টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গারা কন্যাশিশুদের বোঝা মনে করে অধিকতর বন্যার ঝূঁকিপূর্ণ জেলা হচ্ছে কক্সবাজার টেকনাফে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে ৩০ পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার জমি ও ঘর হস্তান্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বারদের দায়িত্ব নিয়ে ডিসিদের চিঠি আগামীকাল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন (তালিকা) বাংলাদেশ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান টেকনাফ উপজেলা কমিটি গঠিত: সভাপতি, সালাম: সা: সম্পাদক: ইসমাইল আজ বিশ্ব শরণার্থী দিবস মিয়ানমারে ফেরা নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রোহিঙ্গারা ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান বন্ধের সিদ্ধান্ত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতদিন আছে, ততদিন ক্ষমতায় আছি: হানিফ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ

আওয়ামী লীগ সরকার সম্প্রীতিতে বিশ্বাস করে: প্রধানমন্ত্রী

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১১৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ramu-folok-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম’:::প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার সম্প্রীতিতে বিশ্বাস করে। বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের সার্বিক নিরাপত্তা জোরদার করতে তার সরকার সকল উদ্যোগ নেবে। প্রধানমন্ত্রী তাদের পাশে থাকারও ঘোষণা দেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এক সময় স্ব-পরিবারের রামু ভ্রমণে এসে তিনি মুগ্ধ হয়েছিলেন। এখন নতুন নকশা ও শৈলীতে বিহার নিমার্ণ হয়েছে। এতে পর্যটন শিল্পের বিকাশ হবে। এসময় তিনি কক্সবাজারের পর্যটন শিল্পের বিকাশের আরো উন্নয়নমুখি কাজ করার ঘোষণা দেন।

সীমা বিহার উদ্বোধন শেষে সম্মেলন কক্ষে বৌদ্ধ ধর্মীয় নেতাদের সাথে সুধী সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী উল্লেখিত বক্তব্য রাখেন।

এ সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন বৌদ্ধ ধর্মীয় নেতা সংঘরাজ ধর্ম সেন মহাথের, রামু সীমা বিহারের অধ্যক্ষ সত্যপ্রিয় মহাথের। এ সময় তারা প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বৌদ্ধ বিহারের স্থায়ী নিরাপত্তা বিধানের জন্য প্রশাসনের বিশেষ সেল বসানোর দাবী জানান, একই সঙ্গে ২৯ সেপ্টেম্বর ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।

এদিকে এর আগে রামু মৈত্রী বিহার উদ্বোধন শেষে সেখানে সেনাবাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী।

সেনাসদস্যের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আন্তরিকতার সাথে কাজ করার কারণে স্বল্প সময়ের মধ্যে এসব বিহারের কাজ সমাপ্ত করা সম্ভব হয়েছে। এ জন্য তিনি সেনা সদস্যদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, দেশ ও জাতির কল্যাণে তাদের ভূমিকা রয়েছে। এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান তিনি।

এর আগে তিনি কক্সবাজারের রামুতে গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর ধ্বংস হওয়া ১০টি বৌদ্ধ বিহার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টার যোগে রামু রাবার বাগান সংলগ্ন হেলি প্যাডে অবতরণ করেন।

সেখান থেকে গাড়ী যোগে তিনি রামু উত্তর মিঠাছড়িস্থ  বিমুক্তি বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রে পৌঁছলে তাকে স্বাগত জানান পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান (প্রতিমন্ত্রী) বীর বাহাদুর এমপি ও ভাবনা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ করুনা শ্রী ভিক্ষু।

এছাড়া সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল ইকবাল করিম ভূইয়া, নৌবাহিনী প্রধান ভাইস অ্যাডমিরাল মহাম্মদ ফরিদ হাবিব ও ১৭ ইসিবির অধিনায়ক লে.কর্ণেল জুলফিকার রহমান উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এ সময় ভাবণা কেন্দ্রে যান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দিন খান আলমগীর, শিল্প মন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া, পরিবেশ ও বনমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ, আমেরিকার রাষ্ট্রদূত ড্যান ম্যাজিনা, ভারতের রাষ্ট্রদূত পংকজ শরণ এবং রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকসান্ডর নিকোলোয়েভ।

ভাবনা কেন্দ্রে পৌঁছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১০০ ফুট দৈর্ঘ্য মূর্তি ও ভাবনা কেন্দ্র ঘুরে দেখেন। সেখানে প্রধানমন্ত্রীকে বিহার নির্মাণের একটি ভিডিও চিত্র দেখান সেনাবাহিনীর সদস্যরা। এরপরে প্রধানমন্ত্রী সেখানে স্থাপিত ভাবনা কেন্দ্রসহ ১০টি বৌদ্ধ বিহারের ফলক উন্মোচন করেন।

উদ্বোধন হওয়া অপর বিহারগুলো হল রামু উপজেলার লালচিং বিহার, সাদা চিং বিহার, আর্য্যবংশ বৌদ্ধ বিহার, অপর্ণাচরণ বৌদ্ধ বিহার, উচাই সেন বিহার, তেজবন বৌদ্ধ বিহার, বন বিহার, অজান্তা বৌদ্ধ বিহার ও বিবেকারাম বৌদ্ধ বিহার।

দুপুর ২ টার দিকে হেলিকপ্টার যোগে ইনানী রেস্ট হাউসে পৌঁছেন। সেখানে থেকে হেলিকপ্টার যোগে উখিয়ায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় ভাষণ ছাড়াও সমাবেশস্থলে কক্সবাজার জেলার অর্ধ শতাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করবেন।

 

 

 

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT