগস্ট তারা এই হরতাল পালন করবে৷ বিএনপি তাদের হরতালে এখনো সমর্থন না দিলেও বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, কোনো দলের নিবন্ধন বাতিল বা নিষিদ্ধের বিপক্ষে তারা৷

সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন’র সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, এখন প্রধান ইস্যু আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন কোন ব্যবস্থার অধীনে হবে৷ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অক্টোবরে সংসদ ভেঙে দেয়ার কথা বলেছেন৷ তাই সময় আছে মাত্র দেড় মাস৷ এই সময়ের মধ্যেই সমস্যার সমাধান করতে হবে৷ কারণ নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা নিয়ে যদি কোনো সমঝোতা হয়, তাহলে সংবিধান সংশোধনের প্রয়োজন হবে৷ কিন্তু সংসদ ভেঙে দেয়ার পর সংবিধান সংশোধন সম্ভব হবে না৷ তখন বিরোধী দল রাজপথেই সমাধান খুঁজবে৷ তার মতে, রাজপথের সমাধান সংঘাতময় হবে এটাই স্বাভাবিক৷ সূত্র: ডিডব্লিউ।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT