টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ মাদক কারবারি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত সাংবাদিক আব্দুর রহমানের উদ্দেশ্যে কিছু কথা! ভারী বৃষ্টির সতর্কতা, ভূমিধসের শঙ্কা মোট জনসংখ্যার চেয়েও ১ কোটি বেশি জন্ম নিবন্ধন! বাড়তি নিবন্ধনকারীরা কারা?  বাহারছড়া শামলাপুর নয়াপাড়া গ্রামের “হাইসাওয়া” প্রকল্পের মাধ্যমে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ ও বার্তা প্রদান প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে টেকনাফে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফ্রিং টেকনাফের ফাহাদ অস্ট্রেলিয়ায় গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী সম্পন্ন করেছে নিখোঁজের ৮ দিন পর বাসায় ফিরলেন ত্ব-হা মিয়ানমারে পিডিএফ-সেনাবাহিনী ব্যাপক সংঘর্ষ ২শ’ বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস বিল গেটসের মেয়ের জামাই কে এই মুসলিম তরুণ নাসের

অপসাংবাদিকতা প্রতিরোধের উদ্যোগ প্রশংসাযোগ্য

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১০৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

 hgljljl

 মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, এডভোকেট: সকাল বেলা দৈনিক পত্রিকা হাতে নিয়ে “অপসাংবাদিকতা প্রতিরোধে উদ্যোগ নিয়েছে দুই সাংবাদিক ইউনিয়ন” শিরোনামের সংবাদটিই প্রচন্ড আকর্ষন করল আমাকে। এ ধরনের একটি সংবাদ কক্সবাজারের আমজনতা র্দীঘদিন আগে থেকে প্রত্যাশা করছিল। সংবাদে লিখা হয়েছে, কক্সবাজার জেলায় সাম্প্রতিক সময়ে সাংবাদিকতার নামে নানা অপতৎপরতা ও চাঁদাবাজির ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়ন ও সাংবাদিক ইউনিয়ন, কক্সবাজার। জেলার দুই সাংবাদিক সংগঠনের যৌথ এক সভা গত বুধবার সকালে কক্সবাজার প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত হয়। সাংবাদিক ইউনিয়ন কক্সবাজারের সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক বদিউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু তাহের ও সাধারণ সম্পাদক জাহেদ সরওয়ার সোহেল, সাংবাদিক ইউনিয়ন কক্সবাজারের সাধারণ সম্পাদক জিএএম আশেক উল্লাহ। সভায় গুরুত্বসহকারে আলোচিত হয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে কক্সবাজার জেলায় সাংবাদিকতার নামে অপসাংবাদিকতা,চাঁদাবাজি, ভুমিদস্যূতাসহ নানা অপতৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। কিছূ সংখ্যক ভুয়া সাংবাদিক নিজেদের বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে লোকজনকে হয়রানী করছে। তাদের এই অপতৎপরতায় প্রকৃত সাংবাদিকদের পেশাগত মান মর্যাদা ভাবমূর্তি বিনষ্ট হচ্ছে। গণমাধ্যম নানা প্রশ্নের সম্মূখিন হচ্ছে। এসব অপতৎপরতা প্রতিরোধে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ঐক্যমত পোষন করে জেলার প্রকৃত সাংবাদিকদের একটি তালিকা তৈরীর উদ্যোগ গ্রহন করেছে। এই ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসন, সংবাদপত্র কর্তৃপক্ষ এবং কর্মরত সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করেছেন দুই সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ। এই উদ্যোগের ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার বিকালে কক্সবাজার প্রেসক্লাবে কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়ন, সাংবাদিক ইউনিয়ন কক্সবাজারের যৌথ উদ্যোগে সিনিয়র সাংবাদিক ও সম্পাদকদের সাথে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। আমি ব্যক্তিগতভাবে সাংবাদিক ভাইদের এ মহতী উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে ঘোষণা করছি যে এ উদ্যোগে যদি কোন আইনী সহায়তা প্রয়োজন হয় তা আমি দিতে প্রস্তুত আছি। আমি পেশায় আইনজীবী হলেও আইন পেশায় যোগদান করার আগে আমি সাংবাদিকতার সাথে জড়িত ছিলাম। কক্সবাজার প্রেসক্লাব প্রতিষ্ঠায় সাংবাদিক বন্ধুদের সহযোগী হিসেবে আমি প্রচুর সময় ও শ্রম দিয়েছি। কক্সবাজার প্রেস ক্লাব, সাংবাদিক ইউনিয়ন, পিআইডি, ইউএনডিপি ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে বিভিন্ন সাংবাদিক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় আমি বহুবার আইন বিষয়ক প্রশিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেছি। কতিপয় সাংবাদিকের অসত্য, মানহানিকর সংবাদে বা চাঁদাবাজি, ভুমিদস্যুতার কারণে সংক্ষুব্ধ মানুষ নোটিশ দেওয়ার জন্য বা মামলা করার আগ্রহ নিয়ে আইনজীবী হিসেবে আমার সাথে যোগাযোগ করেন। আমি নৈতিক দায়বব্ধতার কারণে আগত সংক্ষুব্ধ ব্যক্তিকে আইনী পরামর্শ দিলেও আমার ৩৪ বছর উকালতি জীবনে কোন দিন কোন সাংবাদিককে নোটিশ দিই নাই বা সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করি নাই, প্রথম জীবনে সংশ্লিষ্টতার জন্য এক ধরনের দুর্বলতার কারণে। তবে জোর গলায় বলতে পারব বিপদগ্রস্থ সাংবাদিকের পক্ষে অনেক মামলা করেছি। তাই কতিপয় অপসাংবাদিকের অপকর্ম সর্ম্পকে আমি জ্ঞাত আছি। কক্সবাজার থেকে কয়টা সংবাদপত্র প্রকাশিত হয় এবং সবগুলো পত্রিকার সম্পাদকদের নাম আমি বলতে পারব না। কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত পত্রিকাগুলোর সাংবাদিকদের নাম সাংবাদিক নেতাদের পক্ষেও বলা সহজ হবে না। সাংবাদিকদের মধ্যে অনৈক্যের কারণে অপসাংবাদিক, চাঁদাবাজ, ভুমিদস্যু, ধান্ধাবাজরা নিজেদের সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে অপকর্ম করার সাহস ও সুযোগ পাচ্ছে। দেশের প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো বার বার ক্ষমতায় গিয়ে এ দেশের সাধারণ মানুষকে শান্তি ও স্বস্তি দিতে ব্যর্থ হলেও তাদের অপরাজনীতি সাংবাদিক, আইনজীবী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, ছাত্র, শিক্ষক, মালিক শ্রমিক,বিচারক,আমলা ইত্যাদি সর্বক্ষেত্রে দুইভাগে বিভক্ত করতে সফল হয়েছে। এ বিভক্তি ও অনৈক্য দেশ, রাষ্ট্র, রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ অংগসহ সবকিছুকে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করছে। দেশের এ ধরনের অনিশ্চয়তা, অস্থিরতা, অসহিঞ্চু ও উদ্বেগজনক পরিস্থিতিতে কক্সবাজারের সাংবাদিক নেতারা বৃহত্তর স্বার্থে নিজেদের মতভেদ ভুলে গিয়ে যৌথভাবে যে মহতী উদ্যোগ নিয়েছেন তা কক্সবাজারবাসী স্বাগত জানাবে। কক্সবাজার জেলায় কর্মরত প্রকৃত সাংবাদিকদের তালিকা প্রস্তুত করার উদ্যোগ অবশ্যই সফল হবে ইনসাল্লাহ। তবে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে যারা মাসের পর মাস, বছরের পর বছর ধরে চাঁদাবাজি, ধান্ধাবাজিতে লিপ্ত আছে তাদের একটি তালিকা প্রস্তুত করে তাদের টাউট এক্ট অনুযায়ী টাউট ঘোষণা করার জন্য জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট বা জেলা প্রশাসকের বরাবরে প্রেরণ করলে সাংবাদিক সমাজ তথা কক্সবাজারবাসী বেশী উপকৃত হবেন বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT