টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

আওয়ামী লীগের জনসভায় বন্দর বাঁচানোর ডাক…মহিউদ্দিন চৌধুরী

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১২
  • ২০৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নগরীর লালদিঘী ময়দানে রোববার বিকেলে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের জনসভায় বন্দর রক্ষায় সবাইকে সোচ্চার হবার আহ্বান জানিয়েছেন নেতারা। আওয়ামী লীগের ব্যানারে জনসভা হলেও বন্দর রক্ষা পরিষদসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন ও ১৪ দলের নেতারা এতে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন।
সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ডাকে বন্দর রক্ষা পরিষদের উদ্যোগে এ জনসভা হওয়ার কথা ছিল। তবে শেষ মুহূর্তে বন্দর রক্ষার জনসভা থেকে পিছিয়ে নগর আওয়ামী লীগের ব্যানারে মহাজোট সরকারের উন্নয়নে বাধা সৃষ্টিকারীদের প্রতিহত করতে এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবিতে জনসভার আয়োজন করা হয়। কিন্তু জনসভার প্রায় পুরোটা জুড়েই ছিল বন্দর নিয়ে আলোচনা।
জনসভায় এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী বন্দরের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ওপর আমাদের আস্থা আছে। তিনি নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে সচিবকে বদলি করেছেন। চিঠি দিয়ে টেন্ডারের কার্যক্রম বন্ধ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আইন অনুযায়ী টেন্ডারের কাজ শেষ হবে। আমি অপেক্ষায় আছি।”
মহিউদ্দিন উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে বলেন, “চট্টগ্রাম বন্দর কিংবা চট্টগ্রামের স্বার্থের পরিপন্থী কিছু হলে আমি চুপ করে বসে থাকব না। আমি অবশ্যই প্রতিবাদ করব। আমার ভুল হতে পারে। আমি ভুল করলে আপনারা অবশ্যই সংশোধন করে দেবেন।”
তিনি বলেন, “সাইফ পাওয়ার টেক দিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরকে জিম্মি করার চক্রান্ত হচ্ছে। সাইফ পাওয়ার টেক একটি অযোগ্য, অথর্ব, সন্ত্রাসী প্রতিষ্ঠান। এ প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে বন্দরকে জিম্মি করার চক্রান্ত আমরা রুখে দেব।”

তিনি বলেন, “জঙ্গিরা চট্টগ্রামকে তাদের কেন্দ্রবিন্দু বানাতে চায়। তারা চট্টগ্রামকে টার্গেট করে বিভিন্ন পরিকল্পনা করছে। কিন্তু চট্টগ্রামবাসী প্রাণ থাকতে জঙ্গিদের মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে দেবে না। যারা জঙ্গিদের সহায়তায় বিভিন্ন কর্মকাণ্ড করছে তাদের বিচারও চট্টগ্রামের মাটিতে হবে।”

মহিউদ্দিন বলেন, “চট্টগ্রামের বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে যেসব লোক বসে আছেন, তারা বিভিন্ন অন্যায় করছেন। তারা অযোগ্যতার পরিচয় দিচ্ছেন। জনগণের উপর তারা জুলুম করছেন। এতে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে।”

নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে জনসভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ইনামুল হক দানু, ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু হানিফ, ন্যাপ মহানগর সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল মোমেন ভুঁইয়া, নগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম চৌধুরী, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাজিমউদ্দিন শ্যামল, বন্দর সিবিএ’র সাধারণ সম্পাদক অহিদুল্লাহ সরকার, বন্দর রক্ষা পরিষদের যুগ্ম-মহাসচিব আব্দুল আহাদ, কাউন্সিলর নিছার আহমেদ মঞ্জু।

জনসভায় কাজী ইনামুল হক দানু বলেন, “আমরা আওয়ামী লীগ করি। আমাদের দল ক্ষমতায়। সরকার কোন ভুল করলে সেই ভুলের কথা জানানো আমাদের দায়িত্ব। আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা। তার নির্দেশ যিনি মানবেন না তার দল করার অধিকার নেই।”

তিনি বলেন, “এবার শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর বন্দরের জন্য ডা. আফছারুল আমিন, সিডিএতে নগর আওয়ামী লীগের ক্যাশিয়ার আব্দুচ ছালামকে দায়িত্ব দেন। সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ছিলেন মহিউদ্দিন ভাই। প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছা ছিল, এ তিনজন মিলেমিশে চট্টগ্রামের উন্নয়ন করবেন।”

তিনি বলেন, “কিন্তু দুঃখের সঙ্গে কিছু কথা বলতে চাই, শুরু থেকেই ষড়যন্ত্র শুরু করে মাফিয়াগোষ্ঠী। তাদের কারণে প্রধানমন্ত্রী নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে ডা. আফছারুল আমিনকে সরিয়ে দিতে বাধ্য হন। পরবর্তীতে মেয়র নির্বাচনে সেই মাফিয়া গোষ্ঠী, রাজাকার, আলবদর, জঙ্গি মদদদাতারা মিলে শত কোটি টাকার ষড়যন্ত্রের ফাঁদ পাতেন। সেই ফাঁদে কুপোকাত হন মহিউদ্দিন চৌধুরী। এ ষড়যন্ত্রের সঙ্গে দলের ভেতরের, বাইরের এবং দেশি-বিদেশি চক্রান্তকারীরা জড়িত ছিলেন।”

দানু উপস্থিত জনতার উদ্দেশে বলেন, “আপনারা জানেন, কিছুদিন আগে সিডিএর নির্মাণাধীন ফ্লাইওভারের গার্ডার ভেঙে পড়েছে। এ গার্ডার ভেঙে পড়ে যদি মানুষ মারা যেত তাহলে দায় হত সরকারের ও প্রধানমন্ত্রীর। এর দায় সিডিএতে যিনি বসে আছেন তাকে নিতে হবে।”

সভায় মহানগর পিপি ও উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাড. কামালউদ্দিন আহমদ বলেন, “এ বন্দর সীমানা দিয়ে দশ ট্রাক অস্ত্র এসেছিল। বন্দরকে কোনো একক প্রতিষ্ঠানের কাছে জিম্মি করে দেওয়া হলে আবারও এ ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে। বন্দরকে কারও কাছে জিম্মি হতে দেয়া যাবে না।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

One response to “আওয়ামী লীগের জনসভায় বন্দর বাঁচানোর ডাক…মহিউদ্দিন চৌধুরী”

  1. jahangir says:

    assalmu alaikum , Mohiuddin SHAHEB ??? aage desh bachao , bondor na,,,,, je khane 4000 koti taka kichu naa bolse ? amader montri mohadey ???????????

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT